BREAKING NEWS

০৫ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  রবিবার ২২ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

নিজভূমে ফিরতে চাইছেন না আতঙ্কিত রোহিঙ্গারা   

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: November 17, 2018 3:50 pm|    Updated: November 17, 2018 3:50 pm

Rohingya repatriation in limbo

সুকুমার সরকার, ঢাকা: ফের বিফল রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রত্যাবাসনের চেষ্টা৷ শুক্রবারও মায়ানমারে ফেরত পাঠানো গেল না রাখাইন থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গাদের৷ দেশের ভিটেমাটির টান যে বুকে নেই তা নয়, কিন্তু বার্মিজ সেনার আতঙ্ক বড় বালাই৷ তাই প্রাণের তাগিদে বাংলাদেশেই থাকতে চাইছেন শরণার্থীরা৷ এদিকে মায়ানমারের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রসংঘে আরেকটি প্রস্তাব পাস করা হয়েছে৷ 

[নভেম্বরে প্রথম ধাপে ৫ হাজার রোহিঙ্গা ফেরত নেবে মায়ানমার]

ঢাকা সূত্রে খবর, শরণার্থীদের একাংশকে ফেরত নিতে রাজি মায়ানমার৷ কিন্তু রাষ্ট্রসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনের সম্মতি ছাড়া প্রত্যাবাসন শুরু করা যাচ্ছে না। এছাড়াও রাখাইন প্রদেশে ফিরতে নারাজ খোদ রোহিঙ্গারাই৷ তাদের অভিযোগ, ফেরত গেলে বার্মিজ সেনার হাত থেকে তাদের কেউ বাঁচাতে পারবে না৷ তাই নিরাপত্তার বিষয়টি সুনিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশেই থাকতে চাইছে রোহিঙ্গারা৷ উল্লেখ্য, ৩০ অক্টোবর ঢাকায় যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক হয়৷ ঘোষণা করা হয় ১৫ নভেম্বর থেকে শুরু হবে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া। ওই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত হয়, প্রথম দফায় ২ হাজার ২৬০ জন রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠানো হবে। সেই মতো বৃহস্পতিবার শরণার্থীদের নিয়ে যাওয়া হয় সীমান্তে৷ তবে শেষ মুহূর্তে তারা রাজি না হওয়ায় ও আন্তর্জাতিক বিরোধিতার মুখে পড়ে আটকে যায় প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া৷ শুক্রবারও শরণার্থীদের ফেরত পাঠাতে ব্যর্থ হয় প্রশাসন৷ 

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞদের মতে, রোহিঙ্গা ইস্যুতে ক্রমেই কোণঠাসা হয়ে পড়ছে হাসিনা সরকার৷ মানবিকতার খাতিরে শরণার্থীদের জায়গা দিলেও, রোহিঙ্গাদের নিয়ে অসন্তোষে বাড়ছে স্থানীয়দের মধ্যে৷ এছাড়াও প্রায় ১১ লক্ষ উদ্বাস্তুদের আশ্রয় দিয়ে প্রবল চাপের মুখে পড়েছে দেশটির অর্থনীতি৷ সব মিলিয়ে রোহিঙ্গা ইস্যু প্রভাব ফেলবে সাধারণ নির্বাচনে৷ তাই দ্রুত প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরু করতে চাইছে সরকার৷                   

[আরও মজবুত সম্পর্ক, এবার কলকাতা-হলদিয়া বন্দর ব্যবহার করবে বাংলাদেশ] 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে