BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

কয়েক বছরের মধ্যেই অর্ধেক হবে বাংলাদেশের জনসংখ্যা! বলছে মার্কিন গবেষণা

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 16, 2020 1:14 pm|    Updated: July 16, 2020 1:14 pm

An Images

ফাইল ফটো

সুকুমার সরকার, ঢাকা: আগামী কয়েক বছরের মধ্যেই পৃথিবীর জনসংখ্যা অনেক কমে আসবে বলে দাবি করছেন আমেরিকার ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয় (University of Washington) -এর একদল গবেষক। এই শতাব্দী শেষ হওয়ার আগেই এই পরিবর্তন আসবে বলেও আশঙ্কা তাঁদের। এর ফলে বিশ্বের অন্যতম জনবহুল দেশ বাংলাদেশের জনসংখ্যাও অর্ধেক হবে বলে জানা গিয়েছে।

সম্প্রতি বিখ্যাত মেডিক্যাল জার্নাল ‘দ্য ল্যানসেট (The Lancet)’ -এ প্রকাশিত হয়েছে এই সংক্রান্ত গবেষণার রিপোর্ট। তাতে উল্লেখ করা হয়েছে, আজ থেকে ৮০ বছর পর বাংলাদেশের জনসংখ্যা কমে ৮ কোটি ১৩ লক্ষ দাঁড়াতে পারে। তবে ২০৩০ সালের মধ্যে রাষ্ট্রসংঘের ঘোষিত সাসটেনেবল ডেভেলপমেন্ট গোলস (SDG) বাস্তবায়িত হলে এই সংখ্যা আরও কমার সম্ভাবনা রয়েছে। ২০১৭ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বাংলাদেশের জনসংখ্যা ছিল ১৫ কোটি ৬৯ লক্ষ। ৮০ বছর পর এই সংখ্যা কমে দাঁড়াবে ৮ কোটি ১৩ লক্ষ। আর রাষ্ট্রসংঘের আশঙ্কা সত্যি হলে আরও কমে হবে ৭ কোটি ৪১ লক্ষ।

[আরও পড়ুন: বাংলাদেশে তুঙ্গে জাল করোনা রিপোর্টের ব্যবসা, কলকাতা পালাতে গিয়ে জালে অভিযুক্ত ]

ওই আরও প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের জনসংখ্যা সবচেয়ে বেশি থাকবে ২০৩৯ সালে। ওই সময় দেশের মোট জনসংখ্যা হতে পারে প্রায় ১৭ কোটি ৩৪ লক্ষ। এই সময়ে বাংলাদেশে জন্মহারও কমে আসবে অনেকটা। ২০১৭ সালে বাংলাদেশে জন্মহার ছিল প্রায় ২ শতাংশ। ২১০০ সালে এটি কমে আসতে পারে ১.১৯ শতাংশে। আর রাষ্ট্রসংঘের হিসেব অনুযায়ী চললে এটি দাঁড়াবে ১. ১৭ শতাংশে।

৮০ বছর পর বিশ্বের মোট জনসংখ্যা ৮৮০ কোটি হতে পারে বলেও দাবি করছেন ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। এই সংখ্যা রাষ্ট্রসংঘের অনুমানের চেয়ে প্রায় ২০০ কোটি কম। তবে বিশ্বের জনসংখ্যা সর্বোচ্চ থাকবে ২০৬৪ সালে, প্রায় ৯৭০ কোটি। বাংলাদেশের মতো স্পেন, জাপান ও ইটালির জনসংখ্যাও অর্ধেক কমার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে আগামী ৮০ বছরে আফ্রিকার জনসংখ্যা বাড়বে প্রায় তিনগুণ। এই শতাব্দী শেষে তরুণদের তুলনায় বৃদ্ধের সংখ্যা অনেকটাই বেড়ে যাবে। ২১০০ সালের মধ্যে ৬৫ বছরের বেশি বয়সীদের সংখ্যা দাঁড়াবে প্রায় ২৪০ কোটি। বিপরীতে ২০ বছরের কম বয়সীদের সংখ্যা হবে মাত্র ১৭০ কোটি। জনসংখ্যা কমার কারণ হিসেবে নারীশিক্ষার উন্নয়ন এবং জন্মনিরোধক পদ্ধতি সহজলভ্য হওয়ার কথা উল্লেখ করেছেন গবেষকরা।

[আরও পড়ুন: করোনার সংক্রমণের মধ্যেই ভয়াবহ বাংলাদেশের বন্যা পরিস্থিতি, জলমগ্ন ১৭টি জেলা]

উদাহরণস্বরূপ, আগামীতে আফ্রিকার জনসংখ্যা ব্যাপক হারে বাড়লেও সেখানকার জন্মহার যথেষ্ট কমে আসবে। ২০১৭ সালে এ অঞ্চলে জনপ্রতি নারীদের সন্তান জন্মদানের হার ৪.৬ শতাংশ হলেও ২১০০ সালে তা কমে দাঁড়াবে মাত্র ১. ৭। গবেষকদের মতে, নারীশিক্ষার বিস্তার, সহজলভ্য গর্ভনিরোধকের সুবিধা এবং জন্মহার হ্রাসের ধারা কোনওভাবে বাধাগ্রস্ত হলেও বিশ্বের জনসংখ্যা বৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement