১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়: কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপর বিষয়ে সংসদের ভিতরে ও বাইরে মানুষের মধ্যে অভুতপূর্ব সাড়া মিলেছে। কিন্তু বিরোধীরা এটাকে নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। অপপ্রচার করছে। তাই দেশজুড়ে ৩৭০ ধারা বিলোপের সমর্থনে পালটা প্রচারে নামছে বিজেপি। আর এই প্রচার কর্মসূচির নাম দেওয়া হয়েছে রাষ্ট্রীয় একতা অভিযান।

[ আরও পড়ুন: ‘চুরির দায়ে ধরা পড়বেন মমতা’, বিস্ফোরক দাবি মুকুলের় ]

সোমবার কলকাতায় এসে এই কর্মসূচির বিষয়ে বিস্তারিত জানালেন কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী ভি মুরলীধরন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানালেন, বাংলা-সহ সারা দেশে সমাজের বিশিষ্টজন, ছাত্র থেকে শুরু করে সর্বস্তরের মানুষের কাছে তুলে ধরা হবে, কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপ কেন জরুরি ছিল। এটা করা হয়েছে সংবিধান মেনে এবং কাশ্মীরের মানুষের স্বার্থে। তাঁর অভিযোগ, বিরোধীরা এই বিষয়টিকে নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে সাধারণ মানুষের মধ্যে। এই রাষ্ট্রীয় একতা অভিযানের প্রচার কীভাবে চলবে, রোডম্যাপ কী হবে সে বিষয়ে বাংলা, ঝাড়খন্ড, বিহার, ওড়িশা ও ছত্তিশগড়-এই পাঁচটি রাজ্যে দলের প্রতিনিধিদের নিয়ে সোমবার কলকাতায় আইসিসিআর অডিটোরিয়ামে একটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভি মুরলীধরন ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সারা দেশে এই কর্মসূচির দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপির কেন্দ্রীয় সহসভাপতি জয় পান্ডা ও জাতীয় মুখপাত্র গৌরব ঘাটিয়া। কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন বাংলার দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়, অরবিন্দ
মেননরা। উপস্থিত ছিলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সুব্রত চট্টোপাধ্যায়, সাংসদ ডাঃ সুভাষ সরকার প্রমুখ।

[ আরও পড়ুন: ঋণ শোধের আগেই ভেঙেছে ঘর, অনিশ্চিত ভবিষ্যতের আশঙ্কায় বউবাজারের বধূ ]

কর্মশালা শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে ভি মুরলীধরন বলেন, রাষ্ট্রীয় একতা অভিযানে সারা দেশে ৪০০টি বিশেষ সভা হবে। তার মধ্যে ৩৭০টি ছোট ও ৩৫টি বড় সভা। ২ হাজার জন প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তির কাছে পৌঁছবেন বিজেপি নেতৃত্ব। সোমবার থেকে সারা দেশে এই প্রচার অভিযান আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে। চলবে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। পশ্চিমবঙ্গে কলকাতা ও শিলিগুড়িতে দু’টি বড় সভা হবে। এদিকে, রাষ্ট্র সংঘের সাধারণ সভায় পাকিস্তান যদি কাশ্মীরের প্রসঙ্গ তোলে সে বিষয়ে কেন্দ্রীয় বিদেশ মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী ভি মুরলীধরনকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, রাষ্ট্রসংঘে বিষয়টি আগেই উঠেছিল। আমাদের অবস্থান পরিস্কার রয়েছে। তাছাড়া আলোচনাটা দ্বিপাক্ষিকস্তরেই হবে। আর প্রতিবেশী দেশগুলি এটা নিয়ে প্রশ্ন তুললে ভারত জবাব দিতে প্রস্তুত রয়েছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং