×

৫ চৈত্র  ১৪২৫  বৃহস্পতিবার ২১ মার্চ ২০১৯   |   শুভ দোলযাত্রা।

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও #IPL12 ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকারঢাকা:  গুরুতর অসুস্থ আওয়ামি লিগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসা চলছে বিখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দেবী শেঠির পরামর্শে। তাঁকে দ্রুত সিঙ্গাপুরে নিয়ে যাওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য  ডাক্তার কনককান্তি বড়ুয়া। এই খবর নিশ্চিত করেছেন আওয়ামি লিগের সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল। বিএসএমএমইউ’র সহ উপাচার্য অধ্যাপক ডাক্তার শহিদুল্লা শিকদার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা এখন বিদেশ নিয়ে যাওয়ার মতো।  তিনি আরও জানান, এশিয়ার বিখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ  দেবী শেঠির পরামর্শে দলের সাধারণ সম্পাদককে দ্রুত সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

[‘জেহাদি বধূ’ শামিমাকে নিয়ে দেশে ফিরতে চায় ডাচ স্বামী়]

সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠি সোমবার দুপুরে ঢাকায় পৌঁছান। তাঁকে ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দরে  স্বাগত জানান বিএসএমএমইউ’র প্রিভেনটিভ অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডাক্তার হারিসুল হক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোক্টর অধ্যাপক মোজাফফর আহমেদ। 
আওয়ামি লিগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম  হানিফ সাংবাদিকদের জানান, মেডিক্যাল বোর্ডের সঙ্গে দেবী শেঠির বৈঠক হয়েছে। আগে গঠিত ১৯ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ডের সঙ্গে সমন্বয় করে নতুন মেডিক্যাল বোর্ড গঠিত হয়েছে। সেখানেই কাদেরের চিকিৎসা সংক্রান্ত সব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ডাক্তার দেবী শেঠি সিঙ্গাপুর থেকে আসা বিশেষজ্ঞ টিমের সঙ্গেও কথা বলেন। তিন পক্ষের বৈঠকে ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার পরবর্তী পদ্ধতি ঠিক করা হয়। এর আগে রবিবার রাতে ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি। তাই চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর থেকেই তিনজনের চিকিৎসক দল ঢাকায় পৌঁছায়। আওয়ামি লিগ সূত্রে খবর, সোমবারের মধ্যেই কাদেরকে সিঙ্গাপুরে নিয়ে যাওয়া হবে। ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে সিঙ্গাপুরের বেশ কয়েকজন চিকিৎসক এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে থাকবেন।  

[রোহিঙ্গাদের পাশে চিন, বাংলাদেশের প্রস্তাব মেনে ‘সেফ জোন’ তৈরিতে সায়]

রবিবার ভোরে নমাজপাঠের পর শ্বাসকষ্টের সমস্যা হওয়ায় দ্রুত হাসপাতালে ভরতি করাতে হয় ওবায়দুল কাদেরকে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, কাদেরের ডায়বেটিস ছিল। কিন্তু সেই সংক্রান্ত পরীক্ষা অনিয়মিত ছিল। এছাড়া রক্তচাপের সমস্যাও ছিল। আগেও দু-একবার হার্ট অ্যাটাক হয়েছে তাঁর। নিয়মিত যেসব শারীরিক পরীক্ষা করার কথা, তা হত না। সব মিলিয়ে, তাঁর শারীরিক অবস্থার হঠাৎ এত অবনতি হয়েছিল। তবে সোমবার সকাল ৯টার পর থেকে অবস্থা ধীরে ধীরে উন্নতি হওয়ায় সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং