১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৮  রবিবার ১৬ মে ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

বাংলাদেশে গুলির লড়াই, সংঘর্ষে নিহত ইয়াবা মাদক পাচারকারী

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: July 3, 2020 3:45 pm|    Updated: July 3, 2020 3:45 pm

Drug trafficker killed in Bangladesh during gun battle with cops

সুকুমার সরকার, ঢাকা: বাংলাদেশে আরও জোরাল মাদক বিরোধী অভিযান। এবার পুলিশের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে খতম হয়েছে কুখ্যাত ইয়াবা মাদক পাচারকারী আবুল কাশেম (৩২)।

[আরও পড়ুন: মানবদেহে করোনা টিকার পরীক্ষা, বাংলাদেশকে ‘গিনিপিগ’ বানাতে চাইছে চিন!]

পুলিশ সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে টেকনাফ উপজেলার সদর ইউনিয়নের মহেশখালিয়াপাড়া মৎস্যঘাট ও টেকনাফ-কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন এলাকায় সংঘর্ষ হয়। ওই ঘটনায় নিহত ব্যক্তি একজন কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী। সে টেকনাফ উপজেলার সদর ইউনিয়নের মহেশখালিয়াপাড়ার বাসিন্দা। তাঁর বিরুদ্ধে থানায় দু’টি মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি বন্দুক, ছ’টি গুলি ও ১০ হাজার ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করা হয়েছে। গুলির লড়াইয়ে পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) কাজী সাইফুদ্দিন, কনস্টেবল মহম্মদ মামুন মিয়া ও কামরুল হাসান আহত হয়েছেন।

উলেখ্য, ২০১৮ সালের মে মাস থেকে গোটা দেশে মাদকবিরোধী অভিযান শুরু হয়েছে। র‍্যাব, বিজিবি, পুলিশ, মাদক ব্যবসায়ীদের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব, মানব পাচারকারী দালাল চক্র ও ডাকাত দলের সঙ্গে গোলাগুলির ঘটনায় এপর্যন্ত চারজন মহিলা-সহ শুধু কক্সবাজার জেলায় ২৫১ জন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে ৯৩ জন রোহিঙ্গা নাগরিক।

প্রসঙ্গত, এই মুহূর্ত বাংলাদেশে রয়েছে প্রায় ১১ লক্ষ রোহিঙ্গা শরণার্থী। রাখাইন প্রদেশে বার্মিজ সেনার হামলায় বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে আসতে বাধ্য হয়ছে তারা। তবে আশ্রয়প্রার্থী হয়ে এতদিন বাংলাদেশে ছিল যে রোহিঙ্গারা, আজ তারাই হয়ে উঠেছে মাথাব্যথার কারণ৷ মাদক কারবার থেকে শুরু করে খুন-ডাকাতি, বিদেশী কিশোরী-যুবতী পাচার চক্রের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছে এরা। যে কারণে আগেই রোহিঙ্গাদের মোবাইল ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে হাসিনা সরকার। পাশাপাশি বাংলাদেশের ভোটার তালিকায় রোহিঙ্গাদের নাম তোলা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে বাংলাদেশ পুলিশের দুর্নীতি দমন কমিশন৷

[আরও পড়ুন: করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যেই বাংলাদেশে বন্যার কবলে ১৫টি জেলা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement