৭ ভাদ্র  ১৪২৬  রবিবার ২৫ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাস্তার মোড়ে দাঁড়িয়ে কিছুক্ষণ আগেও যে বন্ধুটির সঙ্গে আপনি আড্ডা মারছিলেন৷ বাড়ি এসে ফেসবুক বা হোয়াটসঅ্যাপ খুলে দেখলেন, কয়েক মিনিটের মধ্যে তিনি বুড়ো হয়ে গিয়েছেন৷ তাঁর গালের চামড়া কুঁচকে গিয়েছে, চুল সাদা হয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু এই সব দেখে আপনি একটুও অবাক হবেন না যেন৷ কারণ, দিন কয়েক ধরে এটাই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ যাতে গা ভাসাচ্ছেন নেটিজেনরা৷ জানা গিয়েছে, FaceApp নামের একটি অ্যাপ ব্যবহার করেই নাকি ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ইনস্টাতে এই কেরামতি দেখাচ্ছেন তারা৷ তবে অনেকেই হয়তো জানেন না, এই অ্যাপের মধ্যেই লুকিয়ে রয়েছে বড় বিপদ৷ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই ধরনের অ্যাপের মাধ্যমেই নাকি সরাসরি বেহাত হয়ে যাচ্ছে ব্যবহারকারীর গোপন তথ্য৷

[ আরও পড়ুন: শুধু গন্তব্যের হদিশই নয়, এবার Google Map-এর সৌজন্যে মিলবে রেস্তরাঁয় ছাড় ]

আগে বলে দেওয়া যাক, কী এই FaceApp এবং কীভাবে এটাকে ব্যবহার করা হয়? জানা গিয়েছে, এই অ্যাপটিকে ব্যবহার করার জন্য প্রথমে গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে৷ তারপর এটি খুলে অ্যাড ইমেজ অপশন ক্লিক করে নিজের একটি ছবি আপলোড করতে হবে৷ আবার ক্যামেরা অপশনে গিয়ে সঙ্গে সঙ্গে কেউ ছবি তুলেও নিতে পারেন৷ এরপর সেই ছবি এলেই, স্মাইল, ওল্ড, টু ইয়ং-এর মতো অপশনগুলিতে ক্লিক করে নিজের বার্ধক্য, যৌবনকালে মুখের আকৃতি চোখের সামনে দেখতে পাবেন ব্যবহারকারীরা৷ বন্ধুদের সঙ্গে সেই ছবি ভাগ করে নিতে, ক্লিক করতে হবে শেয়ার অপশনে৷ এরপরই হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, টুইটারের মতো সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ছবি শেয়ার করা যাবে৷ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই অ্যাপের মাধ্যমে নিমেষে আপনি বয়স্ক মানুষে পরিণত হতে পারবেন। শুধু তাই নয়, বয়স্করা হয়ে যেতে পারেন তরুণও। সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন এই অ্যাপই রয়েছে ট্রেন্ডিং তালিকায়।

তবে সম্প্রতি এলিজাবেথ পটস উইন্সটাইন নামের এক মহিলা টুইটারে FaceApp ব্যবহারের যে শর্তাবলী পোস্ট করেছেন, তা দেখে চোখ কপালে উঠেছে বিশেষজ্ঞদের৷ শর্তাবলীতে লেখা রয়েছে, এই অ্যাপটি আপনার ফোনে একবার ডাউনলোড করলেই, কোম্পানির কাছে চলে যাবে ব্যবহারকারীর সমস্ত গোপন তথ্য৷ অ্যাপটি ফোনে একবার ডাউনলোড করা মানেই নাকি, ওই কোম্পানিকে সমস্ত তথ্য বাণিজ্যিক কাজে ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া। তাই বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিজ তথ্যকে গোপন রাখতে চাইলে এই অ্যাপটি ফোনে না ডাউনলোড করাই শ্রেয়৷

[ আরও পড়ুন: স্মার্টফোনে মাত্রাতিরিক্ত আসক্তি, বিপদ ডেকে এনেছিল চার বছরের শিশু! ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং