BREAKING NEWS

১৪ কার্তিক  ১৪২৭  শনিবার ৩১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

আই লিগ চ্যাম্পিয়ন মোহনবাগানকে শুভেচ্ছা মোদি–মমতার, টুইট কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রীরও

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: October 18, 2020 7:04 pm|    Updated: October 18, 2020 8:04 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রতীক্ষার অবসান। অবশেষে এল সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। ২০১৯-২০ আই লিগ (I League) ট্রফি উঠল মোহনবাগানের হাতে। বাইপাসের ধারে একটি পাঁচতারা হোটেলে আই লিগ সিইও সুনন্দ ধরের উপস্থিতিতে মোহনবাগানের হাতে ট্রফি তুলে দিলেন রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আইএফএ সচিব জয়দীপ মুখোপাধ্যায় এবং মোহনবাগানের শীর্ষকর্তারা। আর ঐতিহাসিক এই দিনে শুভেচ্ছাবার্তা এল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছ থেকে।

শুভেচ্ছাবার্তায় মমতা (Mamata Banerjee) লেখেন, ‘‌‘‌মোহনবাগানকে আই লিগ জয়ের জন্য অসংখ্য অভিনন্দন। সবুজ–মেরুন ব্রিগেড অসাধারণ মাইলস্টোন স্পর্শ করেছে। আইএসএল অভিযানের জন্য তাঁদের অনেক শুভেচ্ছা।’‌’ এরপর এদিন সন্ধ্যায় টুইট করে শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও (Narendra Modi)। লেখেন, ‘‌‘‌আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য মোহনবাগান খেলোয়াড়, সাপোর্ট স্টাফ, সভ্য–সমর্থকদের অসংখ্য অভিনন্দন। এটা খুবই আনন্দের দিন।’‌’ এরপর টুইট করেন কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী ‌কিরেন রিজিজুও।

[আরও পড়ুন:‌ ‘‌আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছে?’ কুম্বলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে কটাক্ষের শিকার কোহলি]

‌‌ তবে দু’‌জনের এই টুইট নিয়ে কেউ কেউ কিন্তু রাজনীতির গন্ধও পাচ্ছেন। কারণ সামনেই বাংলার বিধানসভা নির্বাচন। তাই কী মুখ্যমন্ত্রীর পর প্রধানমন্ত্রীরও টুইট? সোশ্যাল মিডিয়ায় কিন্তু এমন প্রশ্নও তোলেন অনেকে।

[আরও পড়ুন:‌ শিলিগুড়িতে চাই আন্তর্জাতিক মানের ক্রিকেট স্টেডিয়াম, আন্দোলনে শামিল ক্রিকেটপ্রেমীরা]

এদিকে, পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী, বাইপাসের পাঁচতারা হোটেল থেকে আই লিগ ট্রফি নিয়ে বিশাল রোড শো আয়োজন করা হয়। হায়াত থেকে বাইপাস, কাদাপাড়া, উল্টোডাঙা, খান্না হয়ে ট্রফি পৌঁছায় ক্লাব তাঁবুতে। কয়েক হাজার মোহনবাগান সমর্থক ট্রফি নিয়ে ওই মিছিলে শামিল হন।

অন্যদিকে, বর্ধমানের হৃদয়ও আজ সবুজ-মেরুন। রবিবার সন্ধ্যায় শহরের প্রাণকেন্দ্রে থাকা ঐতিহাসিক কার্জন গেট বা বিজয় তোরণও সবুজ-মেরুন আলোকমালায় সেজে ওঠে। পথচলতি মানুষজন থমকে দাঁড়িয়েছেন। ঐতিহাসিক তোরণে নতুন রঙের ছটায় আপ্লুত হয়েছেন অনেকেই। আবেগে ভেসেছেন স্থানীয় বাগান সমর্থকরাও।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement