×

৪ চৈত্র  ১৪২৫  বুধবার ২০ মার্চ ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও #IPL12 বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একদিকে বাড়তি উদ্দীপনা। তো অন্য দিকে অসম্ভব চাপ। এই দুই মেরুকরণের মাঝে এখন দাঁড়িয়ে ইস্টবেঙ্গল। আজ রবিবার পাঞ্জাব মিনার্ভার সঙ্গে লড়াই। ট্র্যাপিজের সরু দড়ির উপর দাঁড়ানো লাল-হলুদের পদস্খলন মানেই আই লিগ জেতার যাবতীয় আশা শেষ। জিততেই হবে। ড্র-তেও চলবে না আলেজান্দ্রোর দলের। তাতেও রবিবারই চ্যাম্পিয়ন হয়ে যাবে চেন্নাই সিটি। গত মরশুমে উইলিস প্লাজাকে একপ্রকার তাড়িয়ে দিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। সেই প্লাজাই শুক্রবার থেকে অগণিত ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের মনে নতুন করে স্বপ্ন দেখাতে শুরু করেছেন। তাঁর জোড়া গোলের ধাক্কায় হারতে হয় চেন্নাইকে। কিন্তু রবিবার আবার আরেক ইস্টবেঙ্গল-ব্রাত্য লাল-হলুদেরই চূড়ান্ত স্বপ্নভঙ্গ ঘটাবেন না তো? যাঁর নাম আল আমনা!

গতবারের চ্যাম্পিয়ন মিনার্ভা এবার মোটেই ভাল ফর্মে নেই। আগের ম্যাচে নেরোকাকে হারিয়ে দমবন্ধ করা পরিস্থিতি থেকে আপাতত একটু বেরিয়ে এসেছে, এটুকুই। তাই ঘরের মাঠে মিনার্ভার লক্ষ্য থাকবে একটাই, কমপক্ষে এক পয়েন্ট। এবং পুরনো দলের বিরদ্ধে আমনাই পারেন সেই লক্ষ্যে তাঁর নতুন টিমকে পৌঁছে দিতে।

[ধোনি-কেদার জুটিতে ধরাশায়ী অস্ট্রেলিয়া, দুরন্ত জয় ভারতের]

আইজল ম্যাচে থুতু দেওয়ার অপরাধে ইস্টবেঙ্গলের এ মরশুমের অন্যতম ভরসা জবি জাস্টিন এই ম্যাচেও নেই। তাই আজ মরণবাঁচন লড়াইয়ে জিততে হলে সেই এনরিকে-কোলাডো কম্বিনেশনের উপর নির্ভর করা ছাড়া উপায় নেই লাল-হলুদ কোচ আলেজান্দ্রোর। দু’দিন আগে ইস্টবেঙ্গলের কাশ্মীর জয়ের মূল কারিগর ছিলেন দু’জনই। কিন্তু একইসঙ্গে দিল্লির নেহরু স্টেডিয়াম দেখেছিল শেষ আধঘণ্টা দশজনে খেলা রিয়াল কাশ্মীরেরও কী দাপট! তার উপর সাত দিনের মধ্যে তিনটে ম্যাচ খেলতে নামছে আলেজান্দ্রো বাহিনী। সমান হারে চাপের মাত্রা আকাশচুম্বী হয়ে উঠেছে। এই জায়গাতেই আঘাত হানতে চাইছে পাঞ্জাব মিনার্ভা। দলের কোচ শচীন বাদাধে বলেই দিয়েছেন, “চাপে রয়েছে ইস্টবেঙ্গলই। তাই আমরা ভাল রেজাল্টের আশায় আছি। চাপে পড়েই চার্চিলের কাছে হেরেছে চেন্নাই। একই পরিস্থিতির সামনে দাঁড়িয়ে ইস্টবেঙ্গল। ওরাও ভাল মতো জানে এক পয়েন্টও নষ্ট মানেই আই লিগ জেতার আশা শেষ। সাত দিনের মধ্যে তিনটে ম্যাচও খেলছে ওরা। দলটা হয়তো ক্লান্ত থাকবে।”

আলোজান্দ্রোও দলের ক্লান্তি নিয়ে চিন্তিত। ইস্টবেঙ্গল কোচ বলছেন, “আমরা এখন ভাল খেলছি। প্রত্য়েক ম্যাচে আগের দিনের চেয়ে পারফরম্যান্সের উন্নতি ঘটছে। তবে এটাও ঠিক, সাত দিনের মধ্য়ে তিনটে ম্যাচ খেললে সব সময় ভাল পারফরম্যান্স করা যায় না। আমাদের সামনে এখন একটাই পথ খোলা, বাকি দু’টো ম্যাচ জেতা। সেই লক্ষ্য়েই প্রথমে রবিবার সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপাবে ইস্টবেঙ্গল।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং