BREAKING NEWS

৭ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

চোর সন্দেহে শহরের যুবককে গণধোলাই, সচেতনতা প্রচারে আরও জোর পুলিশের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: February 20, 2019 11:44 am|    Updated: February 20, 2019 11:44 am

Lynching at Anandapur, Police increase campaigns

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে গণপ্রহারের ঘটনায় রাশ টানা যাচ্ছে না কিছুতেই। ফের চোর সন্দেহে গণপিটুনির শিকার শহরেরই এক যুবক। মঙ্গলবার রাতে আনন্দপুর থানা এলাকায় এক যুবককে ধরে ব্যাপক মারধর চালানোর অভিযোগ উঠল স্থানীয় বাসিন্দাদের বিরুদ্ধে। বেদম প্রহারে আহত ওই যুবকের শারীরিক অবস্থা সংকটজনক বলে হাসপাতাল সূত্রে খবর। প্রায় একই ঘটনা বেলুড়েও।

[সৎকারের পর গঙ্গা স্নানে বিপত্তি, নিমতলা ঘাটে জলের তোড়ে মৃত্যু যুবকের]

একের পর এক ঘটনা। পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ২৪ পরগনা, হাওড়ার পর এবার খোদ কলকাতায়। চোর সন্দেহে এক যুবককে ধরে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠল একদল শহরবাসীর বিরুদ্ধে। এবার ঘটনাস্থল বাইপাস সংলগ্ন আনন্দপুর। এখানকার চিনা মন্দির এলাকার কাছে মঙ্গলবার রাতে এক যুবক কিছুটা অপ্রকৃতিস্থ অবস্থায় ঘোরাঘুরি করতে দেখেন আশেপাশের মানুষজন। তার গতিবিধি দেখে সন্দেহ হয়। এরপর তাকে ‘চোর’ অপবাদ দিয়ে শুরু হয় ব্যাপক মারধর। মারের চোটে যুবকের মুখ, হাত-সহ শরীরের বেশ কিছু অংশ রক্তাক্ত হয়। আনন্দপুর থানার পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে যুবককে উদ্ধার করে। তাকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়। সকাল থেকে এ নিয়ে চাপা উত্তেজনা রয়েছে এলাকায়। রয়েছে পুলিশ প্রহরা। প্রাথমিকভাবে পুলিশ সূত্রে খবর, ওই যুবকের বিরুদ্ধে কোনও চুরি বা অন্য কোনও অপরাধের সঙ্গে জড়িত থাকার রেকর্ড নেই। যুবকটি ওই এলাকারই বাসিন্দা। সম্ভবত মদ্যপ অবস্থায় চিনা মন্দিরের কাছে পৌঁছে গিয়েছিলেন তিনি।

[রাষ্ট্রসংঘের বিচারে বিশ্বসেরা মমতার ‘উৎকর্ষ বাংলা’ প্রকল্প]

অন্যদিকে, বেলুড়ের ভোটবাগান এলাকাতেও একই ঘটনা। শিশুচোর সন্দেহে এক যুবককে ব্যাপক মারধরের অভিযোগ ওঠে। পরে পুলিশ গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে। সাম্প্রতিক সময়ে ধারাবাহিকভাবে এ ধরনের ঘটনা ঘটতে থাকায় তা রুখতে কড়া পদক্ষেপ নিচ্ছে প্রশাসন। মুখ্যমন্ত্রী নিজেও এ বিষয়ে রাজ্যবাসীকে বার্তা দিয়েছেন, গুজবে কান না দেওয়ার। পাশাপাশি পুলিশ প্রশাসনের কাছেও এসব ঘটনায় কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু তা সত্ত্বেও ঘটেই চলেছে গণপ্রহারের মতো অপ্রত্যাশিত ঘটনা। ছড়িয়ে পড়ছে আতঙ্ক। তবে মঙ্গলবার আনন্দপুরের ঘটনার পর থেকে আরও সতর্ক হয়েছে কলকাতা পুলিশ। এলাকায় ঘুরে ঘুরে সচেতনতা বার্তা দেওয়া হচ্ছে। চলছে গুজবে কান দেওয়ার প্রচার। পুলিশের এই পদক্ষেপে আদৌ শহরবাসীর সচেতনতা ফেরে কি না, সেটাই দেখার।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে