৪ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: বুধবার মায়ানমারের ইয়াঙ্গন বিমানবন্দরে দুর্ঘটনা ঘটে বাংলাদেশের বিমানের৷ যাত্রীদের উদ্ধারে আজ সেখানে পাঠানো হল বিশেষ বিমান৷ ১০জনকে নিয়ে আজ রাতের মধ্যেই ঢাকায় ফিরবে ফ্লাইটটি৷ বুধবার সন্ধ্যায় ইয়াঙ্গন বিমানবন্দরে রানওয়েতে নামতে গিয়ে ছিটকে পড়ে বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ড্যাশ – ৮ উড়োজাহাজটি৷ ৩৩ জন যাত্রী প্রাণে বাঁচলেও ছোটখাটো আঘাত লেগেছে অনেকেরই৷ তাঁরা ইয়াঙ্গনের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷

[আরও পড়ুন: আটদিনে ধর্ষণের শিকার ৪১ শিশু, বাংলাদেশে বাড়ছে যৌন অপরাধ]

চিকিৎসার পর তাঁরা আপাতত সুস্থ হয়েছেন৷ তাই চিকিৎসকদের পরামর্শে তাঁদের দেশে ফেরানোর উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ প্রশাসন৷ শুক্রবার বিকেল চারটে নাগাদ উদ্ধারকারী বিমানটি পাঠানো হয়েছে ইয়াঙ্গনে৷ তাতে ফিরবেন চার যাত্রী, দুই পাইলট, দুই গ্রাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার, দু’জন কেবিন ক্রু৷ বিমানের জনসংযোগ আধিকারিক শাকিল মিরাজ জানিয়েছেন, বুধবার বিমানটি রানওয়েতে নামতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ছিটকে তিন টুকরো হয়ে যায়৷ তবে স্বস্তির খবর এই যে, এত বড় দুর্ঘটনার মধ্যেও কোনও যাত্রীর প্রাণহানি হয়নি৷ বিমানসংস্থার ভারপ্রাপ্ত এমডি ফারহাত হাসান জামিল জানিয়েছেন, বিমানটি ব্যবহার তো দূরের কথা, আর দেশে ফেরানোই সম্ভব নয়৷ তাই আহত যাত্রীদের ফেরাতে বিশেষ বিমানের ব্যবস্থা করা হয়েছে৷

[আরও পড়ুন: মাশরাফিকে নিয়ে বিতর্কিত পোস্টের জের, ৬ চিকিৎসককে শোকজ]

এমন এক দুর্ঘটনাগ্রস্ত বিমানের যাত্রীদের চোট তো আছেই৷ তার উপর একেবারে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসায় অনেকে ট্রমায় চলে গিয়েছেন৷ তাঁদের যথাযথ চিকিৎসার মাধ্যমে  সুস্থ করা প্রয়োজন৷ এমন যাত্রীদের দেশে ফেরানো নিয়ে প্রাথমিকভাবে চিন্তিত ছিলেন প্রশাসনের কর্তারা৷ কিন্তু তারপর ইয়াঙ্গনের চিকিৎসকদের সঙ্গে পরামর্শ করে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে খবর৷ তবে বুধবারের বিমান দুর্ঘটনার পর থেকে বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিভিন্ন বিমান বাতিল হচ্ছে৷ ভারত, ইয়াঙ্গন, কাঠমাণ্ডুগামী কয়েকটি বিমান গত তিনদিনে বাতিল হওয়ায় সমস্যার মুখে পড়ছেন যাত্রীরা৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং