১৭ চৈত্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ৩১ মার্চ ২০২০ 

Advertisement

ক্রাইম থ্রিলার দেখে অনুকরণের নেশা, গলায় দড়ির ফাঁস দিয়ে মৃত্যু স্কুলপডু়য়ার

Published by: Sayani Sen |    Posted: February 28, 2020 12:15 pm|    Updated: February 28, 2020 12:34 pm

An Images

বাবুল হক, মালদহ: কার্টুন ছেড়ে ক্রাইম থ্রিলার দেখতে শুরু করেছিল বছর দশেকের ছেলেটা। বাড়ির লোকজনও তাতে বাধা দেননি। ক্রাইম থ্রিলারের নেশাই যে ছেলের প্রাণ কেড়ে নিতে পারেন, তা ভাবতেও পারেননি পরিজনেরা। ক্রাইম থ্রিলারের দৃশ্য অনুকরণ করতে গিয়েই খেলার ছলে গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে মৃত্যু হল বছর দশেকের এক স্কুলছাত্রের। বুধবার রাতে বাড়ি থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তার দেহ উদ্ধার করে নিহতের বাবা-মা। মালদহের গাজোল থানার পাণ্ডুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের ধুয়াদিঘি গ্রামের এই ঘটনার আকস্মিকতায় অবাক প্রায় সকলেই। শিশুর দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। নিহত ওই শিশুর পরিবারের সঙ্গে কথা বলছেন তদন্তকারীরা।

রজনীকান্ত সাহা নামে ওই পড়ুয়া মালদহের গাজোল থানার পান্ডুয়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ধুয়াদিঘি গ্রামের বাসিন্দা। বাবা-মা ছাড়া আর কেউই নেই তার। বুধবার সন্ধেয় বাড়িতে ছিলেন না তাঁরা। ঘরে ঢুকে অবাক হয়ে যান ওই স্কুলছাত্রের বাবা-মায়েরা। তিনি দেখেন, ঘরের ফ্যান থেকে ঝুলছে ছেলের দেহ। চিৎকার চেঁচামেচি করতে শুরু করেন তিনি। প্রতিবেশীরাও জড়ো হয়ে যান। ভেজা চোখে নিহত ছাত্রের মা সরস্বতী সাহা বলেন, “বুধবার সন্ধ্যায় বাড়িতে ছিলাম না আমরা। ফিরে এসে দেখি সিলিং ফ‍্যান থেকে ঝুলছে ছেলে। ক্রাইম থ্রিলার দেখার শখ ছিল রজনীকান্তের। আর তা অনুকরণ করতে গিয়েই এমন কাণ্ড ঘটাল সে।”

[আরও পড়ুন: নাম না করে তৃণমূলকে বৃহন্নলা বলে আক্রমণ, ফের কুকথা সায়ন্তনের]

লোকমুখে রটে যায় এই ঘটনা। গাজোল থানার পুলিশ তড়িঘড়ি বছর দশেকের ছাত্রের বাড়িতে যায়। তার দেহ উদ্ধার করে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রজু করেছে পুলিশ। টিভিতে ক্রাইম থ্রিলার দেখে অনুকরণ করতে গিয়েই আদৌ মৃত্যু কি না, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। মৃত ওই শিশুর বাবা-মাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন তদন্তকারীরা। ছেলের মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছে গোটা পরিবার। সন্তান হারানোর দুঃখে পাথর হয়ে গিয়েছেন তাঁরা।

ক্রাইম থ্রিলার দেখে মাত্র দশ বছরের শিশুর মৃত্যু ভাবাচ্ছে মনোবিদদের। যে সময়ে শিশুদের কার্টুন ছাড়া কিছুই দেখা উচিত নয়, সেই সময় কেন তাকে ক্রাইম থ্রিলার দেখতে দেওয়া হত, তা নিয়েই প্রশ্ন তুলছেন মনোবিদরা। এই ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে অভিভাবকদের শিশুদের ক্রাইম থ্রিলার দেখা বন্ধের ব্যবস্থা করার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

Advertisement

Advertisement

Advertisement