১ মাঘ  ১৪২৫  বুধবার ১৬ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

স্টাফ রিপোর্টার: বছরের এই সময়ে খুব টেনশনে থাকেন বিভিন্ন অফিসের সেলস দপ্তরের কর্মীরা। আর্থিক বছরের শেষ কোয়ার্টারে তাঁদের সামনে ঝোলে টার্গেট। শেষ তিন মাসে সেই অঙ্ক পূরণ করতে মাথার ঘাম পায়ে ফেলার অবস্থা হয়। রিয়াল কাশ্মীর ম্যাচের আগে অনেকটা এমনই অবস্থা মোহনবাগান ফুটবলারদেরও। তা্ঁদের  ‘টার্গেট’ও ঠিক করে দিয়েছেন মোহনবাগান কোচ শংকরলাল চক্রবর্তী। এই ম্যাচ থেকে তিন পয়েন্ট চাই-চাই।

আলভিটোকে নিয়ে সংঘাত কোয়েস এবং ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের]

লক্ষ্যপূরণের জন্য একদিকে যেমন তিন পয়েন্টের কথা বলছেন শঙ্করলাল, তেমনই তাঁর মাথায় থাকছে স্পোর্টিং স্পিরিট বজায় রাখার বিষয়টিও। তবে এর পাশাপাশি দলে বেশ কিছু পরিবর্তনও আনতে চলেছেন বাগান কোচ। প্র্যাকটিসের সময় চোটের জায়গায় ব্যথা লাগছে শংকর রায়ের, তিনি প্রথম এগারোয় থাকছেন না।বদলে অভিজ্ঞ শিল্টনের উপরই ভরসা রাখছেন বাগান কোচ। আবার ফিট হয়ে যাওয়ায় দলের সেরা অস্ত্র সোনি নর্ডিকে শুরুতে থেকে খেলানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। সঙ্গে থাকবেন ওমরও। শেষ কয়েকটি ম্যাচে ওমরের দুরন্ত পারফরম্যান্সের জন্য তাঁকে বসাতে চাইছেন না শংকর,  এক স্ট্রাইকারে ফিরে যাচ্ছে তিনি। ফর্মের কথা মাথায় রেখে ডিকাকে টেক্কা দিয়ে শুরু করতে পারেন হেনরি। অনূর্ধ্ব ২২ কোটায় শুরু করবেন নতুন রিক্রুট রাইট উইঙ্গার জোয়াভা। কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী বলেছেন, “কাশ্মীরের আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে। তবে প্রতিপক্ষই যেই হোক,  নিজেদের ভুলত্রুটি ও অন্য সব ফ্যাক্টরকে জয় করে রবিবার আমার পুরো পয়েন্ট চাই।” বস্তুত, আই লিগের বাকি ১০টি ম্যাচে  সর্বাধিক পয়েন্ট ছিনিয়ে চ্যাম্পিয়নশিপে ফেরার লক্ষ্য মোহনবাগানে। এই লড়াইয়ে নিজেরা নিজেদের যতটা তৈরি করছেন শিল্টনরা, ঠিক ততটাই তাঁদের সাহায্য করে গেলেন রিয়াল কাশ্মীর কোচ ডেভিড রবার্টসন।

তুষারপাতের জন্য কাশ্মীরের দল এখন ‘ভারতভ্রমণে’। কোঝিকোড়ে, চেন্নাই ও কলকাতায় ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচেই অপরাজিত তারা। লিগের ফার্স্ট বয় চেন্নাইকেও হারিয়ে দিয়েছে রিয়াল কাশ্মীর। ফলে তাদের আত্মবিশ্বাস এখন সপ্তম স্বর্গে। আর দলের ধারাবাহিক জয়েই হয়তো অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসী হয়ে পড়েছেন ডেভিড। নাহলে কোনও বুদ্ধিমান কোচ সোনিকে হেলাফেলা করতে পারেন? আগেই বলেছিলেন, সোনিকে নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করা হয়। শনিবার সাংবাদিক সম্মেলনে ফের বললেন , “ফুটবল এগারোজনের খেলা। সোনি ভাল ফুটবলার, তবে ওর থেকে বেশি চিন্তা মিশরের (ওমর) ফুটবলারকে নিয়ে। সত্যি কথা বলতে কী সোনি খেললে আমাদের সুবিধাই হবে।” কথাটি গিয়ে পৌঁছে গিয়েছে সোনির কানেও। শুনে যেন একটু অবাকই হলেন। মুচকি হেসে গাড়ির গেট খোলার সময় চোখ টিপে বলে গেলেন, “ওঁর সঙ্গে কাল মাঠে দেখা হবে।”

[ মোহনবাগানের স্পনসর কি স্যামসং? বিজ্ঞপ্তি দিয়ে স্পষ্ট করল ক্লাব]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং