৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  বুধবার ২২ মে ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মানুষজনকে বোকা বানানোর কতই না কৌশল! তা’বলে এক চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের কৌশলের কাছে হার মেনে যাবেন চিনের মতো দেশের লোকজন! শুনতে অবাক হলেও, বাস্তবে এমনটাই ঘটেছে৷

চিনের উহান প্রদেশে জিউফেং ফরেস্ট জু৷ জঙ্গলের মাঝে চিড়িয়াখানা৷ কোনও প্রাণী এমনিই ঘুরে বেড়ায়, আবার কেউ কেউ খাঁচায় বন্দি৷ বড়সড় এলাকাজুড়ে চিড়িয়াখানা দেখতে মানুষের ভিড় কম হয় না৷ আর সেই সুযোগ কাজে লাগিয়েই ফন্দি এঁটেছে কর্তৃপক্ষ৷ ব্যাপারটা কেমন? জঙ্গলে পর্যটকরা ঘুরে ঘুরে দেখছেন পশুপাখিদের৷ একটা খাঁচার সামনে লেখা নজরে পড়ল – ‘উলফ’৷ উৎসাহী জনগণ সেদিকে ছুটলেন৷ হিংস্র নেকড়ে বাঘ দেখবেন বলে৷ কিন্তু নেকড়ের খাঁচার সামনে গিয়ে যা চোখে পড়ল, তা আর কিছুই না, স্রেফ একটা, দুটো কুকুর৷ এভাবে বেশ কয়েকদিন গিয়ে বেকুব বনেছেন অনেকেই৷ যতবাই ‘উলফ’ লেখার টানে খাঁচার ছুটে যান পর্যটকরা, ততবারই তাঁদের হতাশ করে কুকুরদের ঘোরাফেরা৷

[আরও পড়ুন: যুবকের কানের ভিতর জাল বুনছে মাকড়সা! ভিডিও দেখে তাজ্জব নেটদুনিয়া]

কিন্তু নেকড়ের খাঁচায় কুকুরই বা ছেড়ে রাখা হয়েছে কেন? শুধুই কি নেকড়ের অভাবে মানুষজনকে বোকা বানিয়ে চিড়িয়াখানায়া টানতে? নাকি অন্য কোনও উদ্দেশ্য আছে? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে বসেন পর্যটকরা৷ চিড়িয়াখানার এক কর্মী জানান, খাঁচাটি নেকড়ের এবং খাঁচার ভিতরে যে আছে৷ তার সঙ্গী কুকুর৷ নেকড়েটি অত্যন্ত মেজাজি ছিল৷ একা থাকার ফলে তার হিংস্রতা আরও বাড়তে থাকে৷ তাই দুটি কুকুরছানাকে তার সঙ্গী হিসেবে খাঁচায় রাখা হয়৷ তাদের একটির সঙ্গে সখ্য বাড়তে থাকে৷ নেকড়েটিকে ঘুমের সময় তাই ওই কুকুরগুলোই পাহারা দেয়৷ তাহলে যখনই পর্যটকরা দেখতে যায়, তখনই কি ঘুমিয়ে থাকে নেকড়ে? তাও তো হতে পারে না৷

[আরও পড়ুন: ভারতের প্রচেষ্টায় জল, মেহুল চোকসিকে গ্রেপ্তার করবে না অ্যান্টিগা়]

অনেকেই বলছেন, চিনের কয়েকটি চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ এভাবেই দিনের পর দিন মানুষ ঠকাচ্ছেন৷ ২০১৭ সালেও একটি চিড়িয়াখানায় জোড়া পেঙ্গুইনের বদলে পুতুল পেঙ্গুইন রাখা হয়েছিল৷ তা নিয়ে বেশ উত্তেজনা তৈরি হয় সেসময়৷ সেই ঘটনা থেকেও শিক্ষা নেয়নি জিউফেং ফরেস্ট জু কর্তৃপক্ষ৷ নাহলে লোক ঠকানোর এই ব্যবসা তাঁরা কীভাবে চালিয়ে যাচ্ছে?

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং