BREAKING NEWS

১৭ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শনিবার ৪ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

এবার সড়কপথে মালদহ-বিহার জুড়ছে নাককাট্টি সেতু

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 8, 2016 9:40 am|    Updated: November 8, 2016 9:40 am

A Bridge On River Fulahar At Nakkatti Will Connect Malda And Bihar

স্টাফ রিপোর্টার: এবার সড়কপথে জুড়ছে মালদহ-বিহার৷ রতুয়ার নাককাট্টি থেকে মহানন্দাটোলা পর্যন্ত ফুলহার নদীর উপর প্রস্তাবিত নাককাট্টি সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হলেই সড়কপথে সরাসরি যুক্ত হবে মালদহ ও কাটিহার৷ মালদহ থেকে পাটনা পর্যন্ত দূরপাল্লার বাসও চলবে৷ শুধু অপেক্ষা আর তিন বছরের৷
মালদর শহর থেকে আর রায়গঞ্জ-ডালখোলা পূর্ণিয়া ঘুরে বিহারে পৌঁছতে হবে না৷ রতুয়ার ফুলহারে নাককাট্টি সেতু নির্মাণ হলেই মালদহ-বিহার সড়কপথে প্রায় ১১০ কিলোমিটার দূরত্ব কমে যাবে৷ শুধু তাই নয়, উপকৃত হবেন রতুয়ার মহানন্দাটোলা ও বিলাইমারি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দারা৷ নৌকায় প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে নদী পারাপার করতে হয় তাঁদের৷ মহানন্দাটোলার বিকাশ মণ্ডল, অভিজিৎ মণ্ডলদের কথায়, ‘‘আমাদের স্বপ্নের সেতুর কাজ কবে শেষ হবে, সেই অপেক্ষায় রয়েছি আমরা৷ দিয়ারা চরে আগুন লাগলে জলপথে দমকলের ইঞ্জিনও গ্রামে পৌঁছতে পারে না৷ সেতু হলে সব সমস্যাই মিটে যাবে৷” বিহারের কাটিহার জেলার ৮-১০ টি ব্লকের মানুষও উপকৃত হবেন৷ তাঁদেরও ঘুরপথে মালদহে পৌঁছতে হবে না৷ সেতুর সুবাদে সরাসরি যাতায়াত করতে পারবেন৷
রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পদে থাকাকালীন ২০১২ সালে এই সেতু নির্মাণের জন্য অর্থ বরাদ্দ হয়৷ তারপর সাত নম্বর জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের অধীনে সেতুটি নির্মাণের কাজ শুরু করে হায়দরাবাদের একটি সংস্থা৷ মালদহের রতুয়া-ভালুকা রাজ্য সড়ক থেকে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দূরে ফুলহার নদীর নাককাট্টি ঘাট৷ আর নদীর ওপারে দিয়ারাচরে রয়েছে মহানন্দাটোলা ও বিলাইমারি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা৷ স্বাধীনতার পর থেকেই দিয়ারাচরের বাসিন্দারা ফুলহারের উপর একটি সেতু তৈরির দাবি তুলেছিলেন৷ স্থানীয় বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায় এই দাবি নিয়ে দিল্লিতে বহুবার দরবার করেছিলেন বলে জানিয়েছেন৷ বিধায়ক বলেন, অন্তত দশ বছর ধরে দিল্লিতে দরবার করেছি৷ অবশেষে তৎকালীন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী প্রণববাবু প্রকল্পটিকে সিলমোহর দিয়েছিলেন৷ সেতু হলেই চরের বাসিন্দাদের জীবনযাত্রার মান বদলে যাবে৷ বাংলা ও বিহার, দুই রাজ্যের মধ্যে যোগাযোগের একটা বিকল্প রাস্তা তৈরি হবে৷’’
জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ফুলহারের উপর প্রস্তাবিত ৮১৬ মিটার দীর্ঘ সেতু নির্মাণের কাজ চলছে জোর কদমেই৷ তৈরি হবে সেতুর সংযোগকারী সড়কও৷ প্রথম পর্যায়ে এই কাজের জন্য ২২৫ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়৷ পরে মালদহ থেকে কাটিহার পর্যন্ত ১৩১(এ) জাতীয় সড়ক নির্মাণের জন্য আরও ২৬৫ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে৷ রতুয়া-১ নম্বর ব্লকের জয়েন্ট বিডিও বলেন, “সেতুটি নির্মাণ হলেই দিয়ারাচর এলাকা আর দুর্গম থাকবে না৷ মালদহের মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে জুড়ে যাবে৷” এখন সেতু কবে শেষ হওয়ার দিকেই তাকিয়ে মালদহ জেলা ও বিহারের বিস্তীর্ণ এলাকার বাসিন্দারা৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে