১১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  রবিবার ২৬ মে ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ দেশের রায় LIVE রাজ্যের ফলাফল LIVE বিধানসভা নির্বাচনের রায় মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রাচীন কাল থেকেই শিবলিঙ্গে শিবোপসনা প্রচলিত আছে৷ বিভিন্ন পূরাণ এবং তন্ত্রেও শিবপূজোকে সর্বশ্রেষ্ঠ বলে উল্লেখ করা হয়েছে৷ ভারত ভ্রমণকালে আদি শঙ্করাচার্য অগণিত শিবলিঙ্গ দেখেছিলেন৷ এর ভিতরে বারোটি শিবলিঙ্গকে  তিনি দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গরূপে চিহ্নিত করেছিলেন৷ এইসব জ্যোতির্লিঙ্গ দর্শনকে অতি পবিত্র বলে মানা হয়৷

দেখে নিন কোথায় আছে দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ—

কাশী বিশ্বনাথ— বেনারসের গঙ্গার তীরে দশ্বাশ্বমেধ ঘাট থেকে মাত্র কয়েক মিনিটের পথ পেরিয়ে বিশ্বনাথ মন্দির৷ ছোট্ট চৌবাচ্চার মধ্যে অবস্থান করছেন মহাদেব৷ মাঝারি আকারের শিবলিঙ্গ৷ কালো হলেও হালকা হলুদের আভা আছে৷ অত্যন্ত মসৃণ লিঙ্গ৷ এটি হল সর্বশ্রেষ্ঠ এবং প্রাচীনতম জ্যোতির্লিঙ্গ৷

কেদারনাথ— উত্তরাখণ্ডে ১১,৭৫৩ ফুট উঁচুতে বরফে ঢাকা কেদার পাহাড়ে মন্দাকিনী নদীর তীরে পঞ্চমুখী কেদারনাথ মহাদেবের অবস্থান৷ কালো পাথরের রূপহীন কেদারনাথ৷ দেববিগ্রহ আট ফুট লম্বা, তিন ফুট চওড়া৷ কুরুক্ষেত্র যুদ্ধের পর জ্ঞাতিবধজনিত পাপক্ষয় করতে পাণ্ডবরা এসেছিলেন এখানে৷

মল্লিকার্জুনস্বামী— হায়দরাবাদ থেকে ২১২ দূরে কুর্নুল জেলায় আটমাকুরে নাল্লাপর্বতে শ্রীশৈলম অবস্থান মল্লিকার্জুন শিব এবং তার ভৈরব ভ্রমরাম্বা৷ মন্দিরের পাশ দিয়ে বয়ে চলেছে কৃষ্ণা নদী৷ চারটি গোপুরম শোভিত মন্দিরটি নির্মিত হয় ১২৩০ সালে৷ সাধারণ গর্ভগৃহের তুলনায় বেশ ছোট৷ কুচকুচে কালো মসৃণ মাত্র ২৫-৩০ সেন্টিমিটার উঁচু শিবলিঙ্গ৷ মাথায় রূপোর নাগরাজ৷

jyotirlanga2

সোমনাথ— গুজরাতে আরব সাগরের তীরে অবস্থিত সোমনাথ মন্দির৷ পুরাণ মতে, বিশ্বসৃষ্টির সময় থেকেই এখানে বিরাজমান ভগবান শিব৷ এই শিবলিঙ্গের উল্লেখ আছে স্কন্দপূরাণে৷ মূল মন্দিরের দরজা রূপোর চাদরে মোড়া৷ গর্ভগৃহের মাঝখানে বিশাল শিবলিঙ্গ৷ এখানে স্পর্শ করা যায় না৷ ঢুকতে দেওয়া হয় না গর্ভগৃহে৷ দূর থেকে দেখতে হয় রাজবেশে থাকা মহাদেবকে৷

ভীমাশঙ্কর— মহারাষ্ট্রের সহ্যাদ্রি পাহাড়ে ভীমানদীর উৎসস্থলে অবস্থান ভীমাশঙ্কর৷ নাসিক থেকে ১১০ কিলোমিটার দূরে পাহাড় এবং জঙ্গলের মধ্যে এক সমতলভূমিতে সুপ্রাচীন মন্দির৷ ঘন গ্রানাইট পাথরের তৈরি বিশাল মন্দির৷ মাঝারি আকারের শিবলিঙ্গ৷

শ্রীনাগেশ্বর— আরব সাগরের তীরে গুজরাতের বেট দ্বারকায় অবস্থিত মহাতীর্থস্থান নাগেশ্বরধাম৷

নাগনাথ— মহারাষ্ট্রের বিড জেলায় হিঙ্গোলিতে পাহাড়ি জঙ্গল ঘেরা পারলি গ্রামে অবস্থান নাগনাথের৷ মূল মন্দিরটি গঠনশৈলি অসাধারণ৷ নাটমন্দিরের চৌহদ্দি পেরলেই গর্ভগৃহ৷ মন্দিরের সমতল থেকে প্রায় দশ ফুট তলায় গর্ভগৃহ৷ এখানে নেমে দর্শন করতে হয় নাগনাথ জ্যোতির্লিঙ্গকে৷

ঘৃষ্ণেশ্বর— ঔরঙ্গাবাদ থেকে মাত্র ৩০ কিলোমিটার দূরে বেরুল গ্রামেই আদি অনন্তকাল ধরে বিরাজমান ভগবান ঘৃষ্ণেশ্বর মহাদেব৷ পাহাড় এবং জঙ্গল ঘেরা টোপর আকৃতির মন্দিরে আছে ছোট্ট লিঙ্গটি৷

মহাকালেশ্বর— মধ্যপ্রদেশের উজ্জয়িনীতে শিপ্রা নদীর তীরে মহাকালেশ্বর মন্দির৷ মন্দিরের ঠিক মাঝখানে মহাকালেশ্বর জ্যোতির্লিঙ্গ৷ উচ্চতা প্রায় আড়াই ফুট৷ এখানকার শিব দক্ষিণামূর্তি৷

ত্র্যম্বকেশ্বর— মহারাষ্ট্রের নাসিক থেকে ২৮ কিলোমিটার দূরে ব্রহ্মগিরি পাহাড়ে অবস্থান৷ লিঙ্গের আকার বড় নয়, একেবারেই ছোট৷ লিঙ্গমূর্তির কাছে রয়েছে গোদাবরী নদীর উৎসস্থল৷ এই লিঙ্গমূর্তি তিন ভাগে বিভক্ত এবং অন্য শিবলিঙ্গের চেয়ে আলাদা৷

ওঙ্কারেশ্বর— মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর স্টেশন থেকে ৭৮ কিলোমিটার দূরে নর্মদা নদীর তীরে অবস্থান ওঙ্কারেশ্বর মহাদেব৷ পাঁচতলা মন্দিরের গর্ভগৃহে ছোট্ট শিবলিঙ্গ৷ সামান্য উচ্চতা৷ জাতিধর্ম নির্বিশেষে স্পর্শ করে পূজো দেওয়া যায়৷

রামেশ্বরম— তামিলনাড়ুর রামেশ্বরমে সমুদ্র তীরে কাছে অবস্থিত এই জ্যোতির্লিঙ্গ৷ অধিকাংশ সময় রাজরাজেশ্বর বেশে ঢাকা থাকেন মহাদেব৷ দর্শনার্থীদের কর্পূরের আলোয় দর্শন করতে হয়৷ গর্ভগৃহ প্রায় অন্ধকার৷ সোনার সিংহাসনে অবস্থান করেন রামনাথস্বামী৷ উচ্চতা একফুট৷ বিগ্রহকে এখানে স্পর্শ করা যায় না৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং