BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

অবৈধভাবে সাগর পথে ইটালিতে গিয়ে আটক বাংলাদেশের ৩৬২ নাগরিক

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: July 11, 2020 9:48 pm|    Updated: July 11, 2020 9:48 pm

An Images

সুকুমার সরকার, ঢাকা: অবৈধভাবে সাগর পথে ইটালিতে গিয়ে আটক বাংলাদেশের ৩৬২ জন নাগরিক। শুক্রবার আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) এই তথ্য জানিয়েছে। এর আগে বিশেষ ফ্লাইটে ঢাকা থেকে ইটালি যাওয়া যাত্রীদের পরীক্ষার পর কয়েকজন ব্যক্তির শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়।

[আরও পড়ুন: পরীক্ষা না করেই ১৫ হাজার ভুয়ো করোনা টেস্টের রিপোর্ট! জালিয়াত সংস্থার অফিস সিল]

বাংলাদেশি যাত্রীদের শরীরের করোনা ভাইরাস মেলার পর ঢাকার সঙ্গে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করে দেয় ইটালি। এর আগে জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া এবং চিনও ঢাকার সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছিল। ইটালির সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, গ্রীষ্মকালে সমুদ্র শান্ত থাকার সুযোগে চলতি মৌসুমের শুরু থেকেই অবৈধপথে ইটালি যাচ্ছেন বিভিন্ন দেশের অভিবাসন প্রত্যাশীরা। গত বছরের তুলনায় সেখানে অবৈধ অভিবাসী প্রবেশের হার বেড়েছে কয়েকগুণ। আইওএম জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার তিউনিশিয়া থেকে ১১৬ অভিবাসন প্রত্যাশীকে নিয়ে ইটালির লাম্পেদুসা দ্বীপে পৌঁছেছে নয়টি নৌকা। শুক্রবার তিউনিশিয়া থেকে সাতটি ছোট নৌকা ও লিবিয়া থেকে দু’টি বড় নৌকায় ইটালি পৌঁছান আরও ৪৩৪ জন। রাষ্ট্রসংঘের অভিবাসন সংস্থাটির তথ্যমতে, লিবিয়া থেকে যাওয়া একটি নৌকায় ৯৫ জন এবং অপর নৌকার ২৬৭ জন, মোট ৩৬২ জন অভিবাসনপ্রত্যাশী বাংলাদেশের নাগরিক।চলতি বছরে এ পর্যন্ত আট হাজারের বেশি অভিবাসনপ্রত্যাশী অবৈধপথে ইটালি গিয়েছেন। গত বছর একই সময়ে এ সংখ্যা ছিল মাত্র তিন হাজারের মতো। তবে ২০১৮ সালে একই সময়ে ইটালি গিয়েছিলেন প্রায় ১৭ হাজার অভিবাসন প্রত্যাশী।

এদিকে, এক সপ্তাহেরও বেশি সময় পর গত সপ্তাহে ভূমধ্যসাগর থেকে উদ্ধার ১৮০ অভিবাসন প্রত্যাশীকে জাহাজ থেকে নামার অনুমতি দিয়েছিল ইটালি। এদের মধ্যেও অনেক বাংলাদেশি ছিলেন বলে জানা গেছে। উদ্ধার হওয়া অভিবাসন প্রত্যাশীকদের সিসিলি উপকূলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে সবাইকে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি বাংলা এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে। বিদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বিনষ্ট হওয়ায় দেশের আইন প্রয়োগকারী সংস্থা র‌্যাব তদন্ত করে ঢাকার রিজেন্ট হাসপাতাল থেকে করোনা ভাইরাস পরীক্ষার হাজার হাজার ভুয়া রিপোর্ট আটক করেছে। এমনকি নমুনা না নিয়ে কিংবা নমুনা নিয়ে ফেলে রেখে টাকার বিনিময়ে মনগড়া রিপোর্ট দেওয়ার প্রমাণ পেয়েছে র‌্যাব, যে খবর মূহূর্তেই ছড়িয়েছে সারা বিশ্বে।

[আরও পড়ুন: ভাসানচর থেকে রোহিঙ্গাদের সরাতে বাংলাদেশকে অনুরোধ আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement