×

৫ ফাল্গুন  ১৪২৫  সোমবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নিউজলেটার

৫ ফাল্গুন  ১৪২৫  সোমবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

BREAKING NEWS

শুভজিৎ মণ্ডল: ডার্বি মানেই উত্তেজনাময় ময়দান। ডার্বি মানেই ইলিশ চিংড়ির লড়াই। কিন্তু এবারের ডার্বি এক ইতিহাসের সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে আছে। কারণ, সম্ভবত এটাই আই লিগে দুই প্রধানের শেষ ডার্বি হতে চলেছে। আগামী মরশুমেই আইএসএলে নাম লেখাতে চলেছে দুই প্রধান। তাই ইস্টবেঙ্গল এবং মোহনবাগানের জন্য এই ডার্বি বেশ গুরুত্বপূর্ণ। তবে, লাল হলুদের জন্য এই ম্যাচ কিছুটা হলেও বেশি তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ, ডার্বিতে তিন পয়েন্ট না পেলে ১৬ বছরের আই লিগ জয়ের অপেক্ষা আরও দীর্ঘায়িত হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কারণ ডার্বি না জিততে পারলে লিগ জয়ের লড়াই থেকে কার্যত ছিটকে  যাবেন জবি জাস্টিনরা। তাই দৃঢ়প্রতিজ্ঞ লাল হলুদ শিবির। কোচ আলেজান্দ্রো কোনওভাবেই ফুটবলারদের মনোসংযোগে ব্যাঘাত ঘটুক তা চাইছেন না। তিনি চাইছেন মাঠের বাইরের উত্তাপ থেকে ফুটবলারদের দূরে রাখতে।

[বিবাহে বিলম্ব ‘ফুটবলপ্রেমী’ পাত্রের, পিঁড়িতে বসে ফুঁসলেন পাত্রী]

কিন্তু যেহেতু ডার্বি, উত্তাপের আঁচ গণগণে না হলেও, উষ্ণতা তো ছড়াবেই। তেমনটাই শনিবার হল যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে। এদিন সাতসকালেই যুবভারতীর প্রাক্টিস গ্রাউন্ডে অনুশীলন রেখেছিলেন কোচ আলেজান্দ্রো। তবে পর্দার আড়ালে নয়, খোলামাঠেই অনুশীলন করে ইস্টবেঙ্গল। শুধু সংবাদমাধ্যম প্রবেশের অনুমতি ছিল মাত্র ১৫ মিনিট। আসলে সদ্য ফিট হয়ে দলে এসেছেন এনরিকে। মরশুমের শুরুর দিকে কয়েকটা ম্যাচ খেললেও প্রথম ডার্বি তিনি দেখেছে স্টেডিয়ামে বসেই। তাঁর সম্পর্কে কোনও ধারণাই নেই সবুজ মেরুন শিবিরের। আলেজান্দ্রো চাইছেন ডার্বির আগে এনরিকেকে আড়াল করে রাখতে। যাতে কোনওভাবেই তাঁর বিরুদ্ধে রণকৌশল ঠিক করতে না পারে মোহনবাগান। এদিন অনুশীলনে আরও একবার খেলোয়াড়দের ফিটনেসের উপর বিশেষ জোর দেন কোচ। মূলত ফিজিক্যাল ট্রেনিং এবং শেষে কিছুক্ষণ ম্যাচ সিচুয়েশনে অনুশীলন করেন ফুটবলাররা। অনুশীলনেই বেশ ক্ষীপ্রতা দেখিয়েছেন তাঁরা। অনেকটা রেডি টু গো-মানসিকতা।

[ডার্বি দেখবে অনাথ শিশুরাও, অভিনব উদ্যোগ মোহনবাগানের]

একে ছুটির দিন তার উপরে যুবভারতীতে অনুশীলন, তাই অন্যাবারের তুলনায় অনুশীলনে কিছুটা কম ছিল সমর্থক সংখ্যা। তবে, লাল হলুদের যে গুটিকয়েক সমর্থক প্রিয় দলের অনুশীলন দেখতে গিয়েছিলেন তারাই গোটা দলকে মাতিয়ে রাখলেন নানারকম গান এবং স্লোগানে। তাদের বক্তব্য, গোলের সংখ্য়া যাই হোক, ম্যাচ জিতবে ইস্টবেঙ্গলই। প্রিয় দলের জন্য দক্ষিণেশ্বরে পুজো দিয়ে প্রসাদও এনেছিলেন জনৈক সমর্থক। ফুটবলারদের মুখে সেই প্রসাদ তুলে দিয়ে প্রার্থনা করলেন, যেভাবেই হোক চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীকে হারাতেই হবে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং