×

৫ ফাল্গুন  ১৪২৫  সোমবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নিউজলেটার

৫ ফাল্গুন  ১৪২৫  সোমবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সুকুমার সরকারঢাকা: ঢাকার একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকার সম্পাদককে হত্যার পরিকল্পনা নিয়েছিল নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিম বা এবিটি।  সংগঠনের এক নেতাকে মুক্ত করতে প্রয়োজনে কারাগারে হামলার প্রস্তুতিও নিচ্ছিল সদস্যরা। আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের ধৃত চার সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদ করে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য মিলেছে বলে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন বা র‌্যাব সূত্রে খবর। 

রাজধানী ঢাকার উত্তরা থেকে বৃহস্পতিবার আনসার বাংলা টিমের ৪ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। শুক্রবার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিক সম্মেলনে এই তথ্য তুলে ধরেন আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান। তাদের জেরা করে আরও তথ্য এসেছে র‌্যাবের হাতে। জানা গিয়েছে, সোশ্যাল নেটওয়ার্কের একটি অ্যাক্টিভিস্ট গ্রুপে ছদ্মবেশে যুক্ত হয়েছে তারা। ‘ইসলাম বিদ্বেষী’ অ্যাক্টিভিস্টদের উপর নজরদারি করছিল আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্যরা।  বিবাহ সংক্রান্ত একটি হাদিস নিয়ে প্রকাশিত লেখাকে ‘ইসলাম বিদ্বেষী’ বলে চিহ্নিত করা হয়। লেখাটি প্রকাশ করায় ওই পত্রিকার সম্পাদককে টার্গেট করেছিল তারা। তাঁকে হত্যার ছক কষা হয়েছিল। তবে সেই মিশন সফল করার আগেই এলিট ফোর্স র‌্যাবের হাতে তারা ধরা পড়ে। ধৃতরা  বগুড়া ধুনটের শাহরিয়ার নাফিস, রবিউল ইসলাম, ভোলা রাসেল এবং আবদুল মালেক। ধৃতদের কাছ থেকে উগ্রবাদী বই,  মোবাইল ও ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

                                     [ভাষা দিবসকে সামনে রেখে ঢাকায় শুরু মাসব্যাপী ‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা’]

জানা গিয়েছে, শাহরিয়ার নাফিস সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করে। ২০১৭ সালে অনলাইনে আমান নামে একজনের সঙ্গে পরিচয়ের মাধ্যমে এবিটিতে যোগ  দেয় সে।  রাসেল ওরফে সাজেদুল ইসলাম গিফারী ২০১৩ সালে এসএসসি পাস করে একটি বস্ত্রশিল্প সংস্থায় চাকরি নেয়। রবিউল ইসলাম ২০১০ সালে দাখিল পাস করে বগুড়া পলিটেকনিক ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ভরতি হন। ২০১৫ সালে সেই কোর্স শেষ করে। ২০১৮ সালে জঙ্গি সংগঠন এবিটিতে যোগদান করে রবিউল। আবদুল মালেক পেশায় একজন প্রাইভেট গাড়ি চালক। জিজ্ঞাসাবাদে এবিটির সদস্যরা জানিয়েছে, গোপনে তারা সংগঠনকে উজ্জীবিত করার কাজ করে যাচ্ছে। আনসারুল্লাহ বাংলা টিম বিভিন্ন অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট, ব্লগারদের ‘টার্গেট অ্যান্ড কিলিং’-এর লক্ষ্যে কাজ করেছে। এবার সংগঠনের ৪ জনকে গ্রেপ্তারের পর গোটা চক্রের হদিশ পেতে চাইছে র‌্যাব।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং