৩ ফাল্গুন  ১৪২৬  রবিবার ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo দিল্লি ২০২০ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩ ফাল্গুন  ১৪২৬  রবিবার ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: ফের জটিল অস্ত্রোপচারে সাফল্য পেল বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। কলকাতার বাইরে দক্ষিণবঙ্গে প্রথম কোনও সরকারি হাসপাতালে কাঁধের জয়েন্ট প্রতিস্থাপন করা হল। শুক্রবার বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে অর্থোপেডিক সার্জন বিপ্লব চট্টোপাধ্যায় এই অস্ত্রোপচার করেন। এই সাফল্যে খুশি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। বাইরে কোনও বেসরকারি হাসপাতালে এই অস্ত্রোপচার করাতে গেলে ৫ থেকে ৭ লক্ষ টাকা খরচ হয়। তবে সরকারি হাসপাতালে বিনা খরচে এই অস্ত্রোপচার করাতে পেরে খুশি রোগীর পরিজনরাও।

বিপ্লববাবু জানান, চিকিৎসা পরিভাষায় এই অস্ত্রোপচারকে ‘রিভার্স টোটাল অর্থোপ্লাস্টি অফ শোল্ডার জয়েন্ট রিপ্লেসমেন্ট’ বলা হয়। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, মাসদেড়েক আগে মেমারির চোৎখণ্ড এলাকার বাসিন্দা সাবিত্রী কর্মকার দুর্ঘটনায় কাঁধে আঘাত পান। জয়েন্টের হাড় ক্ষতিগ্রস্ত হয়। গত ১৭ ডিসেম্বর তিনি বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের অর্থোপেডিক বিভাগে দেখাতে আসেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর চিকিৎসকরা সিদ্ধান্ত নেন শোল্ডার রিপ্লেসমেন্ট করার সিদ্ধান্ত হয়। এই অস্ত্রোপচারের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করতে শুরু করেন কর্তৃপক্ষ। বিপ্লববাবু জানান, শুধুমাত্র রিপ্লেসমেন্ট করলে তা সফল হবে না বলে তাঁরা পরীক্ষা করে বুঝতে পারেন। তাই রিভার্স টোটাল শোল্ডার জয়েন্ট রিপ্লেসমেন্ট করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এটি দক্ষিণ ভারতে পাওয়া যায়। সেই অনুযায়ী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তা আনানোর উদ্যোগ নেন।

[আরও পড়ুন: সামুদ্রিক মাছ নয়, করোনা ভাইরাসে সর্পযোগ প্রকাশ্যে আসতেই কেউটে-কালাচে আতঙ্ক]

হাসপাতালের ডেপুটি সুপার অমিতাভ সাহা জানান, খুবই দুঃস্থ পরিবারের ওই মহিলা। ওনার স্বাস্থ্যসাথী কার্ডও রয়েছে। তিনি বলেন, “আমাদের হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হয়ে থাকে। আমরা সেই ইমপ্ল্যান্ট কেনার ব্যবস্থা করি। এদিন সফলভাবে তা প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।” হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, খুবই জটিল পরিস্থিতি ছিল ওই মহিলার কাঁধের। স্বাভাবিক রিপ্লেসমেন্ট করলে সমস্যা হতে পারে। তাই রিভার্স টোটাল শোল্ডার জয়েন্ট রিপ্লেসমেন্ট করার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। হাসপাতালের অ্যানাস্থেসিস্ট চিকিৎসকদের বিষয়টি জানানো হয়। সেই অনুযায়ী তাঁরা ব্যবস্থা করেন। মেডিক্যাল কলেজের সুপার স্পেশালিটি উইং অনাময় হাসপাতালের ট্রমা কেয়ারে অস্ত্রোপচার করা হয়। অস্ত্রোপচারের পর রোগীও ভাল আছেন বলে জানিয়েছেন। রোগীর আত্মীয় চাঁপা কর্মকার বলেন, “চিকিৎসকরা ভগবান। যা করেছেন তা কেউ করতে পারবেন না। আমরা খুব খুশি। সরকারি হাসপাতালে কোনও খরচ ছাড়া এই অস্ত্রোপচার করা হয়েছে।” হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, জেলা তো বটেই রাজ্যে এই ধরনের অস্ত্রোপচারের বিশেষ নজির নেই। এর আগে হাঁটু ও হিপ জয়েন্ট রিপ্লেসমেন্ট হয়েছে এই হাসপাতালে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং