২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের কংগ্রেস সংসদীয় দলের নেত্রী নির্বাচিত হলেন সোনিয়া গান্ধী। শনিবার সংসদে নবনির্বাচিত কংগ্রেস সাংসদদের নিয়ে বৈঠক করে কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্ব। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যসভার সাংসদরাও। সর্বসম্মতিক্রমে সোনিয়াকেই ফের কংগ্রেস সংসদীয় দলের নেত্রী নির্বাচিত করেন সাংসদরা। তবে, লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা কে হবে তা নিয়ে এখনও জল্পনা চলছে।

[আরও পড়ুন: ‘জ্যোতিষবিদ্যা বিজ্ঞানের চেয়ে এগিয়ে’, সংসদে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন মোদি সরকারের নয়া মন্ত্রী]

লোকসভায় দলের হতশ্রী ফলাফলের পর একপ্রকার বিমর্ষ কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্ব। ইতিমধ্যেই দলের সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন রাহুল। ইস্তফার সিদ্ধান্তে এখনও অনড় কংগ্রেস সভাপতি। তাই অনেকে মনে করছিলেন, রাহুল যদি সভাপতি পদ থেকে সরে দাঁড়ান, সেক্ষেত্রে তাঁকে সংসদীয় দলের নেতা করা হতে পারে। তবে, এদিন তা না হওয়ায় রাজনৈতিক মহলের ধারণা, রাহুলকে একপ্রকার জোর করেই দলের সভাপতি পদে বহাল রাখতে চাইছে কংগ্রেস নেতৃত্ব। সংসদীয় দলের বৈঠকে রাহুলের বক্তব্যেও ইঙ্গিত মিলেছে, তিনি সভাপতি পদে বহাল থাকছেন।

কংগ্রেস সভাপতি এদিন দলীয় বৈঠকে বলেন, “লোকসভায় আমাদের একত্রিত হয়ে লড়তে হবে। আরও বেশি আগ্রাসী হতে হবে। আমরা ৫২ জনই বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করতে যথেষ্ট। কারণ, আমরা লড়ছি সংবিধানের জন্য। বিজেপিকে এক মুূহূর্তও স্বস্তি দেব না আমরা, ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে লড়াই করব। ওরা ক্রোধ আর ঘৃণা ছড়াবে, আপনারা সেগুলো উপভোগ করবেন।” পরে টুইট করেও দলের কর্মীদের একই বার্তা দেন রাহুল। এদিন, কংগ্রেস সাংসদদের সামনে রাহুলের প্রশংসা করেন মা সোনিয়াও। তিনি বলেন, “লোকসভায় যেভাবে দিনরাত এক করে রাহুল পরিশ্রম করেছে, তা নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়। রাহুল ইস্তফা দিতে চেয়েছে। কিন্তু, বিভিন্ন নেতার কাছ থেকে আবেগঘন চিঠি আসছে ওর ইস্তফা প্রত্যাহার করার জন্য। আমার আশা দ্রুত কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।”

[আরও পড়ুন: বিপ্লবের কোপে ছাঁটাই সুদীপ, ত্রিপুরা বিজেপিতে বড়সড় ভাঙনের ইঙ্গিত]

বৈঠক শেষ কংগ্রেসের নেতারা অনেকটাই নিশ্চিত যে, রাহুলই সভাপতি পদে থাকছেন। যদিও, কংগ্রেসের তরফে সরকারিভাবে কোনও ঘোষণা করা হয়নি। অন্যদিকে, লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা কে হবেন তা নিয়ে জল্পনা এখনও চলছে। উঠে আসছে শশী থারুর, মণীশ তিওয়ারির মতো নেতাদের নাম। উল্লেখ্য, মাত্র ৫২ জন সাংসদ থাকায় লোকসভায় এককভাবে প্রধান বিরোধীদলের পদটি দাবি করতে পারবে না কংগ্রেস। সেক্ষেত্রেও তাদের জোটসঙ্গীদের সাহায্য নিতে হবে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং