BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বাংলাদেশে থানার ভিতরেই বিস্ফোরণ, আরও জোরাল জঙ্গি হামলার আশঙ্কা

Published by: Sayani Sen |    Posted: July 29, 2020 2:33 pm|    Updated: July 29, 2020 2:33 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সুকুমার সরকার, ঢাকা: জঙ্গি তৎপরতার আশঙ্কাই যেন সত্যি হল! ঢাকার মিরপুরের পল্লবী থানার ভিতরেই ঘটল বিস্ফোরণ। জখম চার পুলিশকর্মী-সহ পাঁচজন। পুলিশের বাজেয়াপ্ত করা যন্ত্রাংশেই বিস্ফোরণ ঘটে। ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া ও জনসংযোগ বিভাগের উপকমিশনার ওয়ালিদ হোসেন সেকথাই জানান। বিস্ফোরণে আহত পাঁচজনের মধ্যে দু’জন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। একজন জাতীয় চক্ষু ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন। অন্য দু’জন প্রাথমিক চিকিৎসার পর বাড়িতেই রয়েছেন।

উপ কমিশনার ওয়ালিদ হোসেন বলেন, “মঙ্গলবার রাতে পল্লবী থানার পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। তাদের কাছ থেকে দু’টি আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি ও একটি ডিজিটাল ওজন করার মতো যন্ত্রাংশ উদ্ধার করা হয়। সেগুলো থানার ডিউটি অফিসারের রুমে রাখা হয়। থানায় আনার পরে ওই যন্ত্রাংশটিতে বিস্ফোরণ হয়। ঢাকা মহানগর পুলিশ সদর দপ্তরের যুগ্ম কমিশনার (অপরাধ) আবিদ হোসেন বলেন, “এটা কী ধরনের বিস্ফোরণ সে সম্পর্কে এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।”

[আরও পড়ুন: ‘ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক একাত্তরের রক্তের রাখিবন্ধনে আবদ্ধ’, মন্তব্য হাসিনার মন্ত্রীর]

ইদের আগেই জঙ্গি হামলার আশঙ্কা করা হচ্ছে। সোমবারই এই বিষয়ে ঢাকা পুলিশ সদর দপ্তর থেকে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। জেহাদিদের নিশানায় রয়েছে বিমানবন্দর, নিরাপত্তারক্ষীরা, বিদেশি দূতাবাস ও ধর্মীয় স্থান। ইতিমধ্যে গুলশানের বিভিন্ন রাস্তা ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। শপিং মল, আবাসিক এলাকায় বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তা। সোমবার রাতে গুলশানের শুটিং ক্লাবের বিপরীতে নিয়মিত চেকপোস্টটিতে অতিরিক্ত পুলিশ দেখা যায়। এছাড়াও চেকপোস্টের পাশের রেস্তরাঁগুলিও তাড়াতাড়ি বন্ধ হয়ে যায়।

গুলশান-২ নম্বর চত্বরে ফোর পয়েন্টস বাই শেরাটন হোটেল-সহ আশপাশের হোটেলগুলোর নিচে অতিরিক্ত পুলিশ দেখা গেছে। গুলশান নর্থ অ্যাভিনিউয়ের সামনে পুলিশের নিয়মিত চেকপোস্টেও অতিরিক্ত পুলিশের উপস্থিতি দেখা গেছে। পুলিশ গাড়ি থামিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ এবং গাড়ি থেকে নামিয়ে তল্লাশি করে। গুলশান বিভাগের উপ কমিশনার ড. সুদীপ কুমার চক্রবর্তী বলেন, “পুলিশ সদর দপ্তরের সতর্কবার্তার জেরে গুলশানের নিরাপত্তা বৃদ্ধি করা হয়েছে। বিশেষ করে দূতাবাস, শপিং মলে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। এছাড়াও ইদের সময় অনেকে বাড়ি ছেড়ে গ্রামের বাড়িতে যান। তাদের ফাঁকা বাড়ির নিরাপত্তায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।”

[আরও পড়ুন: ISIS জঙ্গিদের নিশানায় ঢাকার গুলশান, সতর্কবার্তা ঘিরে তৎপর প্রশাসন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement