BREAKING NEWS

২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ৯ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

নাগেরবাজার কাণ্ডে ‘ষড়যন্ত্রে’র অভিযোগ মন্ত্রীর, NIA তদন্তের দাবি দিলীপের

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: October 2, 2018 3:33 pm|    Updated: October 2, 2018 4:38 pm

Blame game begains in Nagerbazar Blast Case

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নাগেরবাজার বিস্ফোরণ কাণ্ডে বড়সড় ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুললেন  খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক৷ মঙ্গলবার দুপুরে আর এক মন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসুকে সঙ্গে নিয়ে নাগেরবাজারের কাজীপাড়ায় বিস্ফোরণস্থল পরিদর্শন করেন তিনি৷ খাদ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, নাগেরবাজারে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে বিজেপি ও আরএসএস৷  এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা অবনতি হলে তৃণমূল কর্মীদের চোখ থেকে আগুন ঝরবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছেন শাসকদলের  উত্তর ২৪ পরগনা জেলা পর্যবেক্ষক৷ অন্যদিকে,  এদিনের এই বিস্ফোরণ কাণ্ডে দায় এড়িয়ে এনআইএ তদন্তে দাবি জানিয়েছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ কীভাবে জনবহুল এলাকায় বিস্ফোরক এল তা নিয়েও এদিন প্রশ্ন তোলেন তিনি৷

[নাগেরবাজারে বিস্ফোরণের বলি শিশু, সিআইডির কাছে তথ্য চাইল এনআইএ]

মঙ্গলবার সকালে নাগেরবাজারের কাজীপাড়ায় যে ভবনে বিস্ফোরণ ঘটেছে, সেই ভবনেই বসেন দমদম পুরসভার চেয়ারম্যান পাঁচু রায়৷ খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন,,  ‘‘দমদম পুরসভার চেয়ারম্যান পাঁচ রায় ভালো কাজ করছেন৷ তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয়৷ এলাকায় খুব ভালো কাজ হচ্ছে৷ পুরসভা আমাদের৷ বিধায়ক আমাদের৷ সাংসদ আমাদের৷ দমদমে এখন উন্নয়নের কর্মযজ্ঞ চলছে৷ উন্নয়নের কর্মযজ্ঞ থামাতে পাঁচু রায়কে টার্গেট করা হয়েছিল৷ আমি এখানকার সমস্ত কাউন্সিলদের বলব, তাঁরা যান তাঁদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করে রাখেন৷ কারণ, বিজেপি এখানে বড়সড় ষড়যন্ত্র শুরু করেছে৷ এটা আমাদের রুখতে হবে৷’’ তাঁর আরও অভিযোগ, ‘‘ বিস্ফোরণে একজন শিশু মারা গিয়েছে৷  দমদম মতো জনবহুল এলাকা সকেট বোমা রেখে গিয়েছে৷ এমন ঘটনা কোনওদিন আমি দেখেনি৷ বিজেপি মানুষ মারা পরিকল্পনা করছে৷’  মন্ত্রীর হুঁশিয়ারি , ‘‘বিজেপি এখানে অশান্তি পাকানোর চেষ্টা করছে৷  আমাদের ছেলেরা প্রতিরোধ করবে৷ এখন চোখ দিয়ে জল পড়ছে৷ এবার আগুন বেরোবে৷’’

[প্রয়াত আরামবাগের প্রাক্তন সাংসদ অনিল বসু]

মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক যাই বলুন না কেন, নাগেরবাজারকাণ্ডে সরকারকেই কাঠগড়ায় তুলেছে বিরোধীরা৷  বিধানসভায় সিপিএমের পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, ‘‘রাজ্য জতুগৃহে পরিণত হয়েছে৷ এই ঘটনা খুবই উদ্বেগজনক৷  পুরপ্রধান নিজেই যদি টার্গেট হন, তাহলে পুলিশ কী করছিল ? এলাকায় বিস্ফোরক ঢুকল, পুরপ্রধানকে খুনের চক্রান্ত করা হল,  অথচ পুলিশ কিছুই জানতে পারল না! ’’ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র বলেন, ‘‘পশ্চিমবঙ্গ আজ বারুদের স্তূপের উপর দাঁড়িয়ে। এ রাজ্যের শাসক দলের নেতা-নেত্রীরা বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির উপর দোষ চাপাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন৷ শাসকদলের নেতা- নেত্রীদের কথা অনুযায়ী, তাঁদের দলের নেতা কর্মীদের লক্ষ্য করেই নাকি এ বিস্ফোরণ। তাই যদি হয়, তবে যে সরকার তাঁদের নিজেদের নেতা- কর্মীদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে অপারগ, তাঁরা সাধারণ মানুষকে নিরাপত্তা দেবে কীভাবে?’’ এদিন সরকারকে আক্রমণ করেছেন মানবাধিকার কর্মী রঞ্জিত শূর৷ তিনি বলেন, ‘‘শাসকদলের মদতেই রাজ্যে বোমা মজুত হচ্ছে৷ তাঁদের বিভিন্ন পার্টি অফিসে বোমা মজুত হচ্ছে৷’’

[সাতসকালে নাগেরবাজারে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, অল্পের জন্য রক্ষা পুরপ্রধানের]

শাসকদলের চাপানো সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে পুলিশ ও তৃণমূলের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ বলেন, ‘‘জেলায় জেলায় তৃণমূলের পার্টি অফিসে বোমা বিস্ফোরণের খবর পাওয়া যাচ্ছে৷ তৃণমূলের পার্টি অফিসগুলি দুষ্কৃতীদের আখড়া হয়ে দাঁড়িয়ে৷ রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা ফেরাতে ব্যর্থ পুলিল৷ রাজ্যে কিছু হলেই বিজেপির উপর দায় চাপানোর চেষ্টা করা হচ্ছে৷ এখনতো শহরের সুরক্ষা নিয়েই ভয় হচ্ছে৷’’  দমদমে আরএসএসের কর্মসূচি বানচাল করতেই তৃণণমূল এই বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে বলেও অভিযোগ তোলেন দিলীপ ঘোষ৷ মন্তব্য করেন, ‘‘গোটা রাজ্যজুড়ে তৃণমূল, তৃণমূলকে মারছে৷ এই ঘটনার পেছনে এমন কোনও সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না৷ আমরা এই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তে দাবি জানাচ্ছি৷ এনআইএ তদন্তের দাবি করছি৷’’

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে