১ ভাদ্র  ১৪২৫  শনিবার ১৮ আগস্ট ২০১৮ 

BREAKING NEWS

মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও রাশিয়ায় মহারণ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১ ভাদ্র  ১৪২৫  শনিবার ১৮ আগস্ট ২০১৮ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  বছর পাঁচেক আগেও মেয়েদের বাড়ি থেকে পালানোর প্রবণতা খুব একটা চিন্তার কারণ ছিল না। কারণ সংখ্যাটা খুব একটা বিপজ্জনক ছিল না। কিন্তু কয়েক বছরের মধ্যেই ছবিটা বদলে গিয়েছে। দেখা যাচ্ছে, আগের তুলনায় এখন বাড়ি থেকে পালানো নাবালিকা মেয়েদের সংখ্যাটা বাড়ছে বিপজ্জনকভাবে। রেলের দেওয়া তথ্য থেকে অনেকটা আন্দাজ করা যায় বাড়ি ছাড়ার প্রবণতা কাদের মধ্যে বেশি। কারণ পালানোর রাস্তা হিসেবে অনেকেই বেছে নেন রেলপথকে। এতে একদিকে যেমন ধরা পড়ার সম্ভাবনা কম, অন্যদিকে তেমন খরচও কম হয়।

[হস্টেলে আটকে রেখে মেয়েদের ধর্ষণ, কাঠগড়ায় আরএসএস নেতা]

ভারতীয় রেলের তরফে সম্প্রতি একটি তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে যাতে উঠে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। দেখা যাচ্ছে, গত ৬ মাসেই ১ হাজার ৩৭ জন নাবালিকাকে বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার সময় উদ্ধার করেছেন রেল কর্মীরা। না, এদের কেউ পাচার করছিল না, কিংবা অপহরণ করে নিয়ে যাওয়াও হচ্ছিল না। দুর্ঘটনার জেরে বাড়ির অন্যদের থেকে আলাদা হয়ে গিয়েছে এমনও নয়। স্রেফ নিজের ইচ্ছেতেই ঘর ছেড়েছে এই নাবালিকারা। এবং অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে তাঁরা বাড়ি থেকে পালিয়েছে প্রেমিকের হাত ধরে। ২০১৩ সালে বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়া নাবালিকার সংখ্যা ছিল মাত্র ৫১৩। সেসময় বাড়ি থেকে পালানো ছেলেদের সংখ্যা ছিল ৩ হাজার ২৬৬ জন। গতবছর মেয়েদের সংখ্যা বেড়ে হয় প্রায় তিনগুণ। গতবছর বাড়ি থেকে পালাতে গিয়ে ধরা পড়া মেয়েদের সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৬৯৯ জন। সে তুলনায় পলাতক ছেলেদের সংখ্যা খুব একটা বাড়েনি। এবছর প্রথম ৬ মাসেই পলাতক নাবালিকার সংখ্যা ১,০৩৭।

[আরও বেশি আসন পেয়ে ক্ষমতায় ফিরব, উনিশের আগে আত্মবিশ্বাসী মোদি]

নাবালিকাদের বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার এই প্রবণতা বিপজ্জনক। কারণ, অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় যারা বাড়ি থেকে পালাচ্ছে তাদের আর ফিরিয়ে নিতে চায় না পরিবার। সেক্ষেত্রে মেয়েদের হোমে রাখা ছাড়া উপায় থাকে না রেলকর্তাদের। আর আবাসিক হোমগুলিও মেয়েদের জন্য ক্রমশ বিপজ্জনক হয়ে উঠছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং