১ ভাদ্র  ১৪২৬  সোমবার ১৯ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১ ভাদ্র  ১৪২৬  সোমবার ১৯ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অভিনেত্রী মাধবী মুখোপাধ্যায়কে ঘিরে চলা চাপানউতোরের মাঝেই অবস্থান স্পষ্ট করল বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদ (বিসিপি)। বৃহস্পতিবার, সাংবাদিক সম্মেলনে বিজেপি ঘনিষ্ঠ এই পরিষদের সহ-সভাপতি মিলন ভৌমিক দাবি করেন, মাধবী মুখোপাধ্যায়কে রীতিমতো ভয় দেখিয়ে বিবৃতি আদায় করা হয়েছে। নাম না করে শাসকদলকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন তিনি।       

[আরও পড়ুন: সুজয় ঘোষের হাত ধরে নতুন ওয়েব সিরিজে যিশু সেনগুপ্ত]

এদিন, নাম না করেও তৃণমূলের দিকে তোপ দেগে মিলনবাবুর বক্তব্য, বিসিপি কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত নয়। রাজনৈতিক স্বার্থেই এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবেই সংগঠনটিকে রাজনৈতিক রঙে রাঙিয়ে দেওয়া হচ্ছে। মাধবী দেবীর ‘চোখে চশমা ছিল না’ ও ‘আমি বিজেপিতে যেতে চাই না’ মন্তব্য নিয়ে প্রশ্ন করা হলে মিলন ভৌমিক বলেন, “সেদিন তাঁর চোখে চশমা ছিল। তিনি কাগজ পড়েই সই করেছেন। আমাদের কছে ভিডিও রয়েছে। মাধবীদেবী নমস্য অভিনেত্রী। আমাদের সমর্থন করে তাঁকে রীতিমতো সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। এর জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। এখানে বিজেপির কথা আসাই উচিত নয়। বিসিপি অরাজনৈতিক সংগঠন। মাধবীদেবীকে ভয় দেখিয়ে এই মন্তব্য করতে বাধ্য করা হয়েছে।” একই সুরে রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছেন পরিষদের সহ-সভাপতি অরিন্দম চক্রবর্তীও। 

রাজনৈতিক ভাবধারা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে, পরিষদের দুই কর্তা মিলন ভৌমিক ও অরিন্দম চক্রবর্তী সাফ জানান, রাজনৈতিক ভাবধারা সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত বিষয়। পরিষদে বামপন্থী বিপ্লব চট্টোপাধ্যায়ও রয়েছেন। ফলে বিসিপি-র সাধারণ সম্পাদক শঙ্কুদেব পণ্ডার রজনৈতিক ভাবধারা নিয়ে প্রশ্ন কাম্য নয়। এখানে কোনওভাবেই রাজনৈতিক মতবাদের ভিত্তিতে বৈষম্য হয় না।        

লোকসভা পরবর্তী পরিস্থিতিতে টলিউডে দাপট বেড়েছে গেরুয়া শিবিরের। ফলে স্বাভাবিকভাবেই প্রভাব বিস্তার করছে গেরুয়া শিবির ‘ঘনিষ্ঠ’ বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদ। জল্পনা, ওই শিবিরে নাম লেখাতে ‘ইচ্ছুক’ অনেকেই। ফলে বাংলা ছবির জগতে তৃণমূল ঘনিষ্ঠ শিবিরের আধিপত্য রীতিমতো চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে। আগামিদিনে টলি জগতে বড়সড় থাবা বসাতে চলেছে বিসিপি বলেই এদিন ইঙ্গিত দিয়েছে পরিষদ। বিতর্কিত ‘দাঙ্গা’ ছবির পরিচালক, মিলন ভৌমিকের দাবি, তাদের সঙ্গে টলিউডের প্রথমসারির অভিনেতাদের অনেকেই যোগাযোগ রাখছেন। তবে আপাতত ‘ওদের আতঙ্কে’ তাদের নাম প্রকাশ করা হচ্ছে না। এখানে ‘ওদের’ বলতে ইঙ্গিতে তৃণমূল কংগ্রেসের দিকেই আঙুল তুলেছেন তিনি। সব মিলিয়ে রাজ্যে ‘হীরক রাজার’ রাজত্ব চলছে বলেই মন্তব্য পরিষদের।

উল্লেখ্য, বিজেপি ঘনিষ্ঠ বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদে অভিনেত্রী মাধবী মুখোপাধ্যায়ের ‘যোগদান’ নিয়ে মঙ্গলবার ছড়ায় জল্পনা। পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শঙ্কুদেব পণ্ডা, সহ-সভাপতি মিলন ভৌমিক ও অরিন্দম চক্রবর্তী দেখা করে আসেন বর্ষীয়ান এই অভিনেত্রীর সঙ্গে। একটি ভিডিও বার্তায় অভিনেত্রী জানিয়েছিলেন, দুঃস্থ শিল্পীদের পাশে দাঁড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদ। তাই তিনিও এই সংগঠনের পাশে রয়েছেন। আর এই বার্তা ঘিরেই জল্পনা ওঠে তুঙ্গে। রাতারাতি খবর হয়ে যায় যে, মাধবী মুখোপাধ্যায়ও যোগ দিলেন গেরুয়া শিবিরে। তবে মঙ্গলবার এই জল্পনা তুঙ্গে উঠতেই, বুধবার অভিনেত্রী নিজের বাড়িতে একটি সাংবাদিক বৈঠকে সাফ জানান, তিনি বিজেপিতে যাচ্ছেন না। তাঁকে ভুল বুঝিয়ে সংগঠনের সদস্য বানানো হয়েছে।

দেখুন ভিডিও:

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং