৪ আশ্বিন  ১৪২৬  রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  কেরিয়ারের সেরা সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন হিমা দাস। ট্র্যাক এন্ড ফিল্ডে যেন তিনি অপ্রতিরোধ্য। মরশুমের সেরা সময়ে উইরোপের মাটিতে একের পর এক সাফল্য পাচ্ছেন তিনি। শনিবার চেক প্রজাতন্ত্রে চলতি মাসের পঞ্চম সোনাটি পেয়ে গেলেন তিনি। মাত্র ১৮ দিনের ব্যবধানে ইউরোপে এটি তাঁর পাঁচ নম্বর সোনা।

[আরও পড়ুন: সোনালি দৌড় অব্যাহত হিমার, ১৫ দিনের মধ্যে চতুর্থ সোনা জিতলেন অ্যাথলিট]

৪০০ মিটার দৌড়ে সোনা জেতার রেসে হিমা সময় নেন ৫৩.০৯ সেকেন্ড। ৪০০ মিটারে হিমার ব্যক্তিগত রেকর্ড ৫০.৭৯ সেকেন্ড। যা তিনি গত বছর করেছিলেন জাকার্তা এশিয়ান গেমসে। তবে, সোনা জিতলেও বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে সুযোগ এখনও অধরা রয়ে গেল হিমার। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নে নামতে গেলে হিমাকে সময় করতে হত ৫১.৮০ সেকেন্ড। তা এ দিন অল্পের জন্য হাতছাড়া হয় এই ভারতীয় অ্যাথলিটের। গত বুধবার হিমা চেক প্রজাতন্ত্রে প্রথমবার নামেন তাঁর প্রিয় ইভেন্ট ৪০০ মিটারে। সেখানেও তিনি শেষ করেছিলেন সোনা জিতেই। এ মরশুমের প্রথম সোনাটি অবশ্য তিনি পেয়েছিলেন ২ জুলাই। পোলান্ডে পোজনান অ্যাথলেটিক্স-এ ২০০ মিটারে সোনা জেতেন তিনি। দৌড় শেষ করতে সময় লেগেছিল ২৩.৬৫ সেকেন্ড। তাঁর পাঁচ দিন পরেই ৭ জুলাই পোলান্ডেই কুতনো অ্যাথলেটিক্স মিটে ফের ২০০ মিটারেই সোনা জেতেন হিমা। এ বার তাঁর সময় হয় ২৩.৯৭ সেকেন্ড। ছয় দিন পরে ১৩ জুলাই চেক প্রজাতন্ত্রে অনুষ্ঠিত ক্লাদনো অ্যাথলেটিক্স মিটে ২৩.৪৩ সেকেন্ড সেকেন্ড সময় করে ২০০ মিটারে সোনা জয়ের হ্যাটট্রিক করেন হিমা।

[আরও পড়ুন: বানভাসী অসমের জন্য ব্যথিত হিমা, বেতনের অর্ধেক অর্থ দান অ্যাথলিটের]

হিমার জন্য সুখবর আরও রয়েছে। গত বছর এশিয়ান গেমসে ৪০০ মিটার মিক্সড রিলে রেসেও সোনা হাতে আসছে। এক বছর আগে ওই ইভেন্টে জেতা রুপো বদলে যাচ্ছে সোনায়। প্রাথমিক খবরটা এসেছিল শুক্রবার রাতেই। শনিবার জানা গেল, এতে সরকারি সিলমোহর পরছে। শুধু সময়ের অপেক্ষা। আন্তর্জাতিক অ্যাথলেটিক্স সংস্থা জানাচ্ছে, ওই ইভেন্টে বাহরিনের এক প্রতিযোগী কেমি আদেকোয়া ডোপ টেস্টে ‘পজিটিভ’ হয়েছেন। ফলে পুরো বাহরিন দলটাই বাতিল বলে গন্য হয়েছে। ফলে তাদের ওই ইভেন্টে জেতা সোনাও বাতিল হয়ে যাবে। ফলে রুপো জয়ী ভারতকে সোনাজয়ীর তকমা দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং