৬ শ্রাবণ  ১৪২৬  সোমবার ২২ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পুলিশের দাবি মতো, তিনি নাকি ফেরার৷ কোনও খোঁজ মিলছে না তাঁর৷ অথচ সন্দেশখালি কাণ্ডে অন্যতম অভিযুক্ত বাবু মাস্টারকেই এবার দেখা গেল সরকারি অনুষ্ঠানে। কেবল মঞ্চে স্বমেজাজে উপস্থিত থাকাই নয়, অনুষ্ঠান শেষে পুলিশি নিরাপত্তাতেই তিনি বিদায় নেন বলে অভিযোগ৷ এবং পুরোটাই নাকি হয়েছে জেলা শাসক চৈতালি চক্রবর্তীর উপস্থিতিতে৷ যা নিয়ে ইতিমধ্যে সুর চড়িয়েছে বিরোধীরা৷ এই ঘটনা আরও একবার পুলিশ ও প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তা প্রমাণ করল বলে অভিযোগ তাঁদের৷

[ আরও পড়ুন: ‘ক্ষমতায় এলে অপরাধীদের এনকাউন্টার’, ফের বিস্ফোরক মন্তব্য দুই বিজেপি নেতার ]

জানা গিয়েছে, সোমবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ দেন সন্দেশখালি কাণ্ডে অন্যতম অভিযুক্ত বাবু মাস্টার। জেলা পরিষদের শিক্ষা কর্মাধ্যক্ষ হিসাবে গোটা অনুষ্ঠানে মঞ্চ আলো করে বসেছিলেন তিনি। এবং সেখানেই উপস্থিত ছিলেন জেলা শাসক চৈতালী চক্রবর্তীও৷ সমস্ত ঘটনার সাক্ষী থেকেও এবিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি তিনি৷ সূত্রের খবর, সুকৌশলে এড়িয়ে গিয়েছেন সমস্ত প্রশ্ন৷ অন্যদিকে সারাক্ষণ বুক খুলিয়ে ঘুরে বেড়ান অভিযুক্ত বাবু মাস্টার৷ সন্দেশখালি কাণ্ডে তার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে, সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি৷ জানান, “ওই দিনের ঘটনার সঙ্গে আমার কোনও যোগই নেই। আমি যেখানে থাকি সেখান থেকে অনেক দূরে ওই ঘটনা ঘটেছে। সমস্তটা মিথ্যে।”

[ আরও পড়ুন: বাড়ির পাশ থেকে বৃৃদ্ধের গলাকাটা দেহ উদ্ধার, খুনের কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা ]

প্রসঙ্গত, দুই বিজেপি কর্মী ও এক তৃণমূল কর্মী খুনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে চলতি মাসেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বসিরহাটের সন্দেশখালির ন্যাজাট এলাকা৷ যার প্রভাব পড়ে রাজ্য তথা জাতীয় রাজনীতিতেও৷ ঘটনায় অভিযুক্ত হিসাবে উঠে আসে এলাকার দাপুটে তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহান ও বাবু মাস্টারের নাম। পুলিশ সূত্রের খবর, দায়ের হওয়া এফআইআরে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে যথাক্রমে নাম  রয়েছে শেখ শাহজাহান ও বাবু মাস্টারের৷ কিন্তু এখনও তাঁদের কাউকেই গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ৷ বরং বারবার অভিযুক্তদের ফেরার হিসাবে দেখানো হয়েছে৷ অথচ এবার পুলিশ ও জেলাশাসকের উপস্থিতিতে প্রকাশ্যে সরকারি অনুষ্ঠানে হাজির থাকতে দেখা গেল অন্যতম অভিযুক্ত বাবু মাস্টারকে৷ ফলে স্বভাবতই বিতর্ক মাথাচাড়া দিয়েছে৷ ওয়াকিবহাল মহলের প্রশ্ন, প্রকাশ্যে ঘোরাফেরা করলেও কী কারণে অভিযুক্তদের এখনও গ্রেপ্তার করছে না পুলিশ? কোন অদৃশ্য ব্যক্তির নির্দেশ মান্য করছেন প্রশাসনের আধিকারিকরা?

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং