২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফের রাজ্যে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের তুলনায় বেশি করোনাজয়ী, ঊর্ধ্বমুখী সুস্থতার গ্রাফও

Published by: Sulaya Singha |    Posted: August 11, 2020 8:32 pm|    Updated: August 11, 2020 8:54 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজ্যজুড়ে বাড়ছে সংক্রমণ। আর সেই সঙ্গে প্রতিদিনই চিন্তার ভাঁজ গভীর হচ্ছে বঙ্গবাসীর। কিন্তু গত দুদিন ছবিটা একটু অন্যরকম। বলা ভাল, পরিসংখ্যান স্বস্তিই দিচ্ছে। কারণ গতকালের মতো মঙ্গলবারও আক্রান্তের (Coronavirus) তুলনায় বেশি করোনাজয়ীর সংখ্যাই। এদিনও ৩ হাজারেরও বেশি রোগী করোনাকে জয় করে বাড়ি ফিরলেন। বাড়ল সুস্থতার হারও। যা নিঃসন্দেহে ইতিবাচক।

বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ ১০ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Modi)। যেখানে রাজ্যে বাড়তে থাকা সুস্থতার হার দেখে মোদি বলেন, দেশ সঠিক পথেই এগোচ্ছে। আর তারপরই রাজ্যের স্বাস্থ্যদপ্তরের পরিসংখ্যানে মিলল স্বস্তি। বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন ৩ হাজার ৬৭ জন। যার মধ্যে শুধু কলকাতাতেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮৭৭ জন। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত করোনামুক্ত ৭৩ হাজার ৩৯৫ জন। ঊর্ধ্বমুখী সুস্থতার গ্রাফ। রাজ্যের ৭১.৩৯ শতাংশ মানুষ করোনাকে হারিয়েছেন। তাঁরাই আশা জোগাচ্ছেন। মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হলেও যে সঠিক চিকিৎসায় সুস্থ হওয়া সম্ভব, এ কথাই যেন প্রমাণ করে দিচ্ছেন তাঁরা। নানা বয়সের মানুষই এই ভাইরাসকে হারাতে সফল হচ্ছেন।

[আরও পড়ুন: নিয়ম ভেঙে জমায়েত, দিলীপ-সহ বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে মহামারী আইনে দায়ের হচ্ছে মামলা]

এদিকে স্বাস্থ্যদপ্তরের বুলেটিন বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে সংক্রমিত ২,৯৩১ জন। যার মধ্যে শুধু কলকাতাতেই আক্রান্ত ৭১১ জন। উত্তর ২৪ পরগণায় একদিনে ৬৪৩ জনের শরীরে থাবা বসিয়েছে এই মারণ ভাইরাস। দক্ষিণ ২৪ পরগণায় আক্রান্ত ২২০জন। বাংলায় মোট সংক্রমিতের সংখ্যা পেরল ১ লক্ষের গণ্ডি। রাজ্যে করোনার কবলে মোটি ১ লক্ষ ১ হাজার ৩৯০ জন। স্বস্তি দিয়ে কমল অ্যাকটিভ কেসও। বর্তমানে বাংলার মোট অ্যাকটিভ কেস ২৫ হাজার ৮৪৬। তবে এখনও ঘটছে প্রাণহানি। একদিনে রাজ্যে করোনার বলি ৪৯ জন। কেবলমাত্র এ শহরেই একদিনে ১৮ জন প্রাণ হারিয়েছেন। মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ২,১৪৯।

লকডাউন, সামাজিক দূরত্ব পালনের পাশাপাশি ট্রেসিং, ট্র্যাকিং, টেস্টিংয়ের মাধ্যমেও করোনাকে নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে।উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে টেস্টিংয়ের সংখ্যা। একদিনে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২৭ হাজার ১৫টি। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট স্যাম্পেল টেস্ট হয়েছে ১১ লক্ষ ৫৯ হাজার ২১১টি।

[আরও পড়ুন: করোনা ভ্যাকসিনের ব্যবহার নিয়ে গাইডলাইন দিক কেন্দ্র, মোদির সঙ্গে বৈঠকে জানালেন মমতা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement