×

৪ ফাল্গুন  ১৪২৫  রবিবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

শুধু কনেচন্দন নয়। এখনকার কনেদের চাহিদা ফ্ললেস গ্লোয়িং স্কিন। ব্রাইডাল মেকআপের চলতি ট্রেন্ডস। লিখলেন তিতাস।

প্যাস্টেল অ্যান্ড পিচেস

বিয়ের কনে মানেই তাকে উজ্জ্বল লাল-মেরুন-ম্যাজেন্টারঙা পোশাক পরতে হবে, এমন ধ্যানধারণা এখন আর নেই। গত কয়েক বছরের ব্রাইডাল মেকআপ প্যালেটে আধিপত্য দেখা যাচ্ছে প্যাস্টেল রঙের। যেমন, মভ, ল্যাভেন্ডার, আইভরি, স্যামন পিংক, পিচ, পিচ-পিংক, মিন্ট গ্রিনের মতো রং। সঙ্গে মেকআপও হচ্ছে ন্যুড। তারই সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে সফট স্মোকি আই মেকআপ, নিট করে করা খানিক মোটা আইব্রাও সঙ্গে ন্যুড পিংক বা পিচ লিপকালার এখন ইন।

কালার্ড স্মোকি

ব্রাউন, ব্লু স্মোকি আইজের পর ব্রাইডাল ট্রেন্ডে এখন কালার্ড স্মোকি আইজের কদর বাড়ছে তরতরিয়ে। না, চোখে লাল-সবুজ আইশ্যাডো ব্যবহারের কথা হচ্ছে না। মেকআপ আর্টিস্টের নিপুণ হাতে কনের চোখের দেখা যাচ্ছে পিঙ্ক স্মোকি, অরেঞ্জ স্মোকি, প্লাম স্মোকি, পার্পল স্মোকি, ডার্ক পিঙ্ক স্মোকি আইজ।

সিম্পল অ্যান্ড এলিগেন্ট

চিরাচরিত কনের সাজের সঙ্গে অনেকেই হয়তো এই লুকের মিল খুঁজে পাবেন না। তবে কনের সাজের দৌড়েও এগিয়ে উইংগড লাইনার ও বোল্ড লিপ্‌স। ক্যাট আইজ লাইনার সঙ্গে ঠোঁটে অরেঞ্জ, রেড, পিংকের বিস্ফোরণ এখন অনেক কনেরই ফেভারিট।

এয়ারব্রাশ

রিসেন্ট মেকআপ ট্রেন্ডে সবচেয়ে জনপ্রিয় এয়ারব্রাশ। সালোঁ থেকে মেকআপ আর্টিস্ট- সবার কাছেই হবু কনেদের এক আবদার। এয়ারব্রাশ মেকআপ নিয়ে ভিন্ন মত থাকলেও পপুলারিটির কোনও অভাব নেই। এয়ারব্রাশ গান (বন্দুকের মতো দেখতে একটি যন্ত্র)-এর সাহায্যে স্প্রে করে সেট করা হয় এই মেকআপ। আলাদা করে হাত বা স্পঞ্জ দিয়ে ব্লেন্ড করার প্রয়োজন পড়ে না। মেকআপের ফিনিশ হয় ফ্ললেস, স্কিনকে পোর্সিলিন ভেবে ভুল হতে পারে এই মেকআপের পর। এখন প্রশ্ন হল আপনার ত্বকে এয়ারব্রাশ মেকআপের আদৌ প্রয়োজন আছে কি না সেটা যাচাই করার। আপনার ত্বক যদি ন্যাচরালি হেলদি, ব্লেমিশ ফ্রি ও স্মুদ হয়, তাহলে বিয়ের দিনে আপনার ত্বকের জেল্লা তিনগুণ বাড়িয়ে তোলার জন্য ট্রাই করতে পারেন এয়ারব্রাশ। বা ধরা যাক আপনার স্কিন নিখুঁত ও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল, তবে জীবনে আগে কখনও মেকআপ করেননি অথচ বিয়ের দিনে ইচ্ছে জমকালো সাজের, তাহলেও চলতে পারে এই মেকআপ। প্রয়োজনের অতিরিক্ত অয়েলি স্কিনের অধিকারিণীদের জন্যও আশীর্বাদ এই মেকআপ। সুপার সেনসিটিভ স্কিনেও উপযোগী এয়ারব্রাশ। কারণ এতে ত্বকের সঙ্গে হাতের সংস্পর্শ হয় না। ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা মেকআপ স্টে করাতে চাইলেও এয়ারব্রাশ ভাল অপশন। এছাড়া বর্ষাকাল ও ভরা গ্রীষ্মের মতো মরশুমে, ওপেন এয়ার স্টেজেও এয়ারব্রাশ দারুণ। তবে ফ্ললেস কমপ্লেকশন পাওয়ার জন্য এয়ারব্রাশ করলে হিতে বিপরীত হতে পারে। ড্রাই স্কিনের জন্য এয়ারব্রাশ সুটেবল নয়। এয়ারব্রাশ মেকআপ রিব্লেন্ড করা কঠিন। চোখের জল বা অতিরিক্ত ঘামের ফলে কোনও এক অংশে সামান্য খুঁত দেখা দিলে তা সাধারণ মেকআপের মতো রিটাচ করা যায় না। মুখে ব্রণ-ওপেন পোরস থাকলে তা এয়ার ব্রাশ মেকআপে ঢাকা সম্ভব নয়।

এইচডি মেকআপ

হাই ডেফিনেশন টেকনোলজির যুগে মেকআপের জগতেও ঢুকে পড়েছে এই পদ্ধতি। এই মেকআপ পদ্ধতিতে আপনার মুখের সেরা ফিচার্সগুলো হাইলাইট করে মুখের খুঁত ঢেকে ফেলা হয় এমনভাবে যাতে ছবিতে ও ভিডিওতে আপনাকে ফ্ললেস লাগে। এতে ব্যবহার করা হয় লাইট-স্ক্যাটারিং ও লাইট রিফ্লেকটিভ পার্টিকল সমৃদ্ধ মেকআপ, যার ফলে ত্বকে আসে অভিনব চমক ও ব্রাইডাল জেল্লা। হালকা বা ন্যাচরাল লুক রাখতেও এই মেকআপ কার্যকরী। যে সমস্ত কনে ন্যাচারাল গ্লোয়িং ও ম্যাটিফায়েড পিকচার পারফেক্ট লুক চান, তাঁদের জন্য এইচডি মেকআপ বেস্ট অপশন। স্কিনে ব্লেমিশ, অ্যাকনে, দাগছোপ ঢেকে ফেলার ক্ষেত্রেও এইচডি মেকআপ বিশেষভাবে কার্যকরী।

মিনারেল মেকআপ

আপনার জীবনের অন্যতম সেরা দিনে যদি ত্বকের ক্ষতি না করে মেকআপ করতে চান, তবে এটি আপনার জন্য আদর্শ। অরগ্যানিক মিনারেল সমৃদ্ধ এই মেকআপ ত্বকে ন্যাচারাল লুক আনে। সংবেদনশীল, ব্রণ প্রবণ ত্বকের জন্য সবচেয়ে কার্যকরী মিনারেল মেকআপ। কেমিকাল ও প্রিজারভেটিভহীন মিনারেল মেকআপ স্কিনে আনে ন্যাচরাল গ্লো ও শিন, চড়া মেকআপের মতো কেকি লুক আসে না। বিয়ে বা রিসেপশনের দিন টানা ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা মেকআপ ত্বকে থেকে যায়, তাতে অনেকের ত্বকে র‌্যাশ বেরনোর প্রবণতা দেখা যায়। মিনারেল মেকআপ ব্যবহারে ত্বকের ক্ষতির সম্ভাবনা ক্ষীণ।

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং