১৭  শ্রাবণ  ১৪২৯  সোমবার ৮ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

লকডাউনে অনাহারে ভবঘুরেরা, সাহায্যের হাত বাড়ালেন গুসকরার ব্যবসায়ী

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: March 26, 2020 7:50 pm|    Updated: March 26, 2020 7:50 pm

A businessman feeds some people during lockdown

ধীমান রায়, কাটোয়া: করোনা সংক্রমণ এড়াতে দেশজুড়ে জারি লকডাউন। দোকানপাট বন্ধ। বাজারহাট শুনশান। রেলস্টেশন, বাসস্ট্যান্ড, সড়কও জনমানবহীন। এতে প্রবল সমস্যায় পড়েছেন সেই সব মানুষেরা যারা বাজারের দোকানে দোকানে ঘুরে কোনওক্রমে পেট চালান। তাঁদের কথা ভেবে এগিয়ে এলেন পূর্ব বর্ধমান জেলার গুসকরা শহরের এক ব্যবসায়ী। সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন তিনি।

গুসকরা শহরের ক্ষেত্রপালতলার বাসিন্দা ওই ব্যবসায়ীর নাম সুবীর রানা। লকডাউনের দিনগুলিতে গুসকরা শহরে ঘুরে বেড়ানো ভবঘুরেদের দু’বেলা করে খাওয়ানোর দায়িত্ব নিয়েছেন তিনি। বৃহস্পতিবার থেকেই এলাকার ভবঘুরেদের হাতে তুলে দিচ্ছেন অন্ন। এদিন নিজের বাড়িতেই রান্না করে বাড়ির সামনে নির্দিষ্ট দূরত্ব অন্তর বসিয়ে ভবঘুরেদের খাওয়ালেন সুবীরবাবু। তাঁর এই উদ্যোগ ও মহানুভবতার প্রশংসা করেছেন অনেকেই। অসময়ে অন্নদাতার ভুমিকায় সুবীরবাবুকে পেয়ে তাকে দু’হাত তুলে আশীর্বাদ করছেন অসহায় মানুষগুলিও।

burdwan-2

[আরও পড়ুন:আটকে পড়া বাংলার শ্রমিকদের সাহায্যের আবেদন, ১৮ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি মমতার]

জানা গিয়েছে, গুসকরা রেলস্টেশন ও তার আশপাশ এলাকা বেশ কয়েকজন ভবঘুরের আশ্রয়স্থল। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন শারীরিক প্রতিবন্ধী কয়েকজন। কেউ অন্ধ, কেউ হাঁটতে পারেন না। তাই লকডাউন ঘোষণার পর কার্যত অনাহারে দিন কাটছিল তাঁদের। সেই কথা চিন্তা করেই সুবীরবাবুর এই উদ্যোগ। জানা গিয়েছে, সুবীরবাবু প্রায় বছর চারেক ধরে প্রতি রবিবার নিজের খরচে ভবঘুরেদের খাওয়াতেন একবেলা করে। সুবীরবাবু বলেন, “আগে সপ্তাহে একদিন খাওয়াতাম। কিন্তু সপ্তাহে একদিন খেয়ে তো মানুষ বাঁচতে পারে না। তাই যতদিন লকডাউন না উঠছে ততদিন দুবেলা করে খাওয়াবো।”

 ছবি: জয়ন্ত দাস

[আরও পড়ুন: কতটা দূরত্ব রেখে কেনাকাটা, জানবাজারের রাস্তায় ‘লক্ষ্মণরেখা’ টেনে বুঝিয়ে দিলেন মমতা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে