১০ মাঘ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

দিব্যেন্দু মজুমদার, হুগলি: শ্রীরামপুর বড়বাগানের তিন বছরের জয়দ্রথ দাস এখন সারা শ্রীরামপুরবাসীর কাছে বিস্ময়। এই বয়সে জয়দ্রথের স্মৃতিশক্তি দেখে অবাক এলাকার সকলেই। বুলি ফুটতে না ফুটতেই দেশ-বিদেশের রাজধানী থেকে শুরু করে রাষ্ট্রপ্রধান, ভৌগলিক অবস্থান, স্বাধীনতা দিবস সবই মুখস্থ খুদের। যে বয়সে খেলনা নিয়েই মেতে থাকার কথা সেই বয়সে যে কোনও কথা একবার শুনেই মনে রাখতে পারে জয়দ্রথ। সাড়ে তিন বছরের খুদের স্মৃতিশক্তি অবাক করছে সকলকে।

জয়দ্রথের বাবা শিবাশিস দাস জানান, খুদের যখন মাত্র ২ বছর বয়স সেই সময় খেলার সময় তিনি জয়দ্রথকে জিজ্ঞেস করেছিলেন ভারতের রাষ্ট্রপতির নাম কী? খুদে জবাবে স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, সে জানে না। এরপর শিবাশিসবাবুই ছেলে রাষ্ট্রপতির নাম বলেন। পরের দিন ফের ছেলের কাছে রাষ্ট্রপতির নাম জিজ্ঞেস করতেই অবাক হয়ে যান শিবাশিসবাবু। মুহূর্ত বিলম্ব না করেই রাষ্ট্রপতির নাম বলে দেয় সে। এরপরই থেকেই খেলার ছলেই ছেলেকে সবকিছু শেখাতে শুরু করেন শিবাশিসবাবু ও তাঁর স্ত্রী।

[আরও পড়ুন: স্ত্রীকে ভোট দিতে সাহায্য, কালিয়াগঞ্জের বিজেপি প্রার্থীকে শোকজ নোটিস পাঠাল কমিশন]

বর্তমানে সাড়ে তিন বছর বয়স জয়দ্রথের। ইতিমধ্যেই শুধু দেশের রাজধানী নয়, বিজ্ঞানীদের নাম, আবিষ্কার, ক্রিকেট, ফুটবল-সহ বিভিন্ন খেলা সম্পর্কিত তথ্য থেকে শুরু করে স্বামী বিবেকানন্দের শিকাগো ধর্ম সম্মেলন সব কিছুই ঠোঁটের ডগায় খুদের। যে কোনও প্রশ্ন করতেই চটজলদি উত্তর বাতলে দেয় সে। জয়দ্রথের মা জয়তী দাস জানান, যে কোনেও গান বা কবিতা একবার শুনলেই খুব সহজেই তা রপ্ত করে নিতে পারে। এখন তাঁর একটাই প্রার্থনা পড়াশুনার ক্ষেত্রেও যেন এই ক্ষমতাকে কাজে লাগায় জয়দ্রথ। পাশাপাশি দাস দম্পতি চান, সন্তান যেন সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে ভাল মানুষ হয়। প্রতিবেশীদেরও একই কামনা, জয়দ্রথ যেন জীবনযুদ্ধে জয়ী হয়।

[আরও পড়ুন: বিধানসভা উপনির্বাচন LIVE: নির্বাচনী বিধিভঙ্গে কালিয়াগঞ্জের বিজেপি প্রার্থীকে শোকজ কমিশনের]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং