BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রেমের টানে সীমান্ত পেরিয়ে জলপাইগুড়িতে, কী হাল হল বাংলাদেশি যুবকের?

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 12, 2017 9:16 am|    Updated: September 19, 2019 5:45 pm

An Images

শান্তনু কর, জলপাইগুড়ি: কবির কথায়, প্রেমের ফাঁদ পাতা ভুবনে। সত্যিই তো, প্রেমকে আর কবেই বা দেশকালের গণ্ডিতে আবদ্ধ থেকেছে! কিন্তু, বাস্তব যে বড়ই কঠিন। তাই জলপাইগুড়িতে প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে এসে ধরা পড়ে গেলেন এক বাংলাদেশি যুবক। ভিনদেশি প্রেমিকের গ্রেপ্তারিতে ভেঙে পড়েছেন প্রেমিকা। পুলিশের কাছে তাঁর কাতর আরজি, ভালবাসার মানুষটিকে মুক্তি দেওয়া হোক। আইন মেনে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেও মহা ফাঁপড়ে পড়েছে জলপাইগুড়ি কোতয়ালি থানার পুলিশ। ঠিক হয়েছে, ওই বাংলাদেশি যুবককে আদালতে তোলা হবে। আদালত যা বলবে, তাই হবে।

[গণধর্ষণের পর দু’বার অপহরণ, চার মাস খোঁজ নেই রতুয়ার নাবালিকার]

দিনভর মোবাইলে কতই না মিসকল আসে। কেউ কেউ মিসকল দেখেও এড়িয়ে যান, কেউ আবার কৌতুহলের বশে পালটা ফোনও করেন। বছর দেড়েক আগে তেমনই একটি মিসকলের সূত্রেই জলপাইগুড়ির দোডালিয়া গ্রামের এক যুবতীর সঙ্গে আলাপ হয়েছিল বাংলাদেশের যুবক অন্তর সিংহর। ওই যুবতী এমএ পাঠরতা। অন্তরের বাড়ি বাংলাদেশের পঞ্চগড় জেলার ঠাকুরের নগরের বালিয়া গ্রামে। স্থানীয় স্কুলের পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেছেন তিনি। ফোনে নিয়মিত কথা হত দুজনের। ক্রমে ঘনিষ্ঠতা ও প্রেম। কিন্তু, প্রেম গভীর হলেও, দেখা করার সুযোগ ছিল না। এভাবেই দিন কাটছিল। হঠাৎই একদিন জলপাইগুড়ির ওই যুবতী, তাঁর ভিনদেশি প্রেমিককে দেখা করার প্রস্তাব দেয়। প্রেমিকার ডাক ফেরাতে পারেননি অন্তর। পুলিশ জানিয়েছে, কয়েক দিন আগে সীমান্ত পেরিয়ে জলপাইগুড়ির দোডালিয়া গ্রামে প্রেমিকার বাড়িতে চলে আসেন তিনি।

[বাড়িতে শৌচালয় থাকলে মিলবে মার্কশিট, নির্দেশিকা স্কুলের]

ওই যুবতীর বাবা কৃষক। পরিবারের আর্থিক অবস্থাও তেমন ভাল নয়। সবকিছু জেনেও প্রেমিকার বাড়িতেই থাকছিল অন্তর। গ্রামবাসীদের সন্দেহ হয়। স্থানীয় পাঠকাটা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান প্রধান হেমব্রমকে বিষয়টি জানান তাঁরা। খবর যায় জলপাইগুড়ির কোতয়ালি থানায়। ওই যুবতীর বাড়ি গিয়ে বাংলাদেশি যুবক অন্তর সিংহকে জেরা করতেই আসল ঘটনা জানা যায়। বেআইনিভাবে এদেশে প্রবেশ করার অভিযোগে তাঁকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। কিন্তু, ভিনদেশি প্রেমিক যে ভিসা-পাসপোর্ট ছাড়া এদেশে এসে অপরাধ করেছেন, তা মানতেই চাইছেন না ওই যুবতী। পুলিশের কাছে তাঁর কাতর আরজি, বাংলাদেশি ওই যুবককে ছেড়ে দেওয়া হোক। ফলে মহাসমস্যায় পড়েছে পুলিশও। তাঁরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, অন্তর সিংহকে আদালতে তোলা হবে। আদালত যা বলবে, তাই হবে।

[জাল ডাক্তারের মতো ভুয়ো রেজিস্ট্রারের বাড়বাড়ন্ত, বহু বিয়ে বাতিল]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement