BREAKING NEWS

২৩ চৈত্র  ১৪২৬  সোমবার ৬ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

ডার্বি জিতেও চিন্তায় কিবু, ফুটবলারদের আত্মতুষ্টি ভাবাচ্ছে মোহনবাগান কোচকে

Published by: Sulaya Singha |    Posted: January 19, 2020 9:37 pm|    Updated: January 19, 2020 9:37 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দল ডার্বি জিতেছে। সমর্থকদের প্রত্যাশাও পূরণ হয়েছে। চ্যাম্পিয়নশিপের দৌড়ে আরও খানিকটা এগিয়েও গিয়েছে মোহনবাগান (Mohun Bagan)। কিন্তু দিনের শেষে মুখে চওড়া হাসি ফুটল না কোচ কিবু ভিকুনার (Kibu Vicuña) মুখে। হাইভোল্টেজ ডার্বি জিতেও কপালে ভাঁজ তাঁর। আসলে বড় ম্যাচে সাফল্য পেলেও দলের পারফরম্যান্স চিন্তায় রাখছে তাঁকে।

শুরুটা দুর্দান্ত হয়েছিল। কিন্তু শেষ ২০ মিনিট ইস্টবেঙ্গল বেইতিয়াদের যেভাবে নাকানিচোবানি খাওয়ালো, তাতে দুশ্চিন্তা কাটছে না কিবুর। যে কোনও মুহূর্তে গোল হজম করতে পারতেন ড্যানিয়েল সাইরাসরা। শুধু ভাগ্য সহায় ছিল বলে তিনটে পয়েন্ট ঘরে এসেছে। আর ঠিক এই বিষয়টাই ভিতর থেকে কুরে কুরে খাচ্ছে কিবুকে। নিজের মুখেই স্বীকার করলেন, এদিন জোড়া গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর আত্মতুষ্টিতে ভুগতে শুরু করেন ফ্রান-বেইতিয়ারা।” ওদের মনে হয়েছিল এখানেই খেলা শেষ। সব পেয়ে গেলাম। সেই সুযোগটাই কাজে লাগায় ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু বাঁশি না বাজা পর্যন্ত কিছুই শেষ হয় না। চার্চিল ম্যাচে হারলেও আমরা ভাল খেলেছিলাম। পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট হয়েছিলাম। কলকাতা লিগের ডার্বিতেও ভাল খেলেছি। আজকের খেলাতেও খুশি। বিশেষ করে জিততে পেরে সমর্থকদের জন্য খুশি। কিন্তু আরও উন্নতির প্রয়োজন।” বলেন কোচ।

[আরও পড়ুন: ‘দলকে যেখানে পৌঁছে দিয়েছি, কেউ পারেনি’, ডার্বি হেরেও নিজের প্রশংসা আলেজান্দ্রোর]

তবে, ডার্বি জিতেই যে চ্যাম্পিয়নশিপের অনেকটা কাছাকাছি পৌঁছে গেল দল, এমনটা মানতেও নারাজ কিবু। তাঁর কথায়, “সবে ৪০ শতাংশ খেলা হয়েছে। এখনও ৬০ শতাংশ বাকি। তাই এখনই খেতাব নিয়ে ভাবার কিছু হয়নি। একটা একটা করে ম্যাচে ফোকাস করতে হবে। বিশ্রাম ছাড়াই পরপর খেলতে হচ্ছে। তাই খুব বেশি কিছু ভেবে চাপ নিতে চাই না।” কোচের মুখে হাজার ওয়াটের আলো দেখা না গেলেও পরপর দুই ডার্বিতে দু’বারই ম্যাচের সেরা হয়ে উচ্ছ্বসিত বেইতিয়া। সমর্থকদের ভালবাসা আর শুভেচ্ছায় ভাসছেন তিনি। আর এটাই তাঁর সবচেয়ে বড় পাওনা। বললেন, “নাওরেম দারুণ ক্রসটা দিয়েছিল। ওর জন্য খুশি। তবে ম্যাচ সেরা হওয়ার থেকেও বেশি খুশি দল জিতেছে বলে। আগের ডার্বিতেও সেরার ট্রফি পেয়েছিলাম। কিন্তু আজকেরটা স্পেশ্যাল। কারণ আজ আমরা জিতেছি।”

[আরও পড়ুন: যুবভারতীতে টানটান ম্যাচ, বছরের প্রথম ডার্বিতে অনবদ্য জয় মোহনবাগানের]

মঙ্গলবারই নেরোকার বিরুদ্ধে প্রস্তুতি শুরু করে দেবেন কিবু। ডিফেন্সের গলদ কিংবা মাঝমাঠের ভুলত্রুটি শুধনোর পাশাপাশি ভিকুনার নিঃসন্দেহে সবচেয়ে বেশি নজর থাকবে ফুটবলারদের বডি ল্যাঙ্গুয়েজের দিকে। অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস যাতে ‘কাল’ না হয়ে ওঠে, তা দেখাই এখন কিবুর বড় চ্যালেঞ্জ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement