২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

রুদ্ধশ্বাস মিনি ডার্বিতে আটকে গেল লাল-হলুদ বিজয়রথ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: September 16, 2017 11:22 am|    Updated: September 16, 2017 11:33 am

CFL: East Bengal-Mohammedan Sporting match ends in a draw

ইস্টবেঙ্গল- ২ (আমনা, প্লাজা)

মহামেডান- ২ (জিতেন, ডিকা)

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাস ডেস্ক: রক্ষণের ভুলে মোহনবাগানের বিরুদ্ধে শেষ মিনিটে গোল খেয়ে ম্যাচ হেরেছিল মহামেডান। কিন্তু ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে সেই ভুল আর নয়। কলকাতা লিগের দ্বিতীয় মিনি ডার্বিতে দুরন্ত খেলে অপ্রতিরোধ্য লাল-হলুদকে রুখে দিল সাদা-কালো ব্রিগেড। খেলা শেষ হল ২-২ গোলে। মূলত রক্ষণের ভুলেই এদিন পয়েন্ট নষ্ট করল ইস্টবেঙ্গল। লাল হলুদের হয়ে গোল আল আমনা এবং উইলিস প্লাজার। উলটোদিকে মহামেডানের হয়ে গোল জিতেন মূর্মূ এবং ডিপান্ডা ডিকার। এই নিয়ে চলতি লিগে ১১ গোল হয়ে গেল ডিকার।

[প্রাক্তন অধিনায়ক ধোনিকে এ কী বললেন পাক ক্রিকেটার শোয়েব মালিক?]

ম্যাচের শুরু থেকেই ধারেভারে শক্তিশালী ইস্টবেঙ্গলকে সমানে সমানে টক্কর দিতে থাকে মহামেডান। মূলত দু’দলের দুই কোচ খালিদ জামিল এবং বিশ্বজিৎ ভট্টাচার্যের স্ট্র্যাটেজির লড়াই ছিল। কিন্তু প্রথম থেকেই আই লিগ জয়ী কোচকে বরাবরই টক্কর দিতে থাকেন তিনি। যদিও ম্যাচের প্রথম গোলটি আসে ইস্টবেঙ্গলের পক্ষ থেকে। মাত্র ২ মিনিটেই রফিকের ফ্রিকিক মহামেডান রক্ষণ থেকে ফিরে আসলে বক্সের ভিতর থেকেই চলমান বলে দুরন্ত শট নেন আল আমনা। তাঁর দুরন্ত ভলি রুখতে ব্যর্থ হয় মহামেডান গোলরক্ষক। কিন্তু গোল খাওয়ার পরেই খেলায় ফেরে মহামেডান। পালটা আক্রমণে চাপ বাড়াতে থাকে ইস্টবেঙ্গল রক্ষণে। আর তারই ফসল ২৭ মিনিটে জিতেনের গোল। কালু ওগবা-র পাস থেকে লাল-হলুদ ডিফেন্সের ভুলে দুরন্ত গোল করেন তিনি। যদিও এরপর খালিদ জামিলের ছেলেরা গোল করার সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু ভাগ্যের পরিহাসে বল বারে লেগে ফিরে আসে। ফলে প্রথমার্ধের খেলা শেষ হয় ১-১ গোলেই।

[বিরাটদের মতো জানুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে মিতালিরা]

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল করার মতো পরিস্থিতি তৈরি করেছিলেন ইস্টবেঙ্গলের বিদেশি ফুটবলার উইলিস প্লাজা। কিন্তু একক প্রয়াসে মহামেডান রক্ষণকে বোকা বানিয়ে গোল করার মতো জায়গায় পৌঁছালেও তাঁর শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। উলটোদিকে, জিতেন-ডিপান্ডা ডিকার যুগলবন্দিতে দ্বিতীয় গোলটি পেয়ে যায় মহামেডান। ৬৭ মিনিটে জিতেনের পাস থেকে দুরন্ত গোল করে ডিকা। এই নিয়ে লিগে ১১ নম্বর গোলটি করে ফেললেন তিনি। এরপরই পরপর দু’বার সহজ গোলের সুযোগ নষ্ট করে মহামেডান। এই সহজ সুযোগ নষ্ট না করলে খেলা সেখানেই শেষ হয়ে যেত। সবাই যখন ভাবছে ইস্টবেঙ্গল ম্যাচটি হেরে যাবে, তখনই লাল-হলুদকে খেলায় ফেরান উইলিস প্লাজা। দুরন্ত গোল করে ইস্টবেঙ্গলের হার বাঁচান তিনি। এদিন আমনার খেলা যদি ইস্টবেঙ্গলের কাছে স্বস্তির খবর হয়, তাহলে অবশ্যই চিন্তায় রাখবে ইস্টবেঙ্গলের ডিফেন্স। আগের ম্যাচগুলির মতোই এদিনও গোটা মাঠে ফুল ফোটালেন আমনা। তেমনই আবার লাল-হলুদের রক্ষণের এদিনের খেলা মোহন সমর্থকদের মুখে হাসি ফোটাবে। কারণ তাঁদের দুই বিদেশি কামো এবং ক্রোমা রয়েছেন দুরন্ত ফর্মে।

এই ম্যাচ ড্র করায় পয়েন্ট টেবলে সমানে সমানে চলে আসল দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইস্টবেঙ্গল ও মোহনবাগান। দু’দলেরই পয়েন্ট ৭ ম্যাচে ১৯। তাই বলাই যায়, আগামী ডার্বিতেই হয়তো ফয়শালা হবে চলতি কলকাতা লিগের।

[জানেন, ধোনির বিশ্বকাপ খেলা নিয়ে কী বললেন রবি শাস্ত্রী?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে