১৩ কার্তিক  ১৪২৭  শুক্রবার ৩০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

রাতের কলকাতায় ক্যাফেতে দুষ্কৃতী দৌরাত্ম্য, চলল গুলি ও বোমা

Published by: Sayani Sen |    Posted: September 18, 2020 3:22 pm|    Updated: September 18, 2020 3:22 pm

An Images

অর্ণব আইচ: রাতের কলকাতায় (Kolkata) চলল গুলি ও বোমা। মালিকের খোঁজে একটি ক্যাফের ভিতরে ঢুকে পড়ে বেশ কয়েকজন দুষ্কৃতী। মালিককে না পেলে ক্ষুব্ধ হয় তারা। আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে ম্যানেজারকে আক্রমণ করা হয়। এরপর চারটি বোমা ফাটাতে ফাটাতে এবং তিন রাউন্ড গুলি চালিয়ে ঘটনাস্থল ছেড়ে চলে যায় দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনায় জখম হয়েছেন একজন। তবে এই ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।

অন্যান্যদিনের মতো বৃহ্স্পতিবার রাতেও খোলা ছিল শহরে ওই ক্যাফে তথা হুক্কা বারটি। অভিযোগ, রাত দেড়টা নাগাদ নাসিরুদ্দিন রোডের নিশাত হায়দার নামে বছর তেইশের এক যুবক ওই হুক্কা বারে আসে। তার সঙ্গে ছিল আরও ৩ জন। হুক্কা বারে ঢুকেই হুক্কা বারের মালিক রাহুল সিংয়ের খোঁজ করতে থাকে। সেই সময় রাহুল ছিলেন না। তাই ওই যুবকদের সঙ্গে কথা বলতে এগিয়ে আসেন ম্যানেজার মহম্মদ আমিন। অভিযোগ, ওই যুবকেরা ম্যানেজারের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে। বন্দুকের বাঁট দিয়ে একাধিকবার আঘাত করা হয় তাঁকে।

[আরও পড়ুন: ‘কলকাতার বদনাম চাই না’, ট্যাক্সি চালকের হাতে হেনস্তা মামলায় আদালতে সোচ্চার মিমি চক্রবর্তী]

বেশ কিছুক্ষণ পর ক্যাফে ছেড়ে বেরিয়ে যায় নিশাত হায়দার-সহ চার যুবক। বেরনোর সময় হুক্কা বারের সামনে বোমাবাজি করে তারা। পরপর চারটি বোমা ফাটানো হয়। তিন রাউন্ড শূন্যে গুলিও চালায় অভিযুক্তরা। এরপরই ঘটনাস্থল ছাড়ে তারা। কড়েয়া থানায় ঘটনার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তবে এখনও কেউই পুলিশের জালে ধরা পড়েনি। কে বা কারা এই ঘটনায় যুক্ত, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ওই হুক্কা বারের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, তোলাবাজি সংক্রান্ত বিবাদের জেরে বোমাবাজি এবং গুলি চলেছে। তবে সেই সম্ভাবনা কতটা সঠিক, তাও তদন্ত করে দেখছেন পুলিশকর্মীরা।

[আরও পড়ুন: ‘বিহারীদের ভোটের জন্যই রবীন্দ্র সরোবরে ছটপুজোর আরজি’, মুখ্যমন্ত্রীকে তোপ অধীরের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement