১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রাম মন্দির নিয়ে ফেসবুকে ‘বিতর্কিত’ মন্তব্য, ডাক্তারি পড়ুয়াকে ক্ষমা চাইতে বাধ্য করল বিজেপি

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: July 30, 2020 2:33 pm|    Updated: July 30, 2020 4:38 pm

An Images

ফাইল ফটো

বিক্রম রায়, কোচবিহার: রাম মন্দির (Ram Temple) নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘বিতর্কিত’ মন্তব্য করায় হেনস্তার শিকার কোচবিহারের এক ডাক্তারি পড়ুয়া। অভিযোগ, লাগাতার বিজেপির (BJP) তরফে তাঁকে হুমকি দেওয়া হয়। ডেকে নিয়ে গিয়ে হাত জোড় করে ক্ষমা চাইতে বাধ্য করা হয়। ইতিমধ্যেই বিষয়টি জানিয়ে তুফানগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে এসএফআইয়ের (SFI) তরফে।

জানা গিয়েছে, কোচবিহারের (Cooch behar) তুফানগঞ্জের ২ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা অমৃত আর্য নামে ওই ডাক্তারি পড়ুয়া। কলকাতার (Kolkata) এনআরএস মেডিক্যাল কলজের প্রথম বর্ষের ছাত্র সে। সূত্রের খবর, সম্প্রতি ফেসবুকে রাম মন্দির সম্পর্তিত একটি পোস্টে নিজস্ব মতামত তুলে ধরেছিলেন ওই যুবক। আর তারপর থেকেই ক্রমাগত বিজেপি কর্মীদের হুমকির মুখে পড়তে হচ্ছে তাঁকে। অভিযোগ, বুধবার তাঁকে ডেকে নিয়ে গিয়ে হেনস্তা করে কোচবিহারের বিজেপির নেতা-কর্মীরা। হাত জোড় করে ক্ষমা চাইতে বাধ্য করা হয়। পরবর্তীতে সেই ক্ষমা চাওয়ার ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়া হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে এলাকায়। যদিও বিজেপির তরফে এরকম কিছু করা হয়নি বলেই দাবি স্থানীয় নেতৃত্বের।

AMRITA-ARYA

[আরও পড়ুন: শ্লীলতাহানিতে অভিযুক্ত, সালিশি সভায় নির্যাতন, সাগরের বিজেপি কর্মীর রহস্যমৃত্যুতে নয়া মোড়]

প্রসঙ্গত, গত বছর সুপ্রিম কোর্টের রায়দানের পরই মন্দির তৈরির প্রস্তুতির তোড়জোড় শুরু হয়ে গিয়েছিল। ৫ আগস্ট রাম মন্দিরের ভূমিপুজো। সেখানে হাজির থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। ওইদিন দুপুর সোয়া বারোটায় ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করার কথা। তিনদিন ধরে চলবে রীতি-রেওয়াজ। তবে করোনা আবহে ২০০ জনই অনুষ্ঠানে উপস্থিতি থাকতে পারবেন বলে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: ‘তৃণমূলের কর্মচারীরা বিজেপিতে এসে কার্যকর্তা’, নাম না করে অর্জুন সিংকে বার্তা দিলীপের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement