৩ কার্তিক  ১৪২৬  সোমবার ২১ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

রঞ্জন মহাপাত্র, কাঁথি: দলীয় কার্যালয়ে ঢুকে পাঁশকুড়া পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতিকে লক্ষ্য করে ছ’রাউন্ড গুলি চালাল দুষ্কৃতীরা। মহানবমীর রাতে বাইকে চড়ে এসে কুরবান শা নামে ওই তৃণমূল নেতাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় তারা।  কে বা কারা এই খুনের ঘটনার সঙ্গে জড়িত, তা এখনও জানা যায়নি। খুনের কারণ নিয়েও তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা। পাঁশকুড়া থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। অভিযুক্তদের খোঁজে চলছে জোর তল্লাশি। 

[আরও পড়ুন: হাসপাতালেই পালটে গিয়েছে সন্তান, ১ মাস পর হুঁশ ফিরল মা-বাবার!]

মহানবমীর রাতে পাঁচটি বাইকে চড়ে সাতজন দুষ্কৃতী মোটর বাইকে চড়ে পাঁশকুড়ার মাইশোর বাজারে তৃণমূলের দলীয় কার্যালয়ের সামনে আসে। নবমীর রাতে এমনিতেই রাস্তায় বাইকের আনাগোনা তুলনায় বেশি ছিল। তাই কেউ সন্দেহও করেনি। ওই কার্যালয়ে তখন পাঁচ-ছ’জন কর্মীও ছিলেন। অন্যান্য দিনের মতোই সোমবার রাতে মাইশোরা বাজারে নিজের অফিসে বসেছিলেন পাঁশকুড়া পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি কুরবান শাও। অভিযোগ, ওইদিন রাত ১০টা নাগাদ সাতজন দুষ্কৃতী দলীয় কার্যালয়ে ঢুকে পড়ে। কিছু বুঝে ওঠার আগে বন্দুক বের করে ফেলে অপরিচিত যুবকেরা। পাঁশকুড়া পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি কুরবানকে লক্ষ্য করে পরপর ছ’রাউন্ড গুলি চালায় বলে অভিযোগ। গুলিতে ঝাঁজরা হয়ে যান কুরবান। প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই রক্তাক্ত অবস্থায় লুটিয়ে পড়েন কুরবান। ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থল ছেড়ে বাইক নিয়ে পাঁশকুড়ার দিকে চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা।

Kurban-Shah

[আরও পড়ুন: ঘর থেকে মহিলার নগ্ন দেহ উদ্ধার, তাল কাটল নবমীর আনন্দে]

কী কারণে খুন হতে হল কুরবানকে? কে বা কারা এই খুনের ঘটনায় জড়িত? একটি খুনকে কেন্দ্র করে নানা প্রশ্ন মাথাচাড়া দিলেও, উত্তর অধরা। তৃণমূল নেতা খুনের পর থেকে পাঁশকুড়া এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। আতঙ্কিত এলাকাবাসী। পাঁশকুড়া থানার পুলিশ এলাকায় টহল দিচ্ছে। নিহতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে দুষ্কৃতীদের সন্ধানে এলাকায় তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং