২৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

অর্ণব আইচ: শহরে সেতু বা উড়ালপুলগুলির নিচে এত হকার কেন? প্রয়োজনে থানা ও ট্রাফিক গার্ডে বেশ কয়েক বছর ধরে থাকা সার্জেন্টদের সরিয়ে নতুন সার্জেন্টদের নিয়ে এসে তাঁদের কাজের সুযোগ করে দিতে হবে। শুক্রবার শহরের প্রত্যেকটি থানা ও ট্রাফিক গার্ডের ওসি এবং পুলিশ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে এমনই বললেন পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা।
গত মাসে কলকাতায় দু’টি খুন ও দু’টি ডাকাতি হয়েছে। ধরাও পড়েছে দুষ্কৃতীরা। শুক্রবারের বৈঠকে মূলত এসব অপরাধ নিয়ে আলোচনা করেন পুলিশ কর্তারা। এরপরই বৈঠকে একের পর এক পরোয়ানা বা ওয়ারেন্ট পড়ে থাকা নিয়ে উষ্মাপ্রকাশ করেন পুলিশ কমিশনার। শহরের কয়েকটি ডিভিশনে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি থাকা সত্ত্বেও অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়নি। সেই তালিকা হাতে নিয়ে শহরের ডিসি পদমর্যাদার অফিসার ও থানার ওসিদের কমিশনার নির্দেশ দেন, কেস ডায়েরি হাতে পেলে ও পরোয়ানা জারি হলে, তা ফেলে রাখা যাবে না। সঙ্গে সঙ্গেই ব্যবস্থা নিতে হবে। অভিযুক্তদের যত দ্রুত সম্ভব গ্রেপ্তার করতে হবে। একইসঙ্গে কোনও মামলার চার্জশিট বাকি থাকলে যাতে খুব তাড়াতাড়ি চার্জশিট দেওয়া হয়, পুলিশ কমিশনার সেই নির্দেশ দেন।

[ আরও পড়ুন: ‘আমার মতো সামান্য শিক্ষিকার বিজেপিতে দরকার নেই’, চমকের ইঙ্গিত বৈশাখীর]   

পুলিশ কমিশনার জানান, এই বিষয়গুলি থানার আধিকারিকরা মানছেন কি না, তার উপর পদস্থ কর্তাদের নজর দেওয়ার প্রয়োজন। তাই তিনি যুগ্ম পুলিশ কমিশনার পদমর্যাদার আধিকারিকদের নির্দেশ দেন, তাঁরা যেন সপ্তাহে একদিন থানা পরিদর্শন করে বিষয়গুলি খতিয়ে দেখেন। থানার ওসি, অতিরিক্ত ওসি ও পুলিশ অফিসারদের সঙ্গে আলোচনা করেন। তাঁদের প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে প্রত্যেক ডিসিকে বলা হয়েছে, তাঁরা যেন নিজেদের ডিভিশনের থানায় গিয়ে মাঝেমধ্যেই পরিদর্শন করেন। ওয়ারেন্ট অনুযায়ী গ্রেপ্তারি হচ্ছে কি না, তা খতিয়ে দেখেন। থানার অফিসারদের উপর যেন নজর রাখেন তাঁরা।
শহরের বহু থানা ও ট্রাফিক গার্ডে অনেক বছর ধরে একই সার্জেন্ট রয়েছেন। এলাকার হকারদের উপর নজরদারি করার দায়িত্ব সার্জেন্টদের। কোনও কোনও ট্রাফিক গার্ড ও থানায় পাঁচ বছরের উপর ধরেও রয়েছেন একেকজন সার্জেন্ট। এদিন পুলিশ কমিশনার উষ্মা প্রকাশ করে প্রশ্ন করেন, কেন শহরের কিছু জায়গায় হকারের রমরমা? কেন শহরের ব্রিজগুলির তলায় অতিরিক্ত সংখ্যক হকার বসছে? তিনি পুলিশ আধিকারিকদের এই বিষয়ে কড়া হওয়ার নির্দেশ দেন। যে সার্জেন্টরা পাঁচ বছরের উপর ধরে থানা ও ট্রাফিক গার্ডগুলিতে রয়েছেন, প্রয়োজনে তাঁদের সরিয়ে দিয়ে নতুন সার্জেন্টদের আনার জন্যও পুলিশ কমিশনার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি প্রত্যেকটি থানা ও ট্রাফিক গার্ডকে নাকা চেকিং চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

[ আরও পড়ুন: দিনেদুপুরে কলকাতার রাস্তায় ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে মারধর, গ্রেপ্তার এক বৃদ্ধ-সহ ৪]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং