BREAKING NEWS

১২ কার্তিক  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

‘রাজভবনের ক্ষমতাও খর্ব করতে চাইছেন মমতা’, টুইটে ফের খোঁচা ধনকড়ের

Published by: Sayani Sen |    Posted: September 26, 2020 2:58 pm|    Updated: October 1, 2020 3:59 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্ববঙ্গ সম্মেলন প্রসঙ্গে খোঁচা দিয়ে সদ্যই সরাসরি রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রকে চিঠি লিখেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় (Jagdeep Dhankhar)। তার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও টুইটে মুখ্যমন্ত্রীকে খোঁচা দিলেন তিনি। রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান সমস্ত প্রশাসনিক প্রতিষ্ঠানকে কুক্ষিগত করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ তাঁরা। পরপর একাধিক টুইটে ফের রাজ্য এবং কলকাতা পুলিশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন রাজ্যপাল।

শনিবার রাজ্যপাল টুইটে দাবি করেন, রাজ্যে মানবাধিকার বিপন্ন। পুলিশকর্মীরাই তা হরণ করছেন। তাঁর আরও অভিযোগ, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) রাজভবন-সহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রশাসনিক প্রতিষ্ঠানগুলির ক্ষমতা খর্ব করতে চাইছে। ওই প্রতিষ্ঠানগুলিকে কুক্ষিগত করতে চাইছে বলেও টুইটে খোঁচা দেন তিনি।

জন্মদিনে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরকে টুইটে স্মরণ করেন রাজ্যপাল। এই কঠিন পরিস্থিতিতে বিদ্যাসাগরের ভাবনাচিন্তা এবং আদর্শে বাংলাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেন তিনি।

[আরও পড়ুন: NRS-এর কোভিড ওয়ার্ডে প্রেমের জোয়ার, ভালবেসে দাদুর ‘অনশন’ ভাঙালেন দিদা]

রাজ্যপাল হিসাবে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে রাজ্য প্রশাসনের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়েছেন ধনকড়। কখনও শিক্ষাক্ষেত্রে, আবার কখনও প্রশাসনিক ক্ষেত্রে বেনিয়মের অভিযোগে সুর চড়িয়েছেন তিনি। কোভিড পরিস্থিতি মোকাবিলার ক্ষেত্রেও স্বচ্ছতা নিয়ে একাধিকবার নবান্নের দিকে প্রশ্নবাণ ছুঁড়ে দিয়েছেন রাজ্যপাল। রাজ্যের তরফে কখনও সরাসরি জবাব দেওয়া হয়েছে তাঁকে। আবার কখনও পরোক্ষে আক্রমণ করা হয়েছে। তবে সুসম্পর্কও যে দেখা যায়নি, তা একেবারে বলা যায় না। রাজনৈতিক মহলের মতে, রাজভবন এবং নবান্নের সম্পর্ক ঘাত-প্রতিঘাত বোঝা বড়ই কঠিন। তবে সাম্প্রতিককালে একের পর এক টুইট খোঁচায় দু’পক্ষের সম্পর্ক তলানিতে ঢেকেছে বলেই মত ওয়াকিবহাল মহলের।

[আরও পড়ুন: থিমের উদ্বোধনে যন্ত্রমানবী মারিয়া, নজির গড়ল কলকাতার এই পুজো কমিটি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement