BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

উৎসবের মধ্যে লাগামছাড়া সংক্রমণ, কলকাতায় একদিনে করোনা আক্রান্ত প্রায় ৯০০

Published by: Sulaya Singha |    Posted: October 24, 2020 8:32 pm|    Updated: October 24, 2020 8:38 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সেই চতুর্থীতেই ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছিল ৪ হাজারের গণ্ডি। তারপর থেকে তা ঊর্ধ্বমুখীই। মহাষ্টমীতেও বদলাল না চেহারাটা। উদ্বেগ বাড়িয়ে সপ্তমীর থেকে খানিকটা বৃদ্ধিই পেল সংক্রমণ।

শুক্রবার সন্ধেয় স্বাস্থ্য দপ্তের বুলেটিন বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা হয়েছেন ৪ হাজার ১৪৮ জন। শুক্রবার সংখ্যাটা ছিল ৪ হাজার ১৪৩ জন। এদিন বাংলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩ লক্ষ ৪৫ হাজার ৫৭৪ জন। যার মধ্যে শুধু কলকাতাতেই আক্রান্ত ৮৯৫ জন। এর ঠিক উপরেই রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা। সেখানে একদিনে আক্রান্ত হয়েছে ৮৯৬ জন। গতকালের তুলনায় যা খানিকটা বেশি। উত্তরে সর্বাধিক আক্রান্ত হয়েছে পর্যটকে ঠাসা দার্জিলিং-এ। সেখানে একদিনে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ১৭৫ জন। উল্লেখযোগ্যভাবে সংক্রমণ বেড়েছে নদিয়াতেও। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ২৪৪ জনের শরীরে মিলেছে ভাইরাসের (Coronavirus) হদিশ। চিন্তা বাড়াচ্ছে হাওড়া (২২৪), দক্ষিণ ২৪ পরগণাও (২২৯)।

মহাষষ্ঠীতে যেখানে করোনায় মৃত্যু ছিল ৬৪ জন, এদিন সেই সংখ্যা একটু কমে দাঁড়িয়েছে ৫৯-য়। যেখানে তিলোত্তমাতেই ২৪ ঘণ্টায় করোনার বলি ১৯ জন। ফলে শনিবার করোনায় রাজ্যে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৪২৭ জন।

[আরও পড়ুন: ব্রিটিশ শাসকদের হুঁশিয়ারি উপেক্ষা করেও চলেছে দুর্গা আরাধনা, করোনা কালে প্রথমবার বন্ধ পুজো]

যদিও উৎসবের মরশুমে এই উদ্বেগের মধ্যেই রাজ্যবাসীকে সামান্য স্বস্তি দিয়েছে সুস্থতার হার। রাজ্যের তথ্য বলছে, একদিনে করোনা জয় করে প্রিয়জনদের কাছে ফিরে গিয়েছেন ৩ হাজার ৭৫৩ জন। ফলে বর্তমানে বাংলায় করোনাজয়ীর মোট সংখ্যা ৩ লক্ষ ২ হাজার ৩৪০ জন।

উৎসবের মরশুমে রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি যে আরও ভয়াবহ রূপ নেবে, তা আগেই আশঙ্কা করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। সে সব আশঙ্কার কথা মাথায় রেখে চলতি বছর মণ্ডপে দর্শনার্থী প্রবেশের ক্ষেত্রে জারি হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। বাইরে বেরলেই মাস্ক ব্যবহারের উপর দেওয়া হচ্ছে জোর। এছাড়া কোভিড বিধি মেনে স্যানিটাইজার ব্যবহারের কথাও বলা হচ্ছে। রাজ্যবাসীর মধ্যে কিছুটা হলেও সতর্কতা দেখা গিয়েছে। বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসবে রাস্তায় ভিড় তুলনামূলক কম। তবে কোনওভাবেই স্বস্তি দিচ্ছে না সংক্রমণের গ্রাফ।

[আরও পড়ুন: ‘তোমাদের ছেড়ে থাকতে পারব না’, যুব মোর্চার পদ থেকে ইস্তফার সিদ্ধান্ত বদলের পর দাবি সৌমিত্রর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement