৩১ আষাঢ়  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কাকতালীয়! না গল্প হলেও সত্যির মতো ব্যাপার। ১৯৯২ বিশ্বকাপ যে ফরম্যাটে খেলা হয়েছিল সেই একই ফরম্যাটে হচ্ছে এবারের চলতি ক্রিকেট বিশ্বকাপ। এবং সেই বিশ্বকাপের স্মৃতি ফিরে আসছে বারবার। যেমন ভারত বনাম পাকিস্তান ম্যাচ। যা ক্রিকেট ভক্তদের নিয়ে গেল ১৯৯২-এর সেমিফাইনালে। যেখানে মুখোমুখি হয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা ও ইংল্যান্ড। দুর্ভাগ্যের শিকার হতে হয় দক্ষিণ আফ্রিকাকে।

[আরও পড়ুন: ম্যাচের আগের রাতে পাক দলের সঙ্গে পার্টি! সমর্থকদের রোষের মুখে সানিয়া]

সেবার এই ডাকওয়ার্থ লুইস নিয়মের জন্যেই এক বলে ২২ রান করতে হত দক্ষিণ আফ্রিকাকে। এই নিয়ম ১৯৯২ বিশ্বকাপেই প্রথম ব্যবহার করা হয়েছিল। দক্ষিণ আফ্রিকার সেই হার ক্রিকেট ইতিহাসে বরাবরের মতো জায়গা করে নিয়েছে। কিন্তু সেই ঘটনাই যেন ফিরল ম্যাঞ্চেস্টারে।
ভারত-পাক ম্যাচে বৃষ্টির পূর্বাভাস আগে থেকেই ছিল। এবং ম্যাচের দিন যে বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টি হতে পারে সেই কথাও জানিয়েছিল ওয়েদার রিপোর্ট। টসে জিতে আগে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় পাকিস্তান। পরে তারা যখন ভারতের বিশাল রান তাড়া করতে নেমেছিল শুরুটা খারাপ হয়নি। কিন্তু তারপরেই ধস নামে ব্যাটং লাইন আপে। মাঝে বৃষ্টির জন্য ম্যাচ বন্ধও থাকে। সেই সময় ডাকওয়ার্থ লুইসের নিয়ম ব্যবহার করেন আম্পায়াররা। ততক্ষণে পাকিস্তান ৩৫ ওভার খেলে ফেলেছে। এবং নতুন নিয়মে তাদের কাছে যে টার্গেট দাঁড়ায় তাতে মাত্র পাঁচ ওভারে ১৩৬ রান করতে হত। যা অসম্ভব।

[আরও পড়ুন: পাকিস্তানের কোচ হতে চান রোহিত! সাংবাদিক বৈঠকে এ কী বললেন হিটম্যান?]

বিবিসির ক্রিকেট করেসপন্ডেন্ট জোনাথান অ্যাগনিউ জানিয়েছেন, “ক্রিকেট খেলাটা কখনও কখনও যে কতটা নির্দয় হতে পারে সেটা আবার প্রমাণ হয়ে গেল। ক্রিকেট ইতিহাসে কলঙ্কিত সেরা পাঁচ অধ্যায়ের মধ্যে এটাও থাকবে।” প্রাক্তন ইংল্যান্ড স্পিনার গ্রেম সোয়ান জানিয়েছেন, “ওভার প্রতি ২৮-এর বেশি রান করতে হত। এটা কী কখনও সম্ভব? তাও বিশ্বকাপের মতো মঞ্চে? এটা কি মজা হচ্ছে? সবাই এরপর হাসাহাসি শুরু করবে।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং