BREAKING NEWS

১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  বুধবার ৫ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

অসমের পর এবার টার্গেট বাংলা, বিধানসভায় সর্বদল প্রস্তাব পেশ শাসকদলের

Published by: Tanumoy Ghosal |    Posted: July 31, 2018 4:21 pm|    Updated: July 31, 2018 4:21 pm

ফাইল ছবি।

তরুণকান্তি দাস: ‘অসমে যা চলছে, তা অমানবিক৷ আমরা এটা হতে দেব না৷’ মঙ্গলবার বিধানসভা নাগরিকপঞ্জি নিয়ে সর্বদলীয় প্রস্তাব পেশ করল সরকার৷ প্রস্তাব সমর্থন করেছেন কংগ্রেস ও বাম বিধায়করাও৷ আইনমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য বলেন, পড়শি রাজ্য অসমে এ রাজ্যের বহু মানুষ বসবাস করেন৷ তাঁদের সম্পর্কে তথ্য চেয়ে রাজ্য সরকারের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হয়েছিল৷ তাঁর অভিযোগ, অসমের পর এবার টার্গেট বাংলা৷

[ বিধানসভায় নাগরিকপঞ্জি ইস্যুতে সোচ্চার বামেরা, বাংলা-অসম সীমান্তে বাড়ছে নিরাপত্তা]

মঙ্গলবারই অসমে নাগরিকপঞ্জির চূড়ান্ত খসড়া প্রকাশ করেছে প্রশাসন৷ তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন ৪০ লক্ষ মানুষ৷ তাঁরা কেউই নাকি এদেশের বাসিন্দা নন! নাগরিকপঞ্জি থেকে যাঁদের নাম বাদ পড়েছে, তাঁদের অনেকেরই আবার ভোটার কার্ড ও আধার কার্ডও রয়েছে বসে অভিযোগ৷ তোলপাড় গোটা দেশ৷ মঙ্গলবার সংসদে একপ্রস্ত বিক্ষোভ দেখিয়েছেন বিরোধী দলের সাংসদরা৷ মুলতুবি প্রস্তাব এনেছিলেন তৃণমূল সাংসদরাও৷ বিক্ষোভ চলে বুধবারও৷ অসমে নাগরিকপঞ্জি ইস্যুতে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছে মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তাঁর অভিযোগ, পড়শি রাজ্যে ‘বাঙালি খেদাও’ অভিযান চলছে৷ অাগস্টের শুরুতে অসমে যাচ্ছে এ রাজ্যের শাসকদলের সাংসদের এক প্রতিনিধি দল৷ পড়শি রাজ্যে যাবেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ও তৃণমূল বিধায়ক মহুয়া মৈত্রও৷ তবে শুধু শাসকদলই নয়, অসম ইস্যুতে প্রতিবাদে সরব বিরোধীরাও৷ মঙ্গলবার বিধানসভায় বিষয়টি তোলেন বাম বিধায়করা৷ মঙ্গলবারের অধিবেশনে অসমে নাগরিকপঞ্জি নিয়ে সর্বদল প্রস্তাব পেশ করল রাজ্য সরকার৷ আইন প্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য বলেন, অসমে যা চলছে যা আনবিক৷ এটা চলতে দেওয়া যাবে না৷ অসমে এ রাজ্যেরও বহু মানুষ বসবাস করেন৷ তাঁদের সম্পর্কে তথ্য চেয়ে রাজ্য সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিল৷ অসমের পর এবার টার্গেট বাংলা৷ সরকারের সর্বদল প্রস্তাবকে সমর্থন করেছেন কংগ্রেস ও বাম বিধায়ক৷ স্বাভাবিক কারণে প্রস্তাবে সায় নেই বিজেপির৷

এদিকে পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে অসমে অশান্তি ঠেকাতে তৎপর বাঙালিদের সংগঠনগুলি৷ বিপন্ন মানুষদের আইনি সাহায্য করতে খোলা হয়েছে লিগাল ক্যাম্পও৷ বাঙালি সংগঠনগুলির সদস্যদের আশঙ্কা, নাগরিকপঞ্জির তালিকা হাতে আসার পর পরিস্থিতি আমূল পালটে যাবে৷ আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন অসমের কংগ্রেস সাংসদ সুম্মিতা দেব৷

[ ‘ক্ষমতায় এলে বাংলাতেও এনআরসি, বাংলাদেশিদের ঘাড়ধাক্কা দিয়ে ফেরানো হবে’]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে