১ কার্তিক  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৯ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

বাড়ছে রোহিঙ্গা তরুণীদের সঙ্গে বাঙালিদের বিয়ের প্রবণতা, উদ্বিগ্ন প্রশাসন

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: October 12, 2018 9:39 pm|    Updated: October 12, 2018 9:39 pm

marriages betwoon Rohingyas and Bengalis  increasing rapidly

সুকুমার সরকার, ঢাকা: সরকারের শত কড়াকড়িকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বাংলাদেশের মূল স্রোতের সঙ্গে মিশে যাচ্ছে মায়ানমারের রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সদস্যরা৷ চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দারবনে স্থানীয় যুবকদের সঙ্গে মায়ানমারের রোহিঙ্গা তরুণীদের বিয়ের হার দিনে দিনে বেড়ে চলায় উদ্বিগ্ন বাংলাদেশ প্রশাসন৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চার জেলায় বিবাহ রেজিস্টার ও কাজিদের চূড়ান্ত সতর্ক করেছে বাংলাদেশ সরকার৷ অভিযোগ, সতর্ক করা হলেও সরকারি নির্দেশ মানছেন না বহু কাজি বা ম্যারেজ রেজিস্ট্রার৷ ফলে, বিজ্ঞপ্তি জারি করেও বিপাকে স্থানীয় প্রশাসন৷

[ঢাকার পাক হাই কমিশনে সন্ত্রাসী ছক, নিশানায় পশ্চিমবঙ্গ! ]

অভিযোগ, সরকারিভাবে কড়াকড়ি করা হলেও রোহিঙ্গা তরুণীদের সঙ্গে স্থানীয়দের প্রকাশ্য ও গোপনে বিয়ে অব্যাহত রয়েছে৷ গণহারে রোহিঙ্গাদের মধ্যে  বিয়ের প্রবণতা বাড়তে থাকায় অদূর ভবিষ্যতে জাতীয় উৎপাদন হ্রাস ও জনসংখ্যা এক ধাক্কায় অনেকটাই বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে৷ এমনিতেই, জনঘনত্বের নিরিখে শীর্ষ রয়েছে বাংলাদেশ৷

মানবিকতার বিচারে স্থানীয় যুবকেরা অসহায় তরুণীদের বিয়ে করছেন এটাও যেমন ঠিক, তেমন দেশের জনসংখ্যা বৃদ্ধিতে উদ্বিগ্ন সরকার৷ সম্প্রতি আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রকের জারি হওয়া নির্দেশে বলা হয়েছে, মায়ানমার থেকে সম্প্রতি বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গা মহিলাদের সঙ্গে বাংলাদেশীদের বিয়ের প্রবণতা বেড়ে গিয়েছে। এ অবস্থায় বিয়ে নিবন্ধের কাজে যুক্ত থাকা কাজিদের সর্তক থাকতে বলা হয়৷ বান্দরবন কাজি সমিতির সভাপতি মৌলানা আবুল কাসেম জানান, সরকারিভাবে বিজ্ঞপ্তি তাঁরা পেয়েছেন। তাঁরা সর্তকও রয়েছেন৷ কিন্তু রোহিঙ্গা যুবতীদের সঙ্গে স্থানীয়দের বিয়ে কিছুতেই নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না৷ কাজিরা বিয়ের রেজিস্ট্রি না করলেও শুধু কলেমা পড়ে অনেকে বিয়ে করছেন এমন অভিযোগ তাঁরা শুনেছেন। কক্সবাজার, বান্দরবন, রাঙামাটি ও চট্টগ্রাম জেলায় যেকোনও বিয়ের ক্ষেত্রে বর-কনে বাংলাদেশি নাগরিক কি না সে বিষয় নিশ্চিত হয়েই নিবন্ধন করতে বলা হয়েছে৷ বিয়ের সময় জাতীয় পরিচয়পত্র দেখে তবেই নিবন্ধন করতে হবে বলে বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছে৷

[খালেদা পুত্রের ফাঁসির দাবিতে আদালতে যাচ্ছে হাসিনা সরকার]

বান্দরবনে গত সপ্তাহে মরিয়ম(২১) নামে এক রোহিঙ্গা যুবতীর সঙ্গে স্থানীয় এক যুবকের বিয়ে হয়৷ বিষয়টি জানাজানি হতেই আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে নববধূকে নিয়ে চম্পট দেন যুবক। অবাধে রোহিঙ্গা যুবতীদের বিয়ে ও মেলামেশা দেশের জন্য বড় ধরনের সমস্যা তৈরি করবে বলে আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের৷ রোহিঙ্গা তরুণীদের সন্তান বাংলাদেশের নাগরিকত্ব যেমন দাবি করবে, সঙ্গে বিয়ের কিছুদিন পর বিবাহিত রোহিঙ্গারাও বাংলাদেশী বলে দাবি করতে পারে৷ এক্ষেত্রে জটিলতা তৈরি হতে পারে৷ ফলে, এই পরিস্থিতি এড়াতে রোহিঙ্গা-বাংলাদেশী বিয়ে বন্ধে এখনই ব্যবস্থা নেওয়া জরুরি বলে মত পর্যবেক্ষক মহলের একাংশের৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement