BREAKING NEWS

২  ভাদ্র  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ১৮ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

কাকতালীয় হলেও সত্যি, মঙ্গলবারেই সূচনা ও সমাপ্তি মাঝেরহাট সেতুর

Published by: Tanujit Das |    Posted: September 9, 2018 11:11 am|    Updated: September 9, 2018 11:50 am

Strange but true! Majherhat Bridge inaugurated and collapsed on Tuesday

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: উত্থান হলে, পতন অনিবার্য৷ তবে আশ্চর্যজনকভাবে সেই উত্থান ও পতনের দিনক্ষণ যদি একই হয়, তবে তা কাকতালীয়ই বটে৷ ঠিক যেমনটা ঘটেছে মাঝেরহাট সেতু বিপর্যয়ের ক্ষেত্রে৷ দক্ষিণ শহরতলীর মানুষের মঙ্গলসাধনে ১৯৬৫-র এক মঙ্গলবারই সূচনা হয়েছিল এই সেতুর৷ আবার, ২০১৮-র আরও এক মঙ্গলবারেই সেই সেতুর উপর ঘনীভূত হয় অমঙ্গলের কালো মেঘ৷

[রবিবারও বাড়ল পেট্রল-ডিজেলের দাম, পকেটে টান গৃহস্থের]

জানা গিয়েছে, শিয়ালদহ-বজবজ শাখার ডায়মন্ড হারবার রোডের উপর মাঝেরহাট সেতুটি নির্মাণের কাজ শুরু হয় ১৯৬১-তে৷ কাজ শেষ হয় ১৯৬৫-তে৷ সেতুর উদ্বোধন করেন রাজ্যের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী প্রফুল্লচন্দ্র সেন৷ সূত্রের খবর, যেদিন সেতুর উদ্বোধন হয় সেই দিনটি ছিল মঙ্গলবার৷ ওই দিন থেকেই যান চলাচল শুরু হয় দক্ষিণ কলকাতার এই গুরুত্বপূর্ণ সেতুর উপর দিয়ে৷ পাশাপাশি, চলতি মাসের চার তারিখ বিকালে হঠাৎই ভেঙে পড়ে মাঝেরহাট সেতুর একটি অংশ৷ মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়েন তিন জন মানুষ৷ ঘটনার দায় কার? এই নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন৷ কেউ দায় চাপিয়েছে রাজ্যের পূর্ত দপ্তরের উপর৷ কেউ দায় ঠেলে দিয়েছে রেলের উপর৷ কারণ, সেতুটির রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব ছিল এই দুই সরকারি বিভাগের উপরেই৷ সেতু ভাঙাকে কেন্দ্র করে চড়তে শুরু করেছে রাজনৈতিক তরজা৷ এতকিছুর মধ্যেও উল্লেখযোগ্য বিষয়টি হল, সেতুটি যেদিন উদ্বোধন হয় সেই দিনটিও ছিল মঙ্গলবার এবং সেতুটি যেদিন ভেঙে পড়ে সেইদিনটিও হল মঙ্গলবার৷ কাকতালীয় হলেও বিষয়টিকে আশ্চর্যজনক বলেই মনে করছেন অনেকে৷

[বাম সরকারের গাফিলতিতেই ভঙ্গুর হয়েছিল সেতু, ফরেনসিক রিপোর্টে চাঞ্চল্য]

উল্লেখ্য, মাঝেরহাট সেতুটি দৈর্ঘ্যে ৮৬০ ফুট এবং প্রস্থে দুই পাশের আট ফুট চওড়া ফুটপাত-সহ ৫৯ ফুট৷ সেতুটি তৈরি করতে তৎকালীন সময়ে খরচ হয় ৪২ লাখ টাকা৷ রাজ্য সরকার ছাড়াও সেতু নির্মাণে অর্থ সাহায্য করে পূর্ব রেল, কলকাতা কর্পোরেশন, পোর্ট ট্রাস্ট ও কলকাতা ট্রাম কোম্পানি৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে