২৭ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শনিবার ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রথমবার প্রেমে পড়া মানে বুক দুরুদুরু। লুকিয়ে প্রেম করলে তো আর কথাই নেই। দেখা করা মানেই চোখ সামনের দিক থেকে বেশি রাখতে হয় চতুর্দিকে। কেউ দেখে ফেলল না তো? প্রথমবার শারীরিক মিলনের সময়ও তাই। নার্ভাসনেসেই এনার্জি অনেকটা ফুরিয়ে যায়। অনেকে বলেছেন প্রথমবার মিলনের অভিজ্ঞতা খুব খারাপ, কেউ আবার বলছেন, খানিকটা ভয় আর খানিকটা ভাললাগা মিশিয়ে বেশ উপভোগ করেছেন তাঁরা।

প্রথম যৌনতার অভিজ্ঞতা নিয়ে বিশ্বজুড়ে অনেক বার অনেক রকমভাবে সমীক্ষা হয়েছে। তাতে প্রকাশ পেয়েছে অনেক চাঞ্চল্যকর তথ্য। তাতে জানা গিয়েছে, প্রথমবার যৌনতা নিয়ে একটা ছুঁৎমার্গ মেয়েদের মধ্যে রয়েছে। মেয়েরা মনে করে, প্রথমবার সেক্স করলে নাকি তীব্র যন্ত্রণা পোহাতে হয়। মেয়েদের আর একটা সমস্যা রয়েছে। মেয়েরা আগে থেকেই ভেবে নেয়, যার সঙ্গে সে শারীরিকভাবে মিলিত হবে, তার সঙ্গেই সে সারাজীবন কাটাবে। সমীক্ষা বলছে প্রথমবার শারীরিকভাবে মিলিত হওয়ার আগে এতকিছু মাথায় নিয়ে মিলিত হয় মেয়েরা। মেয়েদের এমন বদ্ধমূল ধারণার পিছনে কারণ যে নেই তা নয়। সমীক্ষাতেই উঠে এসেছে, কুমারীত্ব হারানো মানে সেই মেয়েটিকে ‘নষ্ট’ তকমা দেয় সমাজ। আর সেই কারণেই কোনও পুরুষের সঙ্গে মিলিত হওয়ার আগে পাঁচবার ভাবে মেয়েরা। অবশ্য এর ব্যতিক্রম যে নেই, তা নয়।

[ আরও পড়ুন: এবারের ভাইফোঁটা হোক পরিবেশবান্ধব, উপহারে থাকুক অভিনবত্বের ছোঁয়া ]

love

অন্যদিকে পুরষদের ক্ষেত্রে গোটা বিষয়টি একেবারে উলটো। সমীক্ষা বলছে, ভার্জিনিটি হারানোর জন্য মুখিয়ে বসে থাকে ছেলেরা। কারণ এই সমাজই ভার্জিনিটি হারালে ছেলেদের ‘মাচো’ আখ্যা দেয়। ছেলেদের কাছে তা বিরাট ব্যাপার। তাই তারা ভার্জিনিটি নিয়ে রাখঢাক করে না। পেনসিলভেনিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটির একটি সমীক্ষা বলছে, প্রথমবার মিলিত হওয়ার পর ছেলে ও মেয়েদের অনুভূতি হয় আলাদা। ছেলেদের মধ্যে এই সময় আত্মবিশ্বাস আর সন্তুষ্টি আসে। আর মেয়েরা ঠিক এর উলটোটা ভাবে। ছেলেরা ভাবে সেক্স করে তারা বিশাল কিছু পেয়ে গিয়েছে। নিজেদের ‘সেক্সি’ ভাবতে শুরু করে তারা। অন্যদিকে মেয়েরা ভাবে তাদের আকর্ষণ কমে গেল।

তবে এক্ষেত্রে সমীক্ষা থেকে কিছুটা ভিন্ন মত পোষণ করেন মনোবিদরা। তাঁদের মতে, প্রথমবার শারীরিক সম্পর্কের অভিজ্ঞতা ব্যক্তি বিশেষের উপর নির্ভর করে। প্রত্যেকের অনুভূতি এক হয় না। তা সে ছেলেই হোক বা মেয়েই হোক। সবাই আলাদা আলাদা ভাবে। এনিয়ে কোনও সিদ্ধান্তে আসা সম্ভব নয়।

[ আরও পড়ুন: ভারতীয় পুরুষই চাই! আবদার মার্কিন লাস্যময়ী প্লাস সাইজ মডেলের ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং