২৭ কার্তিক  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৭ কার্তিক  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অব্যাহত কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাত৷ সিবিআই-এর পর এবার এই টানাপোড়েনে প্রবেশ করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট৷ ইডি সূত্রে খবর, রোজভ্যালি কাণ্ডে কলকাতা পুলিশের দুই আইপিএস অফিসারের থেকে তথ্য তলব করেছে এই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাটি৷ তথ্য তলব করা হয়েছে ডিসি এসটিএফ মুরলীধর শর্মা ও ডিসি এসইডি কল্যাণ মুখোপাধ্যায়কে৷

[রুবি মোড়ের কাছে বহুতলে আগুন, ধোঁয়ায় অসুস্থ বেশ কয়েকজন দমকলকর্মী ]

সূত্রের খবর, এই দুই আইপিএসের থেকে তথ্য তলব সংক্রান্ত চিঠি ইতিমধ্যে রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিবের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে৷ সেখানে বলা হয়েছে, সিজিও কমপ্লেক্সে ইডি-র দপ্তরে তথ্য পৌঁছে দিতে হবে তাঁদের৷ নাহলে আবারও তলব করা হতে পারে৷ কলকাতা পুলিশও জানিয়েছে, চিঠিতে দুই আইপিএস অফিসারের থেকে কিছু নথি চাওয়া হয়েছে৷ যা প্রায়শই চাওয়া হয়ে থাকে৷ তা ইতিমধ্যে ইডির কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে৷

[এটিএমে টাকা তোলার পরই ‘ক্যানসেল’ বোতাম টিপুন, না হলে যা হবে…]

রবিবার বিকাল থেকে চরমে উঠেছে সিবিআই-রাজ্য পুলিশ সংঘাত৷ ওইদিন বিকালে হঠাৎই কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বাড়িতে হানা দেয় সিবিআই৷ কিন্তু তাঁরা নগরপালের বাংলোতে প্রবেশ করতে পারে না, কেন্দ্রীয় তদন্তকারীদের বাধা দেয় রাজ্য পুলিশ৷ উলটে সিবিআই আধিকারিকদের আটক করা হয়৷ রাজীব কুমারের বাড়িতে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ডিজি বীরেন্দ্র-সহ রাজ্য প্রশাসনের শীর্ষ কর্তারা৷ সিবিআইয়ের এই কীর্তির বিরোধিতা করে রবিবার থেকেই ধর্মতলায় ধরনায় বসেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ অভিযোগ করেন, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে রাজীব কুমারকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে সিবিআই৷ এর পিছনে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের অঙ্গুলিহেলন রয়েছে৷ সোমবার রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে যায় সিবিআই৷

মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈর নেতৃত্বাধীন ৩ বিচারপতির বেঞ্চে ওঠে দেশের ইতিহাসের অন্যতম নজিরবিহীন এই মামলা। রাজ্য পুলিশের তরফে আইনজীবী তথা রাজ্যসভার সাংসদ অভিষেক মনু সিংভি সওয়াল করেন। এদিন প্রধান বিচারপতি নির্দেশ দেন পুলিশ কমিশনারকে শিলংয়ে সিবিআইয়ের সামনে হাজিরা দিতে হবে। সিবিআইয়ের তদন্তে সবরকম সাহায্য করতে হবে রাজীব কুমারকে। তবে পুলিশ কমিশনারকে আপাতত গ্রেপ্তার করা যাবে না বলেও সাফ নির্দেশ দেয় আদালত। আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি শীর্ষ আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে কলকাতা পুলিশ কমিশনারকে। এরপরই মঙ্গলবার বিকালে ধরনা তুলে নেন মুখ্যমন্ত্রী৷ কেন্দ্রের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিয়ে ‘দিল্লি চলো’ ডাক দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং