BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভারতীয় সেনার অবস্থান জানিয়ে দেবে চিনা স্যাটেলাইট! বেজিংয়ের মদত নিচ্ছে পাকিস্তান

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 31, 2020 9:14 pm|    Updated: August 31, 2020 9:14 pm

An Images

ফাইল ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ ফাঁস হল পাকিস্তানের (Pakistan) বড়সড় চক্রান্ত। জম্মু–কাশ্মীর (Jammu and Kashmir) সীমান্তের কোথায় কোথায় ভারতীয় সেনার (Indian Army) পোস্ট রয়েছে, তা জানতে এবার চিনের সাহায্য নিচ্ছে পাকিস্তান। চিনের (China) স্যাটেলাইট জিলিন–১–এর তথ্য কিনতে বেজিংয়ের সঙ্গে চুক্তি করেছে ইসলামাবাদ। এর ফলে জিলিন–১ এর তোলা ওই এলাকার সমস্ত ছবি, ভিডিও হাত পেয়ে যাবে পাকিস্তান। যার সাহায্যে সহজেই সীমান্তের এপারে ভারতের সেনা ছাউনি কোথায় কোথায় রয়েছে?‌ জানতে অসুবিধা হবে না ইসলামাবাদের। একটি গোয়েন্দা সূত্রকে উদ্ধৃত করে এই তথ্য জানিয়েছে সংবাদসংস্থা আইএনএএস।

[আরও পড়ুন: তীক্ষ্ণ রাজনৈতিক বুদ্ধিই ছিল প্রণববাবুর ইউএসপি, দলের সেরা ট্রাবল-শুটারকে হারাল কংগ্রেস]

জানা গিয়েছে, চুক্তি অনুযায়ী ২০২০ সালের সমস্ত তথ্য চিনের কাছ থেকে নেবে পাকিস্তান। যদিও ভারতের উপর চরবৃত্তি করার অভিযোগ মানতে নারাজ তাঁরা। ইসলামাবাদের (Islamabad) দাবি, অন্য দেশের উপর চরবৃত্তি নয়। ওই এলাকার জমির সার্ভে, আবহাওয়ার উপর নজরদারি, প্রাকৃতিক দুর্যোগ–সহ অন্যান্য ব্যাপারে তথ্য নিতেই এই চুক্তি। আসলে চিনের এই স্যাটেলাইট জিলিন–১ এর মধ্যে রয়েছে আরও দশটি উপগ্রহ। আর এই কারণে পৃথিবীর যেকোনও জায়গায় দিনে দু’‌বার নজরদারি চালাতে পারে এই ‘‌জিলিন–১’। আর সেজন্যই তথ্য নিতে চিনের এই স্যাটেলাইটের উপর ভরসা করছে পাকিস্তান।

[আরও পড়ুন: কাশ্মীরে ফের বানচাল বড়সড় হামলার ছক, গ্রেপ্তার ৩ লস্কর জঙ্গি]

সম্প্রতি পাকিস্তানের সঙ্গে সীমান্ত নিয়ে বিবাদ চলার পাশাপাশি চিনের সঙ্গেও ভারতের সংঘাত শুরু হয়েছে। বারংবার ভারতের মাটিতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালাচ্ছে লালফৌজ। অন্যদিকে, সীমান্তে গতিবিধি বাড়িয়েছে পাক সেনা এবং তাদের মদতপুষ্ট জঙ্গিরাও। গত বৃহস্পতিবার জম্মুর সাম্বা সেক্টরে টহলদারির সময় সুড়ঙ্গের হদিশ পান জওয়ানরা। পাকিস্তানের দিক থেকে সুড়ঙ্গটি ভারতের দিক পর্যন্ত খোঁড়া হয়েছিল। ভারতের প্রান্তে সুড়ঙ্গের মুখ বালির বস্তা দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছিল। যাতে সহজে কারওর সন্দেহ না হয়। তবে প্রতিটা বস্তায় পাকিস্তানের ‘মার্কিং’ করা ছিল। বস্তাগুলি পাকিস্তানের শখেরগড় ও করাচির কারখানায় তৈরি করা হয়েছে। তৈরির দিনক্ষণ দেখে বোঝা গিয়েছে, বস্তাগুলি খুব বেশি পুরনো নয়। বিএসএফ সূত্রে জানা গিয়েছিল, বিএসএফ পোস্ট হোয়েলব্যাকের কাছেই সুড়ঙ্গটি মিলেছিল। সেটির দৈর্ঘ্য ২০ মিটার ও মুখের কাছে প্রায় ২৫ ফুট গভীর। আবার সুড়ঙ্গটির ৭০০ মিটারের মধ্যে রয়েছে পাকিস্তানি সেনার পোস্ট ‘গুলজার’। বিএসএফের আশঙ্কা, চোখ এড়িয়ে অনুপ্রবেশ করতেই এই সুড়ঙ্গ কেটেছিল পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জঙ্গিরা। এই পথে এসে সেনা পোস্টে হামলার চালনার পরিকল্পনা থাকাও অসম্ভব হয়।‌

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement