১১ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: ধর্ষণ (rape) বন্ধের আবেদন নিয়ে প্রচার চালাতে পথে নেমেছেন ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী এলিনা আহমেদ। ‘বাংলাদেশে দিন দিন ধর্ষণের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। একদিকে মেয়েরা ধর্ষণের শিকার হচ্ছে, অন্যদিকে ধর্ষকের বিচার হচ্ছে না। সুস্থ সমাজের জন্য সুস্থ মানসিকতা দরকার। ধর্ষণ বন্ধে প্রচার চালাতে তাই রাজপথে নেমে পড়েছি।’

শনিবার দুপুরে পদ্মা বিধৈৗত জেলা রাজবাড়ির গোয়ালন্দ বাসস্ট্যান্ডে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে দাঁড়িয়ে কথাগুলো বলছিলেন এলিনা আহমেদ (২৬)। তিনি ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া। আজ দুপুর ১২টার দিকে গোয়ালন্দ বাসস্ট্যান্ডে বিশ্রাম নেওয়া সময় তাঁর লক্ষ্যের বিষয়ে জানান তিনি।

[আরও পড়ুন: আন্তর্জাতিক আদালতের রায়ে দেশে ফেরার স্বপ্ন দেখছেন রোহিঙ্গা শরণার্থীরা ]

 

বলেন, ‘বগুড়ার শেরপুরে আমার গ্রামের বাড়ি। ক্রমাগত ধর্ষণ ঘটনা ঘটতে দেখে আমি সেখানে বসে থাকতে পারিনি। তাই ধর্ষণ বন্ধের আবেদন নেই ২০ জানুয়ারি একটি সাইকেল নিয়ে বেরিয়ে পড়ি। সাইকেলের সামনে ‘ধর্ষণ বন্ধ, স্টপ রেপ’ প্ল্যাকার্ডও ঝুলিয়ে নিও।’

[আরও পড়ুন: ফের বাংলাদেশে নিকেশ রোহিঙ্গা পাচারকারী, উদ্ধার ১ লক্ষ ইয়াবা ট্যাবলেট]

 

প্রথম দিন তিনি ঢাকার মহম্মদপুর থেকে ময়মনসিংহে যান। সেখানে রাত্রিবাসের পর দ্বিতীয় দিন চলে যান হালুয়াঘাট উপজেলায়। ওই দিনই গফরগাঁও উপজেলা হয়ে শেরপুর জেলায় যান। সেখান থেকে জামালপুর জেলা হয়ে মধুপুর দিয়ে টাঙ্গাইল জেলা শহরে পৌঁছান। সেখানে রাত কাটিয়ে পরেরদিন পৌঁছান মানিকগঞ্জ জেলায়। আজ মানিকগঞ্জ থেকে তিনি যশোরের বেনাপোল যাচ্ছেন।

এলিনার দাবি, ২০১৮ সাল থেকে ধর্ষণের ঘটনা বেড়ে গেছে বাংলাদেশে। এ ধরনের যতগুলি ঘটনা ঘটেছে, তার উপযুক্ত বিচার দাবি করেন তিনি। ধর্ষণ বন্ধে পুরুষদের সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান। নিজের সম্পর্কে তিনি বলেন, মেয়েদের আত্মনির্ভরশীল হতে হবে। আত্মরক্ষার কৌশল শিখতে হবে। একজন নারীর একা চলতে হলে কিছুটা আত্মরক্ষার কৌশল জানা দরকার। যাত্রাপথের বিভিন্ন স্থানে সব শ্রেণি ও পেশার মানুষের সঙ্গে কথা বলছি আমি। সবাই আমার এই উদ্যোগকে সমর্থন জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং