৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  গণেশের পর এবার পালা দেবাদিদেব মহাদেবের বাহন নন্দীর। পুরুলিয়া শহরের পুরাতন পুলিশ লাইনে এক প্রাচীন শিবমন্দিরে জল পান করল পাথরের ষাঁড়!  খবর চাউর হতেই শোরগোল পরে যায় এলাকায়। স্থানীয় বাসিন্দারা ঘটি, বাটি, ক্যানে জল আর দুধ নিয়ে সেই পাথরের ষাঁড়কে খাওয়াতে হুড়োহুড়ি শুরু করে দেন। এমনকি, এই ঘটনা পর ওই মন্দিরে বিশেষ পুজোরও আয়োজন করে ফেলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। বিষয়টি অবশ্য ‘অলৌকিক’ নয় বলে পুরুলিয়া বিজ্ঞান মঞ্চের।

[আরও পড়ুন: হলদিবাড়িতে উদ্ধার রহস্যজনক ধাতব জার, গ্রেপ্তার ২]

স্থানীয় বাসিন্দা তথা শিব ভক্ত রিয়া বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘শিবের বাহন পাথরের ষাঁড় নন্দী জল খাচ্ছে এই কথা শুনে মন্দিরে গিয়ে দেখি সত্যি সত্যি পাথরের তৈরি ষাঁড়ের মুখের কাছে জল নিয়ে গেলে তা নিমেষেই শেষ হয়ে যাচ্ছে।” ঘটনায় পরেই ওই শিব মন্দিরে ভক্তদের ঢল নামে। এই অলৌকিক ঘটনার সাক্ষী থাকতে এলাকার বাসিন্দা মন্দিরে গিয়ে ভিড় জমান। যদিও এই ঘটনাকে অলৌকিক বলে মানতে নারাজ পুরুলিয়া বিজ্ঞান মঞ্চ। ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন বিজ্ঞান মঞ্চের পুরুলিয়া শাখার সম্পাদক নয়ন মুখোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “এটি কোনও অলৌকিক ঘটনা নয়, নিছক বিজ্ঞান। শূন্যতা পূরণ করছে জল। পাথরের শিরায় সুক্ষ্ম সুক্ষ্ম প্রচুর ছিদ্র থাকে। এই ছিদ্রগুলি একে অন্যের সঙ্গে কোনও না কোনওভাবে যুক্ত। যা জলের কাছে আসতেই সেই জল ওই ছিদ্র দিয়ে অন্য ছিদ্রে চলে যায়। কারণ, ছিদ্রগুলির শূন্যতা তখন পূরণ করে ওই জল। ফলে বিষয়টির মধ্যে কোনও অলৌকিকতা নেই। পুরোটাই নিছক বিজ্ঞান। আমাদের সদস্যরা মন্দিরের আসা সমস্ত ভক্তদের তা বোঝানো চেষ্টা করে। তাঁরা বিজ্ঞানটি বোঝার পর আস্তে আস্তে যে যাঁর নিজের ঘরে ফিরে যান।’ পুলিশ ঘটনার দিকে নজর রেখেছিল বলে দাবি করেছেন বিজ্ঞান মঞ্চের সদস্যরা।

ছবি: সুনীতা সিং

[আরও পড়ুন: মমতাময়ী! জবা বাগানে ফেলে যাওয়া নবজাতকের প্রাণ বাঁচালেন মহিলা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং