১৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়: ফের শহরে উষসী কাণ্ডের ছায়া৷ এবার প্রকাশ্য দিবালোকে হেনস্তার শিকার হলেন জাতীয় স্তরের বক্সার সুমন কুমারী৷ অভিযোগ, শুক্রবার সকালে দক্ষিণ কলকাতার মোমিনপুর এলাকায় সোনাজয়ী এই বক্সারকে হেনস্তা করে এক যুবক৷ প্রথমে গালিগালাজ করা হয় সুমন কুমারীকে৷ এরপর তাঁর উপর চড়াও হয় অভিযুক্ত৷ এবং সম্পূর্ণ ঘটনাটাই ঘটে সেখানে দাঁড়িয়ে থাকা এক পুলিশ অফিসারের সামনে৷ কিন্তু দেখেও কোনও সাহায্য করেননি ওই অফিসার৷ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত তিন জনকে গ্রেপ্তার করেছে কলকাতা পুলিশ। 

[ আরও পড়ুন: ‘সংখ্যালঘু নয়, প্রত্যেকের জন্য স্কুলে ডাইনিং হল’, বিতর্কে জল ঢেলে নয়া ঘোষণা রাজ্যের ]

জানা গিয়েছে, রাইটার্সে কাজ করেন বক্সার সুমন কুমারী৷ ঘটনার সময় কর্মস্থলেই যাচ্ছিলেন তিনি৷ ফেসবুকে ঘটনার বিবরণ দিয়ে বক্সার সুমন কুমারী জানান, শুক্রবার সকাল ১১টা ১৫ মিনিট নাগাদ স্কুটি করে কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন তিনি৷ খিদিরপুরের মোমিনপুরের কাছে, হঠাৎই তাঁর স্কুটির সামনে চলে আসে বছর ২৫-এর এক যুবক৷ এরপর তাঁকে উদ্দেশ্য করে অশ্রাব্য গালিগালাজ করতে থাকে ওই যুবক৷ তাঁকে হুমকিও দেওয়া হয়৷ এবং তাঁর উপর চড়ও হয় অভিযুক্ত৷ সুমন কুমারী জানিয়েছেন, ঘটনার প্রতিবাদে সোচ্চার হন তিনি৷ ওই যুবকের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান৷ এরপর পুলিশের সাহায্য চাইতে এগিয়ে যান তিনি৷ কিন্তু সেখানে আরও বিপদ বাড়ে৷ তাঁর অভিযোগ, গোটা ঘটনাটাই ঘটেছে সেখানে দাঁড়িয়ে থাকা এক পুলিশ অফিসারের সামনে৷ এবং সাহায্য চাইলেও, ওই অফিসারের কোনও সাহায্য পাননি তিনি৷ বরং অফিসার তাঁকে বলেন, থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করতে৷

[ আরও পড়ুন:  সম্মান প্রদর্শন জ্যোতি বসু-দেবেন মাহাতোকে, বিরোধীদের প্রতি সৌজন্য মমতার]

ফেসবুকে ঘটনার বর্ণনা শেষে যদিও কলকাতা পুলিশের উপর আস্থা রেখেছেন এই জাতীয় বক্সার৷ দোষীদের যথাযথ শাস্তির দাবি তুলেছেন তিনি৷ সুমন কুমারী পুলিশের উপর ভরসা রাখলেও, ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে কিন্তু ইতিমধ্যে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ সদ্যই ঘটে যাওয়া উষসী কাণ্ডের পর তৎপর হয়েছিল কলকাতা পুলিশ৷ কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা শহরের সমস্ত থানায় এসওপি জারি করেছিলেন৷ জেলার থানাগুলির জন্য ‘জিরো এফআইআর’ নির্দেশিকা চালু হয়েছিল৷ কিন্তু উষসী কাণ্ডের রেশ কাটতে না কাটতেই জাতীয় স্তরের মহিলা বক্সারের হেনস্তার ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা দেখে হতাশা চেপে রাখতে পারছেন না শহরবাসীদের একাংশ৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং