BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ট্রেনে হিজড়াদের তোলাবাজির দাপট, গ্রেপ্তার ৪

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 4, 2018 3:14 pm|    Updated: January 4, 2018 3:14 pm

An Images

সুব্রত বিশ্বাস: চলন্ত ট্রেনে হিজড়াদের মারে গুরুতর জখম হলেন চার যাত্রী। যাত্রীদের টাকা পয়সা কেড়ে নেওয়ার ঘটনাও ঘটে। বুধবার গভীর রাতে বর্ধমান থেকে হাওড়ার মাঝে অঙ্গদ এক্সপ্রেসে এই ঘটনায় অভিযুক্ত চার হিজড়াকে গ্রেপ্তার করে হাওড়া রেল পুলিশ। পরে অভিযুক্তদের বর্ধমান রেল পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

[হাড় জুড়তে গিয়ে বালকের মৃত্যু, চাঞ্চল্য মেডিক্যাল কলেজে]

রেল পুলিশ জানিয়েছে, গভীর রাতে বর্ধমানে ট্রেনটি দাঁড়ানোর পর অসংরক্ষিত কামরায় চার হিজড়া উঠে। এর পর যাত্রীদের গায়ে-গালে হাত দিয়ে টাকা আদায় করতে থাকে। প্রতিবাদ করেন কয়েকজন যাত্রী। এর পরেই শুরু হয় বচসা। তার পর যাত্রীদের মারধর শুরু করে হিজড়ারা। দুই যাত্রীদের কাছ থেকে ৪০০ টাকাও কেড়ে নেয়। প্রায় দু’ঘণ্টার এই তাণ্ডবে বিরক্ত যাত্রীরা হাওড়ায় এসে রেল পুলিশের কাছে অভিযোগ করলে চারজন হিজড়াকে গ্রেপ্তার করে রেল পুলিশ। বুধবার রাত দেড়টা নাগাদ এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাওড়া স্টেশনে রীতিমতো হইচই শুরু হয়ে যায়। যাত্রীদের অভিযোগ, অভিযোগ, দূরপাল্লা থেকে লোকাল ট্রেনে বহুদিন ধরে এই দৌরাত্ম্য চলছে। অথচ রেল প্রশাসন তেমন কোনওরকম পদক্ষেপই নেয়নি।

কিন্তু কেন হিজড়াদের প্রতি সম্ভ্রম দেখানো হয়? অভিজ্ঞ যাত্রীদের কথায়, মহাভারতে যুদ্ধে জয় পেতে পাণ্ডুপুত্র সহদেবকে গণনার নির্দেশ দেন কৃষ্ণ। সহদেব জানান, জয় পেতে উপযুক্ত যোদ্ধাকে বলি দিতে হবে। কিন্তু এমন যোদ্ধা অর্জুন ছাড়া কাকে পাওয়া যায়? এগিয়ে এলেন অর্জুন-পুত্র ইরাবান। তবে তাঁর একটিই শর্ত, এক রাতের জন্য এমন এক স্ত্রী খুঁজে দিতে হবে যিনি তাঁর মৃত্যুর পর বিলাপ করে কাঁদবেন। রাজি হলেন স্বয়ং বাসুদেব। তিনিই ধারণ করলেন মনমোহিনী রূপ। একরাতের জন্য বিবাহ করলেন ইরাভানকে। বীরের বলির পর স্বামীর শবের সামনে বিলাপ করে কাঁদলেন মুরলীধর। পুরাণের এই গাথার কথা স্মরণ করেই হিজড়াদের প্রতি সম্ভ্রম দেখানো হয়।

[মানসিক ভারসাম্যহীন যুবতীকে একাধিকবার ধর্ষণ, অভিযুক্ত পুরকর্মীকে গণধোলাই]

তবে এই সুযোগে হিজড়াদের দাপট এখন সীমাহীন বলে মনে করেছেন যাত্রীরা। পাশাপাশি এখন ফ্ল্যাট কালচারে হিজড়াদের বাচ্চা নাচানোর কাজও প্রায় বন্ধ। ফলে এই দৌরাত্ম্য এখন সীমাহীন। রেল অবশ্য জানিয়েছে, হিজড়াদের দৌরাত্ম্যের অভিযোগ না আসায় তেমন পদক্ষেপ নেওয়া সম্ভব হয়নি। বিনা টিকিটে ভ্রমণের অপরাধে আটকনো সম্ভব হলেও দৌরাত্ম্যের অভিযোগ আনা সম্ভব হচ্ছে না।

[মুখ্যমন্ত্রীর মমতায় অসুস্থ শিশুর চিকিৎসা বীরভূমে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement